১১:০৫ এএম, ১৮ অক্টোবর ২০১৮, বৃহস্পতিবার | | ৭ সফর ১৪৪০


‘২০৪১ সালের মধ্যে ৬০ হাজার মেগোয়াট বিদ্যৎ উৎপন্ন হবে’

১৩ জানুয়ারী ২০১৮, ১০:৪৩ পিএম | সাদি


মাতুব্বর শফিক স্বপন, মাদারীপুর প্রতিনিধি : ২০৪১ সালের মধ্যে ৬০ হাজার মেগোয়াট বিদ্যৎ উৎপন্ন হবে।  তখন দেশে কোন  বিদ্যুতে ঘাটতি থাকবে না।  শনিবার বিকেলে মাদারীপুরে উন্নয়ন মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান এ কথা বলেন।  তিনি আরো বলেন, একটি রাষ্ট্রের অভিভাবক হিসেবে রাষ্ট্রের যেমনি উন্নয়ন সম্ভব তেমনি আমাদের রাষ্ট্র প্রধান জননেত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের উন্নয়নে মাহাতি মোহাম্মদ হয়ে দেশের উন্নয়ন করে যাচ্ছে।  

পদ্মা সেতু প্রসঙ্গে তিনি বলেন দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের প্রাণের দাবী পদ্মা সেতু।  বিশ্ব ব্যাংক যখন পদ্মা সেতুর কাজ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিলেন।  তখন জননেত্রী শেখ হাসিনা কারো কাছে মাথা নত না করে।  কারো কাছে হাত না পেতে।  নিজেদের টাকায় পদ্মা সেতু নির্মান করছে।  বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া প্রসঙ্গে নৌপবিহনমন্ত্রী শাজাহান খান বলেন তিনি নাকি ৩ বারের প্রধানমন্ত্রী অবশ্য একবার ১২দিনের।  বিএনপি নেত্রী  তার নেতা-কর্মীদের মাঠে নামতে বললে কেউ এখন আর মাঠে নামে না।  সন্ত্রাস, জ্বালাও -পোড়াও কেউ আর বিশ্বাস করেনা।  

বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া বলেছেন, পদ্মা সেতু নির্মান কাজ জোড়া তালি দিয়ে চলছে।  আপনারা কেউ এ সেতু দিয়ে পারাপার হবেন না।  আমি দক্ষিণাঞ্চলের  বিএনপি নেতাদের উদ্দেশ্যে করে বলছি আপনারা কেউ পদ্মা সেতু পার হয়ে ঢাকা যাবেন না।  এবার আপনাদের নেত্রীর কথা একটু শুনুন।  মাদারীপুর দিয়ে যখন ঢাকা থেকে ফিরবেন তখন জিজ্ঞেস করবো আপনারা পদ্মা সেতু পার হলেন কেন। 

ফোরলেণ প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন আমাদের পাশ্ববর্তী বরিশালে ফোরলেন নেই।  মাদারীপুরে যখন ফোরলেন প্রস্তাব দেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমার প্রস্তাবে রাজি হলেন।  ৮কি.মি. রাস্তা ফোরলেন করা হলো আর এই ফোরলেন রাস্তার নাম করণ করা হবে শেখ হাসিনা ফোরলেন।  কারন তিনি না হলে ফোরলেন হতো না। 

জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুল উসলামের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পুলশ সুপার মো. সরোয়ার হোসেন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা মো. মিয়াজ উদ্দিন খান, মাদারীপুর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান পাভেলুর রহমান শফিক খান, মাদারীপুর পৌরসভার মেয়র মো খালিদ হোসেন ইয়াদ, মাদারীপুর পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা খলিলুর রহমান খান,কৃষকলীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মো. সাকিলুর রহমান সোহাগ প্রমুখ।  পরে মেলায় অংশ গ্রহনকৃত স্টলের মাঝে পুরস্কার বিতরণ ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।