১১:৩১ এএম, ১৮ অক্টোবর ২০১৮, বৃহস্পতিবার | | ৭ সফর ১৪৪০


নাটোরে বিদ্যুতের পোল ধ্বস নৎ অল্পের জন্য রক্ষা পেলেন শতাধিক মানুষ!

১৩ জানুয়ারী ২০১৮, ০৭:১০ পিএম | জাহিদ


মোঃ রাশেদুল ইসলাম, নাটোর প্রতিনিধি : চলছিল রাস্তা প্রশস্তকরণের কাজ।  শহরের প্রাণকেন্দ্র ছায়াবানী মোড় ও স্টেশন বাজারের সংযোগকারী একমাত্র রাস্তাটি দিয়ে চলাচছিল শতাধিক যানবাহন।  দুইটি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, বিদ্যুত অফিস, একটি মিলসহ কর্মঘন্টার ব্যস্ত আলাইপুরের সওজের পরিত্যক্ত কলোনী সংলগ্ন রাস্তাটিতে ঘটতে চলেছিল বড় দূর্ঘটনাটি।  ১১ হাজার ভোল্টের তার সংবলিত বিদ্যুতের ৪টি পোল একসাথে হেলে রাস্তার পাশে স্তপকৃত মাটিতে পড়ে যায়। 

মাটির স্তপ না থাকলে যানবাহন ও জনসাধারণের উপর পোলগুলো পড়লে বড় ধরণের দূর্ঘটনা ঘটে যেতে পারতো।  তা না হওয়ায় অল্পের জন্য বড় ধরনের দূর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেয়েছে শতাধিক মানুষ।  বড় ধরনের হতাহতের রক্ষা পাওয়ায় সস্তির নিশ্বাস ফেলেছেন আলাইপুর এলাকার মানুষ।  এ ঘটনার পরপর স্থানীয় জনতা বিদ্যুত অফিসে খবর দিলে তারা বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ করে দেয়।  তবে পোল সরাতে গিয়ে প্রচন্ড যানজট সৃষ্টি হয় রাস্তাটির দুধারে।  এতে করে স্টেশনগামী ও বাজারগামী কয়েকশত যানবাহন থেমে যায়। 

পোল হেলে পড়ার সময় ঐ স্থানে থাকা বিশ্বজিত রায় ও বুলবুল আহমেদ জানান, সকাল ১০ টা ২০ মিনিটে কলোনীর সামনে নির্মানাধীন ড্রেনের কাজ করার সময় বিদ্যুতের ৪টি পোল পরপর ধসে পরে।  এসময় সেখান দিয়ে যাতায়াতকারী সরকারী বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, অটোরিক্সার যাত্রীরা প্রাণ ভয়ে চিৎকার শুরু করে।  তবে পোল ৪টি রাস্তায় না পরে মাটির স্তপে বাধাপ্রাপ্ত হওয়ায় হতাহতের থেকে রক্ষা পান অনেক মানুষ। 

অটো রিক্সার যাত্রী ও উত্তর বড়গাছা এলাকার বাসিন্দা আলিক জানান, বিদ্যুতের পোল হেলে পড়া অবস্থায় ঘটনাস্থলের পাশেই পিডিবির অফিস হওয়ায় অনেকেই ছুটে যান সেখানে।  পরে পিডিবি থেকে বিদ্যুতের সংযোগ বন্ধ করে দেয়া হয়। 

উল্ল্যেখ্য, রাস্তা প্রশস্ত করার কাজের অংশ হিসাবে ওই এলাকায় ড্রেন নির্মাণ কাজ চলছিল।  সম্প্রতি বিদ্যুতের খুটি গুলো ড্রেনের পাশে সড়িয়ে নেওয়া হয়।  শনিবার সকালে ড্রেন নির্মানের কাজে থাকা শ্রমিকরা বিদ্যুতের খুটির পাশে খনন করায় খুটি গুলো ধসে যায়। 

এব্যাপারে পিডিবির নির্বাহী প্রকৌশলীল ল্যান্ড ফোনে একাধিক বার ফোন দেওয়া হলেও কেউ রিসিভ করেননি। 

এ ঘটনার পর সওজের নির্বাহী প্রকৌশলী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।