১০:৩৭ এএম, ১৮ নভেম্বর ২০১৮, রোববার | | ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪০




ফরিদগঞ্জে সাংবাদিকদের সহায়তায় ১২ শ’ একর বোরো চাষি কৃষকের মুখে হাসি

১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১০:৪৫ পিএম | সাদি


জাকির হোসেন সৈকত, ফরিদগঞ্জ প্রতিনিদি : শুধু সংবাদ প্রকাশ করলেই দেশ ও জাতির উপকার হবে এই চিন্তায়  সাংবাদিকতার কাজ শেষ বা দায়িত্ব পালন হয়ে গেল এমন চিন্তা ভুল আবারো।  এই শিক্ষা দিয়েছিল আজ থেকে প্রায় ১০ বছর পূর্বে দৈনিক যুগান্তর পত্রিকার বার্তা সম্পাদক ফরিদগঞ্জ উপজেলার প্রয়াত কৃতি সন্তান আহম্মেদ ফারুক হাসান। 

তাঁর সেই শিক্ষা থেকে কাজ করলো ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাংবাদিকরা।  তারা খবর পেল ফরিদগঞ্জ উপজেলার উত্তর অঞ্চলের প্রায় হাজারো কৃষক সেচের পানির অভাবে এবারের বোরো চাষ করতে পারছে না।  কারণ উপজেলার ডাকাতিয়া নদীর শাখা খালের (বোরো পিট খাল) উপর গাজীপুর- ধানুয়া ও চান্দ্রা বাজার- বেড়ীবাঁধের সাথের এলাকায় দু’টি ব্রীজের কাজ চলছে। 

ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কোন এক অজ্ঞাত কারণে খালের পানি চলাচলের ব্যবস্থা না করে ব্রীজ দু’টির কাজ শুরু করে।  এতে করে বিকল্প পানি চলাচলের ব্যবস্থা না থাকায় জানুয়ারীর শুরুতে সিআইপি বেড়ীবাঁধের অভ্যন্তরে সেচের পানি সরবরাহ থাকলেও, গাজীপুর থেকে শুরু করে উপজেলার উত্তর অঞ্চলের ১২ শ’ একর বোর চাষি সেচের পানি যথা সময় পাওয়া থেকে বঞ্চিত হয়।  ওই এলাকার কয়েক শত কৃষক দিশেহারা হয়ে ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাংবাদিকদের স্মরনাপন্ন হয়। 

সাংবাদিকরা তাৎক্ষণিক সংবাদটি পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে কোন প্রকার সংবাদ লেখালেখি না করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা প্রকৌশলীকে বিষয়টি গুরুত্বের সাথে অবগত করান।  উপজেলা প্রশাসন তাৎক্ষণিক ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে দিয়ে বরো পিট খালগুলোতে সেচের পানি সরবরাহের ব্যবস্থা করার নির্দ্দেশ দেন। 

প্রশাসনের কঠোর নির্দ্দেশ পেয়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জরুরী ভিত্বিতে বিকল্প ব্যবস্থায় পানি সরবরাহের উদ্যোগ নেয়।  এই বিষয়ে স্থানীয় স্কিম ম্যানেজার, আনোয়ার হোসেন ও শামছুল হক বলেন, দেরিতে হলেও আমরা স্কিম গুলোতে সাংবাদিকদের সহযোগিতায় পানি পেয়েছি।  তবে আরো আগে পানি পেলে আমরা সঠিক সময় বোর ধান চাষ করে ঘরে ফসল তুলতে পারতাম।  এখন বোর চাষ নিয়ে আমরা শংঙ্খায় আছি।  ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাংবাদিকদের এ অসামান্য সহযোগিতার জন্য আমরা তাদের ধন্যবাদ জানাই। 

এই বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এএইচএম মাহফুজুর রহমান বলেন, ওই এলাকায় সেচের পানি সরবরাহ বন্ধ এমন সংবাদ সাংবাদিকদের কাছে জানতে পেরে উপজেলা প্রকৌশলীকে তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দ্দেশ দেই।  সেই সুবাদে খুব অল্প সময়ের মধ্যে পানি সরবরাহ শুরু হয়।  উপজেলা প্রকৌশলী জিয়াউল ইসলাম মজুমদার জানান, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নির্দ্দেশক্রমে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে কঠোর ভাবে নির্দ্দেশ প্রদান করা হয়।  প্রতিষ্ঠান খুব অল্প সময়ের মধ্যে বিকল্প ব্যবস্থায় সেচ এলাকায় পানি সরবরাহ শুরু করে। 

উল্লেখ্য, গত প্রায় ১০ বছর আগে প্রয়াত প্রখ্যাত সাংবাদিক আহম্মেদ ফারুক হাসান, তাঁর নিজের গ্রামের বাড়িতে বেড়াতে এসে ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবের সংবাদ কর্মীদের নিয়ে মতবিনিময় কালে সাংবাদিকদের বলেন, পত্রিকায় নিউজ করে সব কাজের সমাধান হয় না।  সাংবাদিকদের অনেক  সংবাদ প্রকাশ হয়ে সংশ্লিষ্ট বিভাগের নজরে আসতে আসতে দেশ বা জাতির বড় ধরণের ক্ষতি সাধন হয়ে যায়।  এই ক্ষেত্রে সংবাদের চিন্তা না করে কি ভাবে তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা বা উদ্যেগ নিলে মানুষের উপকারে আসবে তার চিন্তা করতে হবে। 

কিছু সময় সাংবাদিকরা নিজেরাই উদ্যোগ নিয়ে ছোট ছোট কাজ বা সমস্যা সমাধান করতে পারে।  সাংবাদিকদেরও সমাজকর্মী হয়ে সমাজের সামাজিক কাজে সহায়তা করতে হবে।  তা হলেই তুমি পূর্ণাঙ্গ সাংবাদিক।  সেই চিন্তার আলোকে ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাংবাদিকরা এই উদ্যোগ গ্রহণ করে ফরিদগঞ্জের পূর্বাঞ্চলের বেশ কিছু কৃষকের মুখে হাসি ফোটাতে সক্ষম হয়েছে।