১০:৩১ পিএম, ১৮ নভেম্বর ২০১৮, রোববার | | ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪০




আজ হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সার্বজনীন শ্যামা পূজা

০৬ নভেম্বর ২০১৮, ১২:৩৬ পিএম | জাহিদ


এসএনএন২৪.কম : বাঙালি হিন্দুধর্মাবলম্বীদের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব শ্রী শ্রী সার্বজনীন শ্যামা পূজা (কালী পূজা) মঙ্গলবার।  শক্তি ও শান্তির দেবী শ্যামা মায়ের আগমনে হিন্দু সম্প্রদায়ের ঘরে ঘরে এখন আনন্দ-উচ্ছ্বাস। 

বিশুদ্ধ পঞ্জিকামতে, মঙ্গলবার দিনভর উপবাসের পর রাতে অনুষ্ঠিত হবে শ্যামা মায়ের পূজা।  বুধবার সন্ধ্যায় দীপাবলি ও মঙ্গল শিখা প্রজ্জ্বলন করে হিন্দু গৃহগুলো আলোকিত করে রাখা হবে। 

ধর্মীয় বিশ্বাস মতে, শ্যামা দেবী হলো শান্তি, সংহতি ও সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠায় সংগ্রামের প্রতীক।  দুষ্টের দমন আর শিষ্টের লালনের মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী ভক্তের জীবনে অবারিত কল্যাণের অঙ্গীকার নিয়ে ধরাপৃষ্ঠে আগমন ঘটে দেবী শ্যামার।  আজ জননীরূপে বাঙালীর জীবনে আবির্ভাব ঘটবে মহাশক্তি ত্রিনয়নী মা শ্যামার। 

রাজধানীর পূজা মণ্ডপগুলোতে শ্যামা পূজার আনন্দ-উৎসব চলবে টানা তিন-চারদিন ব্যাপী।  বুধবার দীপাবলী, বৃহস্পতিবার অন্নকূট, শুক্রবার ভাতৃ দ্বিতীয়া ও প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হবে এ উৎসব।  শবিবারও পুরান ঢাকার কয়েকটি মণ্ডপের প্রতিমা বিসর্জন অনুষ্ঠিত হবে। 

দীপাবলী ও পূজার পাশাপাশি বুধবার স্বর্গীয় মাতা-পিতা, আত্মীয় স্বজনের নামেও ঘরে ঘরে প্রদীপ প্রজ্বলন করবে হিন্দু সম্প্রদায়।  রাতে শ্মশানে গিয়ে মোমবাতি-আগরবাতি জ্বালিয়ে স্বর্গীয় বাবা-মা ও আত্মীয় স্বজনদের আত্মার শান্তি কামনা করে প্রার্থনা করবেন অনেকেই। 

এদিকে শ্যামাপূজা উপলক্ষে সরকারের পক্ষ থেকে নেয়া হয়েছে কঠোর নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা।  ঢাকার অধিকাংশ পূজামণ্ডপে আনা হয়েছে নানা বৈচিত্র্য।  বর্ণাঢ্য সাজে সাজানো হয়েছে পূজামণ্ডপগুলো।  পোস্তগোলা জাতীয় মহাশ্মশানে ২০টির মতো কালীপূজা অনুষ্ঠিত হবে। 

এছাড়া ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির, তাঁতীবাজার, শাঁখারীবাজার, লক্ষ্মীবাজার, পাঁচশ’ বছরের ঐতিহ্যবাহী বনগ্রাম রাধা গোবিন্দ জিও মন্দির, জয়কালী মন্দির, রামসীতা মন্দির, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হল, রমনা কালী মন্দির, রাজারবাগের বরদেশ্বরী কালীমন্দিরসহ বিভিন্ন পূজামণ্ডপে নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। 

এসবের মধ্যে রয়েছে আলোকসজ্জা, ফানুস ওড়ানো, প্রদীপ প্রজ্বলন, ভক্তিমূলক গানের অনুষ্ঠান, আলোচনা সভা, আরতি, প্রসাদ বিতরণ প্রভৃতি। 



keya