১১:০৩ এএম, ২০ অক্টোবর ২০১৮, শনিবার | | ৯ সফর ১৪৪০


বড়পুকুরিয়া কয়লাভিত্তিক তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের আল্টিমেটাম

১৭ এপ্রিল ২০১৮, ০৩:০৯ পিএম | জাহিদ


মো: আশরাফুল আলম, ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি : দিনাজপুরের ফুলবাড়ী বড়পুকুরিয়া কয়লাভিত্তিক তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের ৩য় ইউনিটের অভিজ্ঞ, দক্ষ ও স্থানীয় শ্রমিকদের ১৯ এপ্রিলের মধ্যে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করা না হলে ২১ এপ্রিল থেকে অবিরাম কর্মবিরতি শুরু করা হবে। 

১৭ এপ্রিল মঙ্গলবার সকালে বড়পুকুরিয়া তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের তৃতীয় ইউনিট সংলগ্ন এলাকায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে উপরোক্ত আল্টিমেটাম ঘোষণা করেন বড়পুকুরিয়া তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের ৩য় ইউনিটের উন্নয়ন ও উৎপাদন কাজের শ্রমিক নিয়োগের দাবিতে আন্দোলনরত শ্রমিকদের সংগঠন আন্দোলন পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. হাবিবুর রহমান। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মো. আবু সাঈদসহ অন্যান্য শ্রমিকরা। 

আন্দোলন পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. হাবিবুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক মো. আবু সাঈদ বলেন, তৃতীয় ইউনিটের উন্নয়ন কাজে নিয়োজিত শ্রমিকদের অভিজ্ঞতা অর্জিত হওয়ার পরও তাপবিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষসহ ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান অভিজ্ঞ শ্রমিকদের উৎপাদন কাজে নিয়োগে উদ্যোগ না নিয়ে বাহির থেকে শ্রমিক নিয়োগের প্রক্রিয়া শুরু করার পর থেকেই অভিজ্ঞ ও দক্ষ ৪৯১ জন উন্নয়ন শ্রমিক উৎপাদন শ্রমিক হিসেবে নিয়োগের জন্য আবেদনপত্র জমা দেন।  কিন্তু কতৃপক্ষ ও চিনা ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ওইসব শ্রমিকদের আবেদনকে উপেক্ষা করে বাহির থেকে শ্রমিক নিয়োগের প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখায় শ্রমিকরা দীর্ঘদিন থেকে আন্দোলন সংগ্রাম চালিয়ে আসছেন। 

তবে ১৯ এপ্রিলের মধ্যে আবেদনকারি শ্রমিকদের নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করা না হলে ২১ এপ্রিল থেকে অবিরাম কর্মবিরতি পালন করা হবে।  এতে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উন্নয়ন ও উৎপাদন কাজ ব্যাহত হলে এর দায়দায়িত্ব কর্তৃপক্ষসহ চিনা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান দায়ি থাকবেন।  আন্দোলনকারি শ্রমিকদের আন্দোলনের সাথে সংহতি জানিয়ে তারাও কর্মবিরতি পালনের ঘোষণা দিয়েছেন। 

বড়পুকুরিয়া তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের তৃতীয় ইউনিটের প্রকল্প পরিচালক (চলতি দায়িত্ব) প্রকৌশলী মো. শামসুল হক মুঠোফোনে বলেন, চিনা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান হারবিন ইন্টারন্যাশনাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র তৃতীয় ইউনিট নির্মাণের সময় প্রয়োজনের তাগিদে অস্থায়ী ভিত্তিতে বিপুল সংখ্যক শ্রমিক স্থানীয়ভাবে নিয়োজিত করে কাজ করায়।  কিন্তু ইউনিটের কাজ শেষ হওয়ায় সাথে সাথে ওইসব শ্রমিকেরও কাজ শেষ হয়ে গেছে।  এছাড়াও পিডিবিতে স্থায়ী, অস্থায়ী কিংবা আউট সোর্সিংয়ের মাধ্যমে শ্রমিক নিয়োগ দিতে হলে বোর্ডের অনুমোদন সাপেক্ষে কেন্দ্রীয়ভাবে নিয়োগ দিতে হবে।  স্থানীয়ভাবে শ্রমিক নিয়োগের কোন সুযোগ নেই। 

তবে পূর্বের শ্রমিকরা নিয়োগের দাবিতে কর্মবিরতির ঘোষণা দিলেও তারা বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কোন কার্যক্রমের সাথে জড়িত নয়।  কোন কাজে তারা কর্মবিরতি পালন করবেন? তাদের কর্মবিরতিতে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কোন লাভক্ষতি হবে না।  আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে তৃতীয় ইউনিটের সার্বিক কার্যক্রম ১ ও ২ ইউনিটের কাছে হস্তান্তর করে প্রকল্পের সার্বিক কার্যক্রম গুটিয়ে নেওয়া হবে।