৫:১৯ পিএম, ২২ নভেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার | | ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪০




নান্দাইলে শ্রী শ্রী লোকনাথ ব্রহ্মচারীর ২৮৮তম জন্মবার্ষিকী পালিত

০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৪:৩৫ পিএম | জাহিদ


মো.শাহজাহান ফকির, নান্দাইল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি : ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলায় যথাযোগ্য মর্যদায় মহাযোগী শ্রী শ্রী লোকনাথ ভক্তবৃন্দের আয়োজনে শ্রী শ্রী লোকনাথ ব্রহ্মচারীর ২৮৮তম জন্মবার্ষিকী পালিত হয়। 

এ উপলক্ষ্যে মঙ্গলবার সকালে নান্দাইল পৌরসদরের শ্রী কার্তিক কর্মকারের বাড়ি ও ব্রাহ্মনপাড়ার শ্রী শ্রী লোকনাথ সেবাশ্রমে গীতাপাঠ ও মঙ্গলপ্রদীব উজ্জলনের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়।  শ্রী কার্তিক কর্মকারের বাড়ির অনুষ্ঠানে নান্দাইল পৌর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কনক ভূইয়া, মানবাধিকার কর্মী শাহজাহান ফকির, ভক্ত কার্তিক কর্মকার, গৌরী রাণী, কবিতা, মুক্তা, অহনা ও লিমন চন্দ্র কর্মকার সহ শ্রী লোকনাথ ব্রহ্মচারীর ভক্তবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। 

পরে পরে শ্রী শ্রী লোকনাথ ব্রহ্মচারীর জীবন কাহিনীর উপর বিশদ আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।  আলোচনা শেষে শ্রী শ্রী লোকনাথের শুভ আবির্ভাব দিবসে সকল ভক্তবৃন্দকে প্রীতি, শুভেচ্ছা ও অনেক অভিনন্দন জানিয়ে প্রসাদ বিতরণের মাধ্যমে ১ম অধিবেশনের সমাপ্তি ঘটে।  পরে রাত্রের দ্বিতীয় অধিবেশন লোকনাথ বাবার স্মরনে স্মৃতিচারণ ও ভক্তিমূলক গান পরিবেশন অনুষ্ঠিত হবে। 

উল্লেখ্য, কঠিন ও কঠোর যোগ সাধনার চরম ও পরম উত্কর্ষতায় যোগী হয়ে উঠেন ত্রিকালদর্শী এই মহাযোগী পুরুষ শ্রী শ্রী লোকনাথ ব্রহ্মচারী।  তিনি ১১৩৭ বঙ্গাব্দ বা ইংরেজি ১৭৩০ খ্রিস্টাব্দে তত্কালীন যশোহর জেলা আর বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গের ২৪ পরগনা জেলার বারাসাত মহকুমার চৌরশী চাকলা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।  তাঁর বাবার নাম রামনারায়ণ ও মায়ের নাম কমলা দেবী।  বাবা ছিলেন ধার্মিক ব্রাহ্মণ। 

কারণ দীর্ঘ জীবন ধরে তিনি সংযম সাধনার পরম স্তরে উত্তীর্ণ হয়েছেন।  তাঁর আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বাণী হলো ‘আমার চরণ ধরিস না, আচরণ ধর”।  অর্থাৎ বাবার আচরণ অনুসরণ করলে যে কোনো মানুষ প্রকৃত মানুষ হয়ে উঠবে, সে নিজেকে চিনতে পারবে, পরিবার-পরিজন, পরিবেশ,  দেশ-জাতি,  দায়িত্ব-কর্তব্য ইত্যাদি বিষয়ে সম্যক জ্ঞান লাভ করবে যার অমোঘ পরিণতি হবে ঈশ্বর প্রাপ্তি। 



keya