৯:১০ এএম, ২৩ অক্টোবর ২০১৮, মঙ্গলবার | | ১২ সফর ১৪৪০


ডিমলায় দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রান মন্ত্রণালয়ের শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ

১৩ জানুয়ারী ২০১৮, ১২:৩২ পিএম | জাহিদ


হামিদা আক্তার, ডিমলা (নীলফামারী) প্রতিনিধি : হিমেল হাওয়া আর কনকনে শীতে মানুষজনের যুবুথবু অবস্থা।  শীতজনিত বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে কাহিল হয়ে পড়েছে বৃদ্ধ ও শিশুরা।  উত্তরাঞ্চলে হিমালয়ের পাদদেশে সীমান্তর্তী জেলা নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার তিস্তানদীর অবাহিকায় শীত যেন জেকে বসেছে।  গেল এক সপ্তাহে ডিমলা উপজেলায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৩ ডিগ্রী সেলসিয়াসে নেমে এসেছে। 

অসহায় দরিদ্র ও দু:স্থ মানুষ কোন মতে দিন কাটছেন যুবুথবু হয়ে।  ফলে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রান মন্ত্রণালয়ের সহযোগীতায় ডিমলা উপজেলার ১০টি ইউনিয়নেই শীতবস্ত্র কম্বল বিতরণ করা হচ্ছে প্রতিনিয়ত।  শীতার্তদেও মাঝে ঘরে ঘরে গিয়ে শীতবস্ত্র পৌছে দিচ্ছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমুন নাহার। 

এ প্রসঙ্গে ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমুন নাহার জানিয়েছেন ত্রান মন্ত্রণালয়ের সহযোগীতায় সাত হজার শীতবস্ত্র কম্বল বিতরণ করা হয়েছে।  তারই ধারাবাহিকাতায় ডিমলা উপজেলার গয়াবাড়ী ইউনিয়ন চত্তরে বৃস্পতিবার বিকেলে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রান মন্ত্রণালয়ের আরবান রিজিলিয়েন্স প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ও দূর্যোগ ব্যস্থাপনা অধিদপ্তরের উপ-সচিব মোঃ আব্দুল  মান্নান মেহেদী নিজেই উপস্থিত থেকে শতাধিক শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ করেন। 

এ সময় তিনি বলেন, তিনি বলেন ইতিমধ্যেই সারা দেশে শুধু মাত্র এ প্রকল্পের মাধ্যমে ৪০ হাজার কম্বল বিতরণ করা হয়েছে।  এ  জেলায় ২০ হাজার এবং উপজেলায় প্রায় সাত হাজার কম্বল বিতরণ করা হয়েছে।  প্রয়োজনে আরো শীতবন্ত্র বিতরণ করা হবে। 

প্রধানমন্ত্রীর অঙ্গীকার কোন মানুষ শীতবস্ত্রহীন ও অনাহারে থাকবে না।  আমরা প্রধানমন্ত্রীর অঙ্গীকার বাস্তবায়নে শীতার্তদের মাঝে শীতবন্ত্র তুলে দিচ্ছি। 

এ সময় উপস্থিত শীততার্ত মানুষজনের কাছে বলেন, যার নিদের্শে এবং ভালো বাসায় আপনারা শীতবস্ত্র পাচ্ছেন তিনি হচ্ছেন আমাদের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা।  আপনারা সকলে ওনার জন্য একটু দোয়া করবেন। 

কম্বল বিতরণী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমুন নাহার, জেলা ত্রাণ ও পূর্নবাসন কর্মকর্তা এটিএম আখতারুজ্জামান, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জিয়াউর রহমান, উপ-সহকারী প্রকৌশলী ফেরদৌস আলম, ইউপি চেয়ারম্যান শরীফ ইবনে ফয়সাল মুন,সাংবাদিক জাহাঙ্গীর আলম রেজা প্রমুখ।