৭:১৩ এএম, ১৯ জুন ২০১৮, মঙ্গলবার | | ৫ শাওয়াল ১৪৩৯

South Asian College

ড. জাফর ইকবালের উপর হামলা ব্যক্তির উপর নয়, তার আদর্শের উপর হামলা

০৫ মার্চ ২০১৮, ০৩:৩০ পিএম | মুন্না


মিশকাত মিশু, রাবি প্রতিনিধি : সে আদর্শটা হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, অসাম্প্রদায়িক চেতনা।  ড. জাফর ইকবালের উপর হামলার প্রতিবাদে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের মানববন্ধন কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান । 

সোমবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয় সিনেট ভবনের সামনে সংগঠনটির সভাপতি অধ্যাপক জুলফিকার আলীর সভাপতিত্বে এ মানববন্ধনে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনন্দ কুমার সাহা, অধ্যাপক মলয় কুমার ভৌমিক, অধ্যাপক সাদিকুল আরেফিন, পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক সুলতানুল ইসলাম, অধ্যাপক সুজিত সরকার, সহকারী প্রক্টর ও আইন বিভাগের অধ্যাপক শিবলী ইসলাম প্রমুখ। 

এসময় উপাচার্য আরো বলেন, অধ্যাপক জাফর ইকবাল একজন লেখক, বিজ্ঞানী, সর্বোপরি একজন অসাম্প্রদায়িক চেতনার মানুষ।  বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছিল এ অসাম্প্রদায়িক চেতনার উপর ভিত্তি করে।  বাংলাদেশ আজ মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে, সে দেশে কোন রকম অন্যায়কে প্রশ্রয় দেওয়া যায় না।  আইন প্রয়োগকারী বাহিনীর পাশাপাশি জনসাধারণকেও এগিয়ে আসতে হবে, তাহলেই সাম্প্রদায়িক শক্তিকে প্রতিরোধ সম্ভব হবে। 

উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনন্দ কুমার সাহা তার বক্তব্যে বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বিরোধী সাম্প্রদায়িক শক্তি এ হামলা করেছে।  তাই যারা ৫২, ৬৯ এবং ১৯৭১ এর মুক্তিযুদ্ধে এগিয়ে এসেছিল সে যুবকদের আবারো এগিয়ে আসতে হবে। 

এ সময় বক্তারা বলেন, যারা অধ্যাপক ড. জাফর ইকবালের উপর হামলা করেছে তারা মুক্তিযোদ্ধের চেতনাকে ভূলুণ্ঠিত করতে চায়, তারা এদেশের স্বাধীনতা ও সংবিধানে বিশ্বাস করে না।  আজ আমাদের দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে বললে ভুল হবে বরং দেয়ালটা বহু আগেই ভেঙ্গে গেছে।  আজ আমরা এমন একটা পরিস্থিতিতে আছি শুধু বিচারের মাধ্যমে এর থেকে রেহাই পাওয়া যাবে না।  আজ আমাদের পুরো সমাজটাই অন্ধকারের দিকে ধাবিত হচ্ছে, আমাদের সমাজটাই পূনর্নিমাণ করতে হবে, এজন্য শিক্ষকদেরকেও এগিয়ে আসতে হবে।