৮:২৫ পিএম, ২৩ মে ২০১৮, বুধবার | | ৮ রমজান ১৪৩৯

South Asian College

যৌতুকের দাবীতে স্ত্রীকে পিটিয়ে জখমের পর নিখোজ

১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১২:১৯ এএম | সাদি


কে.এম. রিয়াজুল ইসলাম, বরগুনা প্রতিনিধি : বরগুনায় স্বামীকে দুই লাখ যৌতুক দিতে না পারায় স্ত্রীকে পিটিয়ে জখম ও পরে নিখোজ করেছে স্বামী।  এ ঘটনাটি  ঘটেছে সোমবার রাতে বরগুনা সদর উপজেলার নলটোনা ইউনিয়নে গর্জন বুনিয়া গ্রামে। 

নিখোজঁ গৃহবধুর বাবা আবদুল মালেক জানান, তার মেয়ে হালিমাকে ৮ বছর আগে একই ইউনিয়নের নিশানবাড়ীয়া গ্রামের খলিল জোমাদ্দারের ছেলে কবিরের সঙ্গে বিয়ে হয়।  হালিমার গর্ভে ৩ বছরের একটি পুত্র সন্তান রয়েছে।  তার জামাতা কবির, পিতা খলিল, মাতা  খাদিজা ও কবিরের বোন ময়না যৌতুকের জন্য হালিমাকে প্রায়ই নির্যাতন করে।  গত বছর গৃহবধুর বাবা মালেক একটি দুধের গরু জামাতাকে দেয়।  এরপরও যৌতুকের জন্য হালিমাকে তারা নির্যাতন করে আসছে। 

সোমবার সকালে হালিমার স্বামী ও তার আত্মীয় স্বজন দুই লাখ টাকা যৌতুকের দাবীতে তার মেয়েকে পিটায়।  এ সময় প্রতিবেশী নিশানবাড়ীয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আবদুল মান্নান হালিমাকে নির্যাতন থেকে রক্ষা করে।  ওই দিন সন্ধ্যায় হালিমার স্বামী ও তার পরিবারের লোকজন আবার দুই লাখ টাকা যৌতুকের দাবীতে সবাই মিলে নির্যাতন করে।  একই দিনে রাত ১১ টায় কবিরের বোন ময়না হালিমার বাবাকে ফোন করে জানায় হালিমাকে পাওয়া যাচ্ছে না। 

হালিমার বাবা আবদুল মালেক মঙ্গলবার সকালে বলেন, সকালে আমি মেয়ের বাড়ী গিয়ে দেখি আমার তিন বছরের নাতি মা মা করে কান্নাকাটি করে।   আমার মেয়ের কেহ খোজ দিতে পারছে না।  আমার ধারনা কবির ও তার পরিবারের লোকজন আমার মেয়ে হালিমাকে যৌতুকের দাবীতে হত্যা করে তার লাশ গোপন করে রেখেছে। 

এ ব্যাপারে কবির বলেন, আমরাও হালিমাকে খোজ করতেছি।  হয়তবা রাগ করে কোথাও চলে গেছে।  বরগুনা থানার ওসি এসএম. মাসুদুজ জামান বলেন, হালিমার বাবা থানায় আসছিল।  খোজ করে দেখতে বলেছি।  কোথাও না পেলে সন্ধ্যায় থানায় আসতে বলেছি। 

Abu-Dhabi


21-February

keya