৬:৩০ এএম, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮, সোমবার | | ১ রবিউস সানি ১৪৪০




কুয়েতে বাংলাদেশি নিখোঁজ, দেশে অভিযোগ নিচ্ছে না পুলিশ

২৭ এপ্রিল ২০১৮, ০৮:৫০ এএম | জাহিদ


সাদেক রিপন, কুয়েত প্রতিনিধি : কুয়েতের জেলিব আল সুয়েক বাঙালী অধ্যষিত এলাকা হাসাবিয়া হতে ৯ মাস আগে সবজি ব্যবসায়ী ওমর ফারুক বাবুল (৪২) নামে এক প্রবাসী নিখোঁজ হয়। 

নিখোঁজ বাবুল চাঁদপুর জেলা শাহরাস্তি থানার রায়শ্রী দক্ষিণ ইউনিয়নের সেরাজুল হকের পাঁচ সন্তানের জনক।  সে ২০ বছর যাবৎ কুয়েত রয়েছেন হাসাবিয়া এলাকায়া বিভিন্ন কাঁচা মাল শাক সবজির ব্যবসায় করতেন বাবুল।  নাড়ীর টানে ২০১৭ সালে দেশে ছুটির যাওয়ার পর ৩ মাস ছুটি শেষে ১২ মার্চ কুয়েতে ফিরে আসেন নিজ কর্মস্থলে।  আসার পর সব ঠিকঠাক ছিল নিয়মিত যোগযোগ করতেন দেশে পরিবারের সাথে হঠাৎ যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যাওয়ায়।  পরিবারের সদস্যরা দিশেহারা হয়ে পড়েন। 

কুয়েতের বিভিন্ন আত্মীয় স্বজন ও বিভিন্ন মাধ্যমে খোঁজ নেয়ার চেষ্ট করেন।  ব্যর্থ হয়ে বাংলাদেশ দূতাবাসের সহযোগিতায় কুয়েতের বিভিন্ন হাসপাতাল ও জেলখানা ও কারাগার পর্যন্ত খোঁজ নিয়ে দেখেন কোথাও কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি বাবুলের।  নিখোঁজ বাবুলের সন্তান শাহাদাৎ হোসেন তার ফেসবুক আইডিতে তার বাবা নিখোঁজ সন্ধান চায় ভিডিও প্রকাশ করেন।   নিখোঁজ বাবুলের স্ত্রী সংসারের একমাত্র উপার্যনক্ষম ব্যক্তির নিখোঁজ হওয়ায় ৫ সন্তান নিয়ে বিপাকে পড়েছেন। 

নিখোঁজ বাবুলের স্ত্রী খোদেজা বলেন তার স্বামীর সাথে ২০১৭ সালে ২৩ আগস্ট সর্বশেষ যোগাযোগ হয়।  তিনি কুয়েতে তার ব্যবসায়ী সহযোগী সাথে টাকার লেনদেন নিয়ে দ্বন্ধের চলছে বলেও জানান এবং তাকে ঘুমের মধ্যে বালিশ ছাপা দিয়ে মেরে পেলার চেষ্টা করা হয়েছিল তার ভাগিনা সোলেমান।  সোলেমান ৬/৭ মাস আগে দেশে চলে এসেছে।  নিখোঁজের ব্যাপারে তার কাছে জানতে চাইলে সে কিছু বলতে নারাজি প্রকাশ করছে।  আমার স্বামী নিখোঁজ দেশে আমার ৫ সন্তান নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগোছি এ ব্যাপারে শাহরাস্তি থানায় একাধিক বার মামলা করতে গেলেও থানা মামলা নিতে অস্বীকার করে। 

তবে এবিষয়ে কুয়েত দূতাবাসের যথেষ্ট সহযোগিতা করছে এবং দূতাবাসের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন বাবুলের স্ত্রী খোদেজা।  এব্যাপারে জাগো নিউজের কুয়েত প্রতিনিধি বাংলাদেশ দূতাবাসের শ্রম কাউন্সিলর আব্দুল লতিফ খাঁনে সাথে যোগাযোগ করলে শ্রম কাউন্সিলর বলেন আমারা বাবুলকে খোঁজার সব রকম চেষ্ট চালিয়ে যাচ্ছি।  কুয়েতের সব জেল ও হাসপাতাল খোঁজ নিয়েছি সেখানে এই নামের কেউ নেই।  আমাদের চেষ্ট অব্যাহত রয়েছে।  এই দিকে নিখোঁজ বাবুলের কুয়েতি মালিক থানা মামলা দায়ের করেন কয়েক দিন আগে সেই মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সন্দেহবাজন ৩ বাংলাদেশিকে আটক করেছে কুয়েতের পুলিশ। 

আটককৃতরা হলেন মোহাম্মদ কুতুব, আবুল বাশার, জুয়েল হোসেন।  নিখোঁজ বাবুলের পরিবারে দবী সকলের সহযোগিতায় সুষ্ঠ তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত ঘটনার রহস্য উন্মোচন করা হোক।