৫:০১ পিএম, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, শনিবার | | ১৭ জমাদিউস সানি ১৪৪০




অনিয়মের অভিযোগে রানীনগর মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ সাময়িক বরখাস্ত

১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১:১৯ এএম | জাহিদ


আব্দুল মান্নান, নওগাঁ প্রতিনিধি : নওগাঁর রানীনগর মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ মো: মিরাজুল ইসলামকে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে কারণ দর্শানোর নোটিশ ও সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। 

ওই অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে ১১টি সুনির্দিষ্ট ও গুরুতর অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত ৬ সেপ্টেম্বর কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতি মো: ইসরাফিল আলম এমপি এ পদক্ষেপ গ্রহণ করেন। 

এছাড়াও আগামী ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে অধ্যক্ষকে নোটিশের জবাব দেয়ার জন্য নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে। 

জানা গেছে, কলেজ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি বরাবর লিখিত ভাবে নানা অনিয়ম-দূর্নীতি, অপব্যবহার, অর্থ আত্মসাৎ ও অসদাচরনসহ ১১টি সুনির্দিষ্ট ও গুরুতর অভিযোগ করেন কলেজের ২৭জন শিক্ষক-শিক্ষিকা। 

অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত ৬ সেপ্টেম্বর কলেজের অধ্যক্ষ মো: মিরাজুল ইসলামকে কারণ দর্শানোর নোটিশ ও সাময়িক বরখাস্ত করেন কলেজ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি ইসরাফিল আলম এমপি।  রোববার দুপুরে ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্যরা কলেজের নোটিশ বোর্ডে একটি নোটিশ টাঙ্গিয়ে দেয়। 

এছাড়া তিনি বরখাস্ত থাকাকালীন কলেজের উপাধ্যক্ষ শ্রী চন্দন কুমার মহন্ত কলেজের অতিরিক্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দেয়া হয়। 

কলেজের অধ্যক্ষ মো: মিরাজুল ইসলাম নোটিশ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ব্যবস্থাপনা কমিটি কোন নিয়ম না মেনেই আমাকে আমার দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেয়ার জন্য গভীর ষড়যন্ত্র করেছে।  আমার বিরুদ্ধে যে সব অভিযোগ আনা হয়েছে তার সবগুলো মিথ্যে ও বানোয়াট।  আমি এই বিষয়ে কিছুই জানি না।  উপাধ্যক্ষ আমাকে সরিয়ে দিয়ে আমার পদে বসার জন্য এই পায়তারা করেছে। 

কলেজের উপাধ্যক্ষ শ্রী চন্দন কুমার মহন্ত বলেন, কলেজের অন্যান্য শিক্ষকদের করা অভিযোগের ভিত্তিতে ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য ও সভাপতি যেটা ভালো মনে করে তাই করেছে।  এখানে আমার কোন কিছু করার নেই।  অধ্যক্ষের করা অভিযোগ সম্পন্ন মিথ্যে।  বরং আমার কাঁধে যে অতিরিক্ত দায়িত্ব এসে পড়লো, এটাই এখন আমার কাছে অনেক বড় ঝামেলা। 

রানীনগর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল জলিল বলেন, বিষয়টি শুনেছি।  কিন্তু এখনো আমাকে অফিসিয়াল ভাবে কোন নোটিশের কপি কিংবা কোন লিখিত পত্রাদি দেওয়া হয় নাই। 


keya