৩:০৫ এএম, ১০ আগস্ট ২০২২, বুধবার | | ১২ মুহররম ১৪৪৪




ক্ষমতা ও পেশী শক্তির জানান দিতে লন্ডন প্রবাসী অধুষ্যিত এলাকায় ফেসবুকে অস্ত্রের মহড়া

৩০ নভেম্বর -০০০১, ১২:০০ এএম | মোহাম্মদ হেলাল


 

হাবিব সরোয়ার আজাদ, সুনামগঞ্জ : সুনামগঞ্জের প্রবাসী অধ্যুষিত এলাকায় টাকার গরমে নিজেদের ক্ষমতা ও পেশী শক্তির জানান দিতে গিয়ে অনেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নিজের হেফাজতে থাকা আগ্নেয়াস্ত্র’র ছবি পোষ্ট করছেন।  সুনামগঞ্জের শিল্পনগরী  ছাতকের দোলারবাজারের  বিভিন্ন গ্রামে ফেসবুকে অস্ত্রের মহড়া চলছে বেশ জোরেশোরেই।  এ নিয়ে রীতিমত তোলপাড় শুরু হয়েছে।  নিরীহ লোকজনের মধ্যে আগ্নেয়াস্ত্র’র ভীতি ছড়িয়ে পড়েছে। 

জানা গেছে, একশ্রেনীর অস্ত্রবাজরা নিজেদের সংগ্রহে রাখা অত্যাধুনিক আগ্নেয়াস্ত্রে গুলি ভর্তি করা, অস্ত্র প্রদর্শন ও গুলি ছোঁড়ার দৃশ্যসহ অস্ত্র হাতে নিয়ে বিভিন্ন অঙ্গভঙ্গির দৃশ্য ধারণ করে নিজ ফেসবুক আইডিতে অহরহ পোষ্ট করে যাচ্ছেন।  অনেকে গ্রাম্য বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে ও নিজের ক্ষমতার জানান দিতে গিয়ে ভয়ভীতি প্রদর্শনের জন্য ইচ্ছে করেই ফেসবুকে তাদের গালাগালসহ অস্ত্র প্রদর্শন করছেন।  বিটিআরসি ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রনালয় ফেসবুক, মোবাইল নাম্বারসহ বিভিন্ন ব্যক্তিগত তথ্যগুলো আইনের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করলেও এক্ষেত্রে চরম উদাসিনতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। ’ ফেসবুক ব্যবহারকারী স্কুল কলেজের শিক্ষার্থী সহ অনেকেই এ ধরণের অস্ত্রেও বেপরোয়া ছবি দেখে আতংকিত হয়ে উঠেছেন।  শুধু তাই নয় ইতিপুর্বে ওই সব এলাকায়   অস্ত্র প্রদর্শনীসহ সঘর্ষেও ঘটনায় গুলিবিদ্ধ হয়ে পঙ্গুত্ববরণ করছেন একাধিক সংখ্যক নিরীহ লোকজন। 

অভিযোগে জানা যায়, দোলারবাজার ইউনিয়নের পালপুর, জটি, মঈনপুর, বসন্তপুর, নরসিংপুর, লক্ষীপাশা, বুরাইয়া, জাহিদপুরসহ অন্যান্য গ্রামে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রকাশ্য অস্ত্র প্রদর্শনের ঘটনা নতুন কোন বিষয় নয়।  গ্রাম্য বিরুধের জের ধরে প্রতিনিয়তই বের করা হয় আগ্নেয়াস্ত্র।  ১৯নভেম্বর পালপুর জামে মসজিদে মাগরিবের নামাজ চলাকালে একই গ্রামের টিএম আহসান মাহবুব, শাহ আলম, হোসেন ও লন্ডনী ফখরের বন্দুকের গুলিতে মিলন, সেবুল, শাহজাহান, এমাদসহ ৫জন গুলিবিদ্ধ হন। 

এব্যাপারে আবুল হোসেন বাদি হয়ে ছাতক থানায় মামলা (নং ১৯, তাং ২০.১১.২০১৬ইং) দায়ের করা হয়।  এরআগে জটি, পালপুর, কল্যাণপুর, বারগোপি, মঈনপুর, বসন্তপুরসহ বিভিন্ন গ্রামের অনেক লোক গুলিবিদ্ধ হয়ে পঙ্গুত্ব বরণ করেছেন।  ১০ডিসেম্বর মঈনপুর গ্রামের আফরোজ আলীর পুত্র মফিকুল বারি অস্ত্র হাতে নিয়ে গুলি ভর্তি করার দৃশ্য ধারণ করে নিজের ফেসবুক আইডিতে পোষ্ট করেন।  তাৎক্ষনিক আইডিতে কমেন্টের ঝড় উঠে।  একইভাবে পালপুর গ্রামের সুনু মিয়ার পুত্র রায়হান ৫ডিসেম্বরসহ বিভিন্ন সময়ে নিজস্ব আইডিতে আগ্নেয়াস্ত্রের ছবি পোষ্ট করে আসছে।  একইভাবে তার চাচা কাপ্তান মিয়ার পুত্র শাহ আলমের আইডিতে একাধিক অত্যাধূনিক অস্ত্রের ছবি পোষ্ট করলে ভাতিজা রায়হান সব সময় গুলি লোড রাখার জন্যে এটিতে মন্তব্য করে।  একটি গ্রাম্য বিরোধের জের ধরে তাদের প্রতিপক্ষকে এসব অস্ত্র প্রদর্শন করা হয়েছে বলে জানা গেছে। ’

দোলারবাজার পালপুর উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আবুল হোসেন জানান, বিগত ১৯ নভেস্বর প্রভাবশালী লন্ডনী পরিবারের উগ্রযুবকের গুলিতে পালপুর গ্রামের আবদুল লতিফ রকিব, এমাদ উদ্দিন, মিলন, খসরু ও সেবুল মিয়া সহ ৫ জন নিরীহ মানুষ গুলিবিদ্ধ হয়ে সিলেট এমএজি  ওসমানী হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন, তারা এখনো পুরোপুরি সুস্থ্য হয়নি। 

দোলারবাজার ইউপি চেয়ারম্যান শায়েস্তা মিয়া বুধবার  জানান, ছাতক থানা পুলিশকে এসব বিষয়ে আইনগ ব্যবস্থা নেয়ার জন্য বারবার বলা হলেও তারা রহস্যজনক কারণে এ বিষয়ে কোন ধরণের তৎপরতা দেখাতে আগ্রহী নয়। 

ছাতক পৌর শহরের তরুণ সমাজকর্মী মোফাস্সির হোসেন ময়না বলেন, এ ধরণের আগ্নেয়াস্ত্রের পোষ্ট তরুণ সমাজকে বিপগামী করার পাশাপাশী ভীতির মধ্যে ফেলে দিয়েছে। 

ছাতক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ওলিউর রহমান চৌধুরী বকুল বুধবার এ প্রতিবেদকের নিকট তার প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে বললেন, ছাতক এ জেলার শিল্পনগরী ও প্রবাসী অধ্যুষিত এলাকা হিসাবে দেশ বিদেশে অনেক সুনাম কুরিয়েছে, কিন্তু কিছু লোক টাকার গরমে নিজেদের এলাকায় আধিপত্য ও প্রভাশ বিস্তার করতে গিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ ধরণের আগ্নেয়াস্ত্রের প্রদশনীর্র মাধ্যমে রাষ্ট্রের প্রচলিত আইনের প্রতি বৃদ্ধাঙ্গলী প্রদর্শন করেছে বলে আমি মনে করি। 

 তিনি আরো বলেন, পুলিশ ও আইনৃংখলা বাহিনীর উচিত এসব ভীতিকর পোষ্ট যারা দিচ্ছেন তাদেরকে আইনের আওতায় নিয়ে এসে তাদের হেফাজতে থাকা আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স বাতিল করে দেয়া।    

এব্যাপারে ডিবির এসআই ও পালপুরের অস্ত্র প্রদর্শনী মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই দ্বীবাংশু জানান, আসামি শাহআলমকে রিমান্ডে এনেও তার কাছে মজুদকৃত অস্ত্রের সঠিক তথ্য প্রমাণ না পাওয়ায় কোন পদক্ষেপ নেয়া যায়নি। 

সম্পাদনায় - নিশি / এসএনএন২৪.কম


keya