১২:৪২ এএম, ১৭ অক্টোবর ২০১৮, বুধবার | | ৬ সফর ১৪৪০


গুরুদাসপুরে বিদ্যুৎ সংযোগের নামে চাঁদাবাজির অভিযোগ

০৭ আগস্ট ২০১৮, ০৪:৪০ পিএম | জাহিদ


মো.আখলাকুজ্জামান, গুরুদাসপুর প্রতিনিধি : নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার নাজিরপুর ইউনিয়নের চন্দ্রপুর তুলাধনা গ্রামের ইলেক্ট্রিশিয়ান শফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে বিদ্যুৎ সংযোগ পাইয়ে দেয়ার নামে চাঁদাবাজির অভিযোগ উঠেছে।  ওই গ্রামের সাতজন ভুক্তভোগী গ্রাহক গত সোমবার এই মর্মে নাটোর পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি-২ ও গুরুদাসপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। 

ভুক্তভোগীদের পক্ষে মামুনুর রশিদ ও তোফাজ্জল হোসেন অভিযোগ করেন, শফিকুল ইসলাম নাটোর পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি-২ এর গুরুদাসপুর জোনাল অফিসের আওতায় নিয়োজিত একজন ইলেক্ট্রিশিয়ান।  অভিযোগকারিরা দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যুৎ সংযোগ না পাওয়ায় সুযোগ বুঝে ইলেক্ট্রিশিয়ান শফিকুল ইসলাম তাদের বিদ্যুৎ সংযোগ পাইয়ে দেয়ার কথা বলে ১৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়।  টাকা দেয়ার ৬ মাস অতিবাহিত হলেও ভুক্তভোগীরা বিদ্যুৎ সংযোগ পায়নি। 

ইলেক্ট্রিশিয়ান শফিকুল ইসলাম ভুক্তভোগীদের অনুকূলে বিদ্যুতের খুটি বসিয়ে দেয়ার অজুহাতে দুই দফায় পুনরায় আরও ২৩ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে।  ভুক্তভোগীরা তার দাবিকৃত ২৩ হাজার টাকা দিতে অস্বীকার করে এবং আগের দেয়া ১৫ হাজার টাকা তার কাছে ফেরত চাইলে সে নানা প্রকার প্রতারণার আশ্রয় নেয়।  এতে করে ন্যায় বিচার ও প্রতিকার চেয়ে নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ ও গুরুদাসপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দেন ভুক্তভোগীরা। 

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত শফিকুল ইসলাম বলেন, বিদ্যুৎ অফিসের খরচ বাবদ অল্পকিছু টাকা নেয়া হয়েছে তাদের কাছ থেকে।  নানা জটিলতার কারণে বিদ্যুৎ সংযোগ পাইয়ে দিতে বিলম্ব হচ্ছে। 

নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর মহাব্যবস্থাপক নিতাই কুমার সরকার অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, অভিযুক্ত শফিকুল ইসলাম সমিতির নিবন্ধিত ইলেক্ট্রিশিয়ান নয়।  অথচ বিদ্যুৎ পাইয়ে দেয়ার নাম করে গ্রাহকদের সাথে প্রতারণা করে চলেছেন তিনি।  অভিযুক্ত শফিকুলের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন পল্লীবিদ্যুতের মহাব্যবস্থাপক। 

থানার ওসি মো. সেলিম রেজা বলেন, ঘটনাটি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 


keya