২:২৪ পিএম, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার | | ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪০




চবিতে মুক্তিযুদ্ধের ফিগারেটিভ ভাস্কর্য ‘জয় বাংলা’, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় উদ্বোধন

২৫ অক্টোবর ২০১৮, ০৬:২৬ পিএম | জাহিদ


এসএনএন২৪.কম : বাংলাদেশের ইতিহাসে শ্রেষ্ঠ অর্জন মহান স্বাধীনতা।  স্বাধীনতা অর্জনের পথে দীর্ঘ সংগ্রাম-আন্দোলন সর্বোপরি মহান মুক্তিযুুদ্ধের ইতিহাসকে চির অম্লান, চির জাগরুক, চির ভাস্বর করে রাখার প্রয়াসে এবং মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস প্রজন্মের সন্তানসহ সকলের মাঝে ছড়িয়ে দিতে প্রথমবারের মতো চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বরে নির্মিত হয়েছে মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত ফিগারেটিভ ভাস্কর্য ‘জয় বাংলা’, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়। 

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরীর একান্ত আগ্রহ ও ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় এ ভাস্কর্য নির্মিত হয়েছে এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের যথাযথ পর্ষদের অনুমোদনক্রমে এ ভাস্কর্যের নামকরণ করা হয়েছে মহান মুক্তিযুদ্ধের কালজয়ী শ্লোগান ‘জয় বাংলা’, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়। 

উপাচার্য ২৫ অক্টোবর ২০১৮ তারিখ বিকেল ৩.৩০ টায় এ ‘জয় বাংলা’, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় উদ্বোধন করেন। 

উপাচার্য তাঁর ভাষণে মহাকালের মহানায়ক স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ত্রিশ লক্ষ বীর বাঙালি, শহীদ জাতীয় চারনেতা ও ‘৭৫ এ বর্বর হায়েনাদের হাতে শহীদ বঙ্গবন্ধু পরিবারের সদস্যবৃন্দকে বিনম্র চিত্তে গভীর শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন এবং মহান মুক্তিযুদ্ধে নির্যাতিত দু’লক্ষ জায়া-জননী-কন্যার প্রতি বিশেষ সম্মান প্রদর্শন করেন। 

তিনি বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধ আমাদের গৌরবের ঠিকানা।  বাঙালির গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাসে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর বলিষ্ট নেতৃত্বে ‘৭১ এ মহান মুক্তিযুদ্ধে বীর বাঙালির অসীম ত্যাগের মহিমা প্রজন্মের সন্তানদের কাছে চির অন করে রাখার প্রত্যয় নিয়ে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে এ ভাস্কর্য স্থাপন করা হয়েছে। 

তিনি বলেন, আমাদের সকলকে ইতিহাসের এ সত্যতা হৃদয় দিয়ে অনুধাবন করতে হবে ‘জয় বাংলা’ শুধুমাত্র একটি শ্লোগান নয়।  অন্যায়-অবিচার-জুলুম-নির্যাতনকে পদদলিত করে বীর বাঙালির মুক্তি ও স্বাধীনতা অর্জনের একটি সাহসী উচ্চারণ ‘জয় বাংলা’ ‘জয় বঙ্গবন্ধু’। 

তিনি আরও বলেন, বিগত তিনবছরে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধু পরিবারের শহীদ সদস্যদের চির অম্লান করে রাখার প্রয়াসে বিভিন্ন স্থাপনা সৃষ্টি করা হয়েছে।  আজ এ ফিগারেটিভ ভাস্কর্য চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বাঙালির স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় প্রজন্মের সন্তানদের স্বদেশপ্রেমে সাহস ও শক্তি যোগাবে। 

উপাচার্য এ ভাস্কর্য নির্মাণে আর্থিক সহায়তা প্রদানকারী মহানুভব দেশপ্রেমিক ব্যক্তিত্ব, ভাস্কর্যের ডিজাইন প্রনয়ণকারী ভাস্কর এবং এ নির্মাণ কাজের গঠিত কমিটির সদস্যবৃন্দ এবং সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গকে বিশেষ ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। 

উপাচার্যের নেতৃত্বে সমস্বরে উপস্থিত সকলেই মুক্তিযুদ্ধের প্রথম এবং প্রধান শ্লোগান ‘জয় বাংলা’-‘জয় বঙ্গবন্ধু’ শ্লোগানে উক্ত চত্বর মুখরিত করে তোলে এবং এরপর উপাচার্য ভাস্কর্য উদ্বোধন করেন। 

অনুষ্ঠানে চবি অনুষদসমূহের ডিন, রেজিস্ট্রার, প্রভোস্টবৃন্দ, বিভাগীয় সভাপতি, ইনস্টিটিউট ও গবেষণা কেন্দ্রের পরিচালকবৃন্দ, প্রক্টর ও সহকারী প্রক্টরবৃন্দ, অফিস প্রধানবৃন্দ, শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ, সাংবাদিকবৃন্দ এবং বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।  চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসে প্রথম মুক্তিযুদ্ধের ফিগারেটিভ ভাস্কর্য স্থাপনের জন্য শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে মাননীয় উপাচার্যকে ফুলেল শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করে অভিনন্দন জানানো হয়। 



keya