২:৪৪ এএম, ১৭ নভেম্বর ২০১৮, শনিবার | | ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪০




কোটা আন্দোলনকারীদের উপর ছাত্রলীগের হামলা : রাবি শিক্ষকদের উদ্বেগ

০৫ জুলাই ২০১৮, ০৭:৫৯ পিএম | নকিব


মেশকাত মিশু, রাবি প্রতিনিধি : সারাদেশে চলমান কোটা সংস্কার আন্দোলনে বারবার ছাত্রলীগের হামলা, পুলিশি হেনস্তা ও হুমকি-ধামকিতে গভীর উদ্বেগ ও শংকা প্রকাশ করেছেন রাবির নিপীড়ন বিরোধী শিক্ষকরা। 

এ সময় তারা বলেন, নিজেদের স্বার্থসংশ্লিষ্ট দাবিদাওয়া নিয়ে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করতেই পারে, এটা তাদের গণতান্ত্রিক অধিকার।  বৃহস্পতিবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের গণ যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ১২৩ নং কক্ষে এক সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে এ উদ্বেগের কথা জানান তারা। 

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সভাপতি আ আল মামুন।  নিপীড়নের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়া এ সাংবাদিক সম্মেলনে অংশ নিতে ১০ জন শিক্ষক উপস্থিত ছিলেন। 

নিপীড়নের বিরূদ্ধে অবস্থানে একাত্মতা ঘোষণা কারী ১৪ জন শিক্ষকরা হলেন,  গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক সেলিম রেজা নিউটন, ড. মাহাবুবুর রহমান, আব্দুল্লাহ বাকী, কাজী মামুন হায়দার, শাতিল সিরাজ, ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক আব্দুল্লাহ আল মামুন, ফোকলোর বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আমিরুল ইসলাম, সুস্মিতা চক্রবর্তী, নৃবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক বখতিয়ার আহমেদ, নাট্যকলা বিভাগের অধ্যাপক কাজী শুসমিন আফসানা, ড. হাবিব জাকারিয়া, বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. সৌভিক রেজা এবং ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক সৈয়দ মুহাম্মদ আলী রেজা। 

এতে গত মার্চ মাস থেকে চলমান এই আন্দোলনে জনসমর্থিত, অহিংস ও শান্তিপূর্ণ  হিসেবে উল্লেখ করে তারা বলেন এটা তাদের গণতান্ত্রিক অধিকার।  এতে আন্দোলনে  অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের নানাভাবে পুলিশি হেনস্তা ও হুমকি-ধামকি ও গত কয়েক দিনে ঢাকা সহ দেশব্যপী ছাত্রলীগের সশস্ত্র হামলায় উদ্বেগ প্রকাশ করেনন তারা। 

এ ধরনের পরিস্থিতি শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের স্বাধীনভাবে মত প্রকাশ,আত্নমর্যাদা এবং জীবনের নিরাপত্তা সংকুচিত করেছে বলে মনে করেন তারা।  এবং শিক্ষার্থীদের উপর পুলিশ ও ছাত্রলীগের এই আগ্রাসী আচরণ  মুক্ত জ্ঞানচর্চাকে ভয়ানকভাবে বাধাগ্রস্ত করবে বলে উল্লেখ করেন তারা। 

সংবাদ সম্মেলনে হামলাকারীদের বিরুদ্বে বিশ্ববিদ্যালয় এবং পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন ধরনের পদক্ষেপ না নিয়ে উল্টো নীরবতা পালনের ফলে হামলাকারীদের উৎসাহিত করা হচ্ছে বলে জানান তারা। 

এ সময় তারা হামলাকারীদের সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানান।  একই সাথে আহতদের সুচিকিৎসা ও গ্রেপ্তারকৃত দের আইনি সহায়তা দেয়ার দাবি জানান তারা। 



keya