১২:৫৯ পিএম, ১৫ আগস্ট ২০১৮, বুধবার | | ৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৩৯


‘সিএমএইচে চিকিৎসা নিতে অস্বীকৃতি খালেদা জিয়ার’

১৪ জুন ২০১৮, ০৪:৪৬ পিএম | সাদি


এসএনএন২৪.কম : সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসা নিতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া অস্বীকৃতি জানিয়েছেন।  এখন তিনি (খালেদা জিয়া) চাইলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসা নিতে পারেন। 

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। 

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘খালেদা জিয়া একজন সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও একটি বৃহত্তর রাজনৈতিক দলের প্রধান।  আমরা তাঁর চিকিৎসার বিষয়টি সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে দেখছি।  এ কারণেই আমরা প্রথমে তাঁকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসাসেবা দিতে চেয়েছি।  তিনি অস্বীকৃতি জানিয়েছেন।  পরবর্তী সময়ে কারা কর্তৃপক্ষ তাঁকে সিএমএইচে চিকিৎসা নিতে প্রস্তাব করেছেন।  এটি দেশের সব হাসপাতাল থেকে অনেক গুণে ভালো।  এখানেও তিনি চিকিৎসা নিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। ’

এখন খালেদা জিয়ার চিকিৎসা কোথায় হবে? এমন প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘এখন চিকিৎসকরা বসে পরবর্তী করণীয় নির্ধারণ করবেন।  চিকিৎসকরা যে পরামর্শ দেন, আমরা সেটাই অনুসরণ করব। ’

অপর এক প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘খালেদা জিয়া চাইলে এখনো বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসা নিতে পারেন।  দেশের খ্যাতিমান চিকিৎসকরা এখানে আছেন।  পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও চিকিৎসার সময় প্রয়োজনে খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসকরাও থাকতে পারবেন।  এতে কোনো বাধা নেই। ’

বিএনপির দাবি ও খালেদা জিয়ার পরিবারের আবেদন অনুযায়ী ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসা দিতে অসুবিধা কোথায়? এমন প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, জেলকোডের বিধান অনুযায়ী একজন কারাবন্দির পছন্দ অনুযায়ী যেকোনো হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়ার বিষয়ে কিছু বিধিনিষেধ রয়েছে। 

ইউনাইটেড হাসপাতাল নিয়ে রাজনীতি হচ্ছে কি না তাও খতিয়ে দেখা প্রয়োজন বলে জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।  তিনি বলেন, বিএনপি বারবার খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য ইউনাইটেড হাসপাতালে নেওয়ার দাবি করে আসছে।  এর পেছনে কোনো রাজনীতি আছে কি না, সেটা খতিয়ে দেখা প্রয়োজন।  স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ইউনাইটেড হাসপাতালের চেয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের যন্ত্রপাতি ও চিকিৎসার মান আরো আধুনিক। 

পারিবারিক খরচে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে খালেদা জিয়াকে ভর্তি করিয়ে চিকিৎসার সুযোগ দেওয়ার জন্য গত মঙ্গলবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বরাবর আবেদন করেছিলেন তাঁর ভাই শামীম ইস্কান্দার। 

আবেদনের বিষয়ে এ দিন বিএনপি চেয়ারপাসনের উপদেষ্টা বিজন কান্তি সরকার সাংবাদিকদের বলেন, ‘আগে খালেদা জিয়া ইউনাইটেড হাসপাতালেই নিয়মিত চিকিৎসা করাতেন।  তাঁর রোগ সম্পর্কে এখানকার চিকিৎসক ওয়াকিবহাল।  বেসরকারি হাসপাতালে কারাবন্দিদের চিকিৎসা করানোর বহু নজির এর আগে আমরা দেখেছি। ’

ওই দিনই পরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, আমরা বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে সিএমএইচে চিকিৎসা নেওয়ার জন্য প্রস্তাব দেবো।  আমার মতে, সিএমএইচে তাঁর চিকিৎসা নেওয়া উচিত। 

কারান্তরীণ বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকরা জানান, তাঁদের ধারণা সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাইল্ড স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়েছেন।