৯:৪০ এএম, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার | | ৯ মুহররম ১৪৪০


রাজবাড়ীতে পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রীকে কু-প্রস্তাব দেয়ায় প্রধান শিক্ষক অবরুদ্ধ

১১ জুলাই ২০১৮, ০৩:৫৮ পিএম | জাহিদ


এম.মনিরুজ্জামান, রাজবাড়ী  প্রতিনিধি : রাজবাড়ীর পিটিআই-এর পরিক্ষণ বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও  জেলা শিক্ষক সমিতির সভাপতি চিরকুমার হাবিবুর রহমান মোল্লা হাবিব কর্তৃক পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রীকে যৌনহারানীর করার ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই রাজবাড়ী সদর উপজেলার বার্থা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অসিম কুমার নাগের বিরুদ্ধে পঞ্চম শ্রেনীর আরেক ছাত্রীকে কু-প্রস্তাব দেবার অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

ওই অভিযোগের প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত এলাকার বাসিন্দারা ওই প্রধান শিক্ষককে বিদ্যালয়ের নিজ কক্ষের মধ্যে অবরুদ্ধ করে রাখে।  পরে সদর উপজেলার ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা অফিসার কর্তৃক আগামী দশ দিনের মধ্যে ওই শিক্ষককে প্রত্যাহারের ঘোষনা দেয়ায় জনগণের রোষানল থেকে মুক্তিপায় ওই শিক্ষক। 

সদর উপজেলার বাণিবহ ইউনিয়নের বার্থা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মাহাতাব হোসেন খান জানান, এক সপ্তাহ আগে দুই সন্তানের জনক ও রাজবাড়ী জেলা শহরের পাবলিক হেলথ্ এলাকার বাসিন্দা এই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অসিম কুমার নাগ (৪৫) পঞ্চম শ্রেণীতে পড়ুয়া এক ছাত্রীকে কু-প্রস্তাব প্রদান করে। 

ওই বিষয়টি মেয়েটি তার মাকে বলে এবং তার মা তা অন্যান্য শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের জানান।  এর পরই  মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অভিভাবক ও স্থানীয় বাসিন্দারা সম্মিলত ভাবে বিদ্যালয় চত্বরে প্রবেশ করে।  তারা ওই শিক্ষককে তার অফিস রুমের মধ্যে অবরুদ্ধ করে।  সেই সাথে তারা ওই শিক্ষককে মারপিট করার চেষ্টায়ও লিপ্ত হয়। 

ফলে তিনি বিষয়টি সদর উপজেলা প্রথমিক শিক্ষক অফিসের কর্মকর্তাদের অবহিত করেন।  শিক্ষা কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পৌছে আগামী দশ দিনের মধ্যে প্রধান শিক্ষক অসিম কুমার নাগকে এ বিদ্যালয় থেকে প্রত্যাহারের ঘোষনা প্রদান করলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।  তিনি আরো বলেন, প্রধান শিক্ষক অসিম কুমার নাগের চারিত্রক বৈশিষ্ঠ ভাল নয়। 

ইতোপূর্বে যত গুলো বিদ্যালয়ে তিনি চাকুরী করেছেন, সে সব বিদ্যালয়ে তিনি ছাত্রীদের যৌনহয়রানিসহ নানা রকম অঘটন ঘটিয়েছেন।  ফলে তাকে ওই সব বিদ্যালয় থেকেও প্রত্যাহার করা হয়েছে। 

এ বিষয়ে জানতে প্রধান শিক্ষক অসিম কুমার নাগের মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলোও ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। 

সদর উপজেলার ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা অফিসার নৃপেন্দ্রনাথ সরকার জানান, ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অসিম কুমার নাগ পঞ্চম শ্রেণীতে পড়ুয়া এক ছাত্রীকে কু-প্রস্তার দেয়ায় জনতা বিক্ষুব্দ হয়ে উঠেছিলো।  তিনি ও ক্লাস্টারের দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তা আব্দুল কাদেরকে সাথে নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন এবং আগামী দশ দিনের মধ্যে ওই শিক্ষককে প্রত্যাহার করার ঘোষনা দেন। 

তিনি আরো বলেন, রাজবাড়ী জেলা শিক্ষক সমিতির সভাপতি চিরকুমার হাবিবুর রহমান মোল্লা হাবিব বর্তমানে ছুটির আবেদন দিয়ে আত্মগোপনে রয়েছে।