১:০৬ পিএম, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, শুক্রবার | | ১৬ জমাদিউস সানি ১৪৪০




সেগুনটিলা থেকে পাহাড় কাটা অব্যাহত

১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৮:২৭ এএম | জাহিদ


মিজানুর রহমান সোহেল, হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : নবীগঞ্জ উপজেলা ও বাহুবল উপজেলার সীমান্তবর্তী পুটিজুরি ইউনিয়নের কল্যাণপুর গ্রামের সেগুনটিলা থেকে প্রকাশ্যে চলছে পাহাড় কাটা। 

পাহাড়ে মাটি বিক্রি করা হচ্ছে বসুন্ধরা গ্রুপের কাছে।  মহাসড়ক নিকটবর্তী কল্যানপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আশপাশ এলাকায় পাহাড় থেকে মাটি কেটে এনে যেখানে সেখানে মজুদ করা হচ্ছে।  দেখেও না দেখার ভান করছে প্রশাসন এমন অভিযোগ স্থানীয়দের। 

সরেজমিনে রবিবার বিকেলে,ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের নবীগঞ্জ উপজেলার দেবপাড়া ইউনিয়নের গোপলার বাজার নিকটবর্তী বসুন্ধরা গ্রুপের জায়গায় মাটি ভরাটের কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে পাহাড় কাটার মাটি।  একাধিক ট্রাক দিয়ে পাহাড় থেকে মাটি এনে ভরাট করে আসছে কোম্পানিটি।  মাটি আনার একটি ট্রাকের পিঁছু নিয়ে পুটিজুরি ইউনিয়নের কল্যাণপুর গ্রামের সেগুনটিলায় পৌঁছে পাহাড় থেকে মাটি কাটার দৃশ্য ক্যামেরায় ধারণ করেন প্রতিবেদক। 


এসময় মাটি কাটায় ব্যবহারকৃত এক্সেলেটারের চালক প্রতিবেদককে ছবি তোলতে নিষেধ করেন তখন তার সঙ্গে বাকবিতন্ডা হয় একপর্যায়ে তিনি বলেন এটা মুদ্দত চেয়ারম্যানের কাজ পত্রিকায় লিখলে কিছুই হবেনা।  এদিকে মাটির কাটার বিষয়ে প্রশাসনের বরাবরে ভূমিকা নিয়ে কঠোর সমালোচনা করেছেন সচেতনমহল। 

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) হবিগঞ্জ শাখার সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল সোহেল বলেন, কয়েক বছর ধরেই বাহুবল, নবীগঞ্জসহ হবিগঞ্জের বিভিন্ন অঞ্চলে পাহাড় কেটে নিচ্ছে পাহাড় খেকোরা, পাহাড় কাটা বন্ধে হাইকোর্টের নির্দেশ থাকা সত্বেও বরাবরই প্রশাসন কোনো জুড়ালো ভূমিকা নেয়নি। 

এ ব্যাপারে কার্যকরী প্রদক্ষেপ গ্রহণ করে যারা পরিবেশ নষ্ট করছে তাদের আইনের আওতায় নিয়ে আসার জন্য প্রশাসনের প্রতি আহবান জানান তিনি। 

এ ব্যাপরে বাহুবল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ জসিম উদ্দিনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন এব্যাপাওে খোঁজখবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

এ প্রসঙ্গে জানতে মুদ্দত আলীর সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তাঁর ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।