৫:৫৬ এএম, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার | | ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪০


জুরাছড়িতে ছাত্র লীগের সাধারণ সম্পাদকের অব্যহতি

০৪ জুলাই ২০১৮, ০৬:৫৪ পিএম | সাদি


সুমন্ত চাকমা, জুরাছড়ি প্রতিনিধি : জুরাছড়ি উপজেলায় আওয়ামী লীগ অঙ্গসংগঠনের কার্যক্রম সংগঠিত হতে না হতেই  আবার উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকে অব্যহতি।  দলের সভাপতি ও সাংগঠনিক সংগঠক জ্ঞান মিত্র চাকমা দলের সাধারণ সম্পাদক ধন বিকাশ চাকমার অব্যহতিপত্র পাওয়ার নিশ্চিত করেছেন। 

আওয়ামী লীগ অঙ্গসংগঠনের কৃষক লীগ বিলুপ্ত ঘোষনাসহ ৩২২ জন কর্মীদের পদত্যাগের হিরিক চার মাস পর্যন্ত স্থগিত থাকার পর আবার ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ধন বিকাশ চাকমার অব্যহতিতে যোগ হয়ে দাড়াল ৩২৩ জন। 

এর আগে ২৪ ফেব্রুয়ারি সর্বশেষ রাঙামাটি জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা সদস্য বন বিহারী চাকমা ও দুই উদয়ী মান নেতা দলের সকল কার্যক্রম থেকে পদত্যাগ করেন।  তারা হচ্ছেন যুব লীগের সভাপতি সুমতি বিকাশ দেওয়ান ও সাংগঠনিক সম্পাদক শংকর চাকমা।  ছাত্র লীগের সাধারণ সম্পাদক ধন বিকাশ চাকমা পারিবারিক সমস্যা কারন হিসেবে পদত্যাগের উল্লেখে করেছেন তিনি। 

ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাংগঠনিক সংগঠক জ্ঞান মিত্র চাকমা জানান, পারিবারিক সমস্যা দেখিয়ে দলের সাধারণ সম্পাদক ধন বিকাশ চাকমা অব্যহতি দিয়েছেন।  তার অব্যহতিপত্র প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য জেলা কমিটির কাছে প্রেরণ করা হয়েছে। 

জুরাছড়ি নেতা-কর্মীদের পদত্যাগের বিষয়ে উদ্বেগ জানিয়ে জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মুছা মাতব্বরের স্বাক্ষরিত  এক বিবৃতিতে বলা হয়, জনসংহতি সমিতির (জেএসএস) সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা তাঁদের নেতা-কর্মীদের হত্যার ভয় দেখিয়ে পদত্যাগ করতে বাধ্য করছে।  তবে জনসংহতি সমিতি বিষয়টি অস্বীকার করেছেন।  আওয়ামী লীগ নেতা কর্মীরা পার্বত্য শান্তি চুক্তি পূনাঙ্গ বাস্তবায়িত না হওয়াই পদত্যাগের মূল কারণ বলে তাদের দাবী। 

উল্লেখ্য বিগত বছর ডিসেম্বর মাসে প্রথম সাপ্তাই আওয়ামী লীগের অন্যতম সাংগঠনিক সম্পাদক অরবিন্দু চাকমার হত্যা কান্ডের ৪দিন পরে উপজেলা নেতা-কর্মীদের পদত্যাগের হিরিক শুরু হয়।  প্রথম দফায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি কালাধন চাকমা, যুগ্ন সম্পাদক পব্বন বিকাশ চাকমা, সহ-সভাপতি অনিল কুমার চাকমা, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক দীপংকর কার্ব্বারী, যুব লীগের অর্থ সম্পাদক উত্তম কুমার চাকমা, মহিলা লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক টুনি চাকমা, জুরাছড়ি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হৃদয় রঞ্জন চাকমা, কৃষক লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক সনদ কুমার চাকমা, কার্যকরী কমিটির সদস্য ফুলেশ্বর চাকমা, ছাত্র লীগের যুগ্ন সম্পাদক রপ্তদীপ চাকমা (রকি)সহ নব্য যোগদানকৃত সাবেক দুমদুম্যা ইউপি চেয়ারম্যান রাজিয়া চাকমা, বনযোগীছড়া ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত ওয়ার্ড সদস্য কৃষ্ণা চাকমা পদত্যাগ করেন। 

এছাড়া পরবর্তীতে দলে নীতিনির্ধারক গুরুত্বপূর্ণ  রাঙামাটি জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা সদস্য কালা চান চাকমা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রমোদ কান্তি চাকমা, সাংগঠনিক সম্পাদক লাল বিহারী চাকমা পদত্যাগ করেন।  তারা সবাই ব্যাক্তিগত ও পারিবারিক সমস্যা কারন হিসেবে পদত্যাগের উল্লেখে করেছে। 

এদিকে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অরবিন্দু চাকমার হত্যা কান্ডের এসআই মোঃমাইন উদ্দিন বাদী হয়ে ৯ জন নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ১৫-২০জন দেখিয়ে মামলা করা হয়।  মামলায় ১৪৩, ১৪৮, ৩২৪, ৩২৬, ৩০৭, ৩০২, ৩৪ ধারা উল্লেখ করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন থানা অফিসার ইনর্চাজ মোঃআব্দুল বাছেদ।  মামলার সু²ভাবে তদন্ত চলছে বলে থানা অফিসার ইনর্চাজ মোঃআব্দুল বাছেদ জানান।