১:২০ এএম, ১৭ অক্টোবর ২০১৮, বুধবার | | ৬ সফর ১৪৪০


বড়াইগ্রামে অভিযোগকারী বলছেন ধর্ষণ, বাবা মা বলছে মেয়ের চরিত্রদোষ অাছে!

০৯ আগস্ট ২০১৮, ০১:২০ পিএম | জাহিদ


সাকলাইন শুভ, বড়াইগ্রাম (নাটোর) প্রতিনিধি : নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার চান্দাই ইউনিয়নের ভান্ডারদহ গ্রামে ছোটবোনের স্বামী কর্তৃক দেড় বছর যাবৎ ধর্ষণের স্বীকার হয়েছেন এমন একটি ঘটনার অভিযোগ বড়াইগ্রাম থানায় দ্বায়ের কোরেছেন একজন মহিলা। 

অভিযোগে ওই গৃহবধূ দাবী করেছেন, অভিযুক্ত শফি দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন উপায়ে কু-প্রস্তাব দিতো।  প্রথমদিকে বাধা দিলে শফি আরো বেপরোয়া হয়ে উঠে এবং বিভিন্ন উপায়ে হুমকি দিতে থাকে।  তার তৃতীয় শ্রেণীতে পড়ুয়া ছাত্রের ক্ষতি করার হুমকি দেয়।  এতোকিছুর পরও ছোট বোনজামাই হওয়ায় মানসম্মানের ভয়ে কিছু বলেননি তিনি।  এরই ধারাবাহিকতায় গত দেড় বছর আগে স্বামী বাড়ি না থাকার সুযোগে অভিযুক্ত শফি বেড়া কেটে তার ঘরে অস্ত্রসহ প্রবেশ করে এবং ছেলে ও তার গলায় ছুরি ধরে জোরপূর্বক শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনে বাধ্য করায়। 

ওই গৃহবধূ বলেন, ‘সন্তনসহ মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে আমাকে দিনের পর দিন ব্যবহার করেছে শফি।  আমি সম্মানের ভয়ে সহ্য করে গেছি।  বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রতারণা করা হয়েছে আমার সাথে।  এখন সকলেই আমার দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে।  আমি বিচার চাই। ’

এদিকে অভিযোগকারী ঐ মহিলার জন্মদাতা বাবা ও মা সাংবাদিক ও বড়াইগ্রাম থানার ডিউটি অফিসার কে জানায়, অামার এই বড়মেয়ের চরিত্রদোষ অাছে এর অাগেও দুই যায়গায় বিয়ে দিয়েছিলাম, সে সংসার করে নাই।  অামাদের মান সম্মান শেষ করে দিয়েছে।  সর্বশেষ উপজেলার রাজাপুর কাচারীপাড়া এলাকায় বিয়ে দিয়েছিলাম, অামার মেয়ের চরিত্রগত সমস্যার কারনে ৮বছরের এক ছেলেসহ অামার মেয়েকে রেখে জামাই দুই বছর অাগে ছেরে চলে গেছে। 

বড় মেয়ে অামার ছোট মেয়ের সংসার ভাঙ্গার জন্য মুন্নেস এর ছেলে অামাদের ছোট জামাই শফি (৩৮) এর নামে থানায় যে অভিযোগ কোরছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা।  অামার মেয়ের মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করার কারনে তাকে অাপনারা জেলে দেন, নাতিকে অামরা মানুষ কোরবো। 

শফির স্ত্রী অর্থাৎ অভিযোগকারী ধর্ষিতার বোন বলেন- অামার বোন টাকার জন্য মিথ্যা বলছে।  অামার স্বামীর চরিত্র খারাপ হলে অামি অন্ততপক্ষে জানতাম, অামার স্বামীকে টাকার জন্য ফাসানো হয়েছে।  অামার স্বামী নিরাপরাধ। 

শফির বাবা মুন্নেস এর সাথে কথা হলে তিনি জানান- অামি ও অামার দুই ছেলে অন্যের বাড়িতে ও মাঠে কাজ করে সংসার চালাই।  অতর্কিত ভাবে অামার ছেলে শফির উপর ধর্ষণের অভিযোগ এনে অামার বাড়িতে এই গ্রামের ২০-৩০ জন ছেলেপেলে সন্ত্রাসীর মতো এসে যা তা বলে গালাগাল করে হুমকি ধামকি দেয়।  তারা শালিস ডাকছে সেখানে অামি সহ অামার দুইছেলে যেতে হবে এবং তিন লক্ষটাকা জরিমানা দিতে হবে। 

অামরা গরীব মানুষ অন্যের বাড়িতে কাজ করে সংসার চালাই তাছারা অামার ছেলে নিরাপরাধ।  অামরা এতো টাকা কিভাবে দেবো? অার কেনই বা দেবো? ঐসব পোলাপানের কথা মতো টাকা দেইনাই তাই অামার ছেলের নামে থানায় মিথ্যা অভিযোগ করছে।  তিনি অারো বলেন শুনেছি থানার নতুন ওসি সাব খুব সৎ মানুষ, অামার বিশ্বাস অামরা অবস্যই এই মিথ্যা অভিযোগের হয়রানী থেকে রেহাই পাবো। 

বড়াইগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ দীলিপ কুমার দাস বলেন, ‘এ ঘটনায় অভিযোগ পাওয়ার পরপরই এসআই আহসান হাবীবকে তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।  তিনি প্রতিবেদন দিলে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। '


keya