৬:১০ পিএম, ১৯ আগস্ট ২০১৯, সোমবার | | ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০




শিক্ষার্থীদেরকে জ্ঞান-গবেষণায় সমৃদ্ধ হওয়ার আহবান চবি উপাচার্যের

০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৪:১৬ পিএম | জাহিদ


এসএনএন২৪.কম : ৬ জানুয়ারি ২০১৯ বেলা ১১ টায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ইতিহাস বিভাগের নবীন বরণ ও বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠান কলা ও মানববিদ্যা অনুষদের গ্যালারিতে অনুষ্ঠিত হয়।  প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে অনুষ্ঠানে ভাষণ দেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী।  অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন চবি কলা ও মানববিদ্যা অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মো. সেকান্দর চৌধুরী। 

উপাচার্য তাঁর ভাষণে নবীন শিক্ষার্থীদের বিশ্ববিদ্যালয় সবুজ ক্যাম্পাসে স্বাগত ও আন্তরিক শুভেচ্ছা জানান।  তিনি বলেন, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় জ্ঞান-গবেষণা ও ভৌত অবকাঠামো উন্নয়নে এখন দেশের শীর্ষ বিশ্ববিদ্যালয়। 

একটি কঠিন তীব্র প্রতিযোগিতাপূর্ণ পরীক্ষার মাধ্যমে নবীন শিক্ষার্থীরা নিজেদের দক্ষতার স্বাক্ষর রেখে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠালগ্নের অন্যতম একটি বিভাগ ইতিহাস বিভাগে ভর্তি হওয়ার সুযোগ লাভ করেছে।  এটি তাদের জন্য অত্যন্ত আনন্দের ও গৌরবের।  উপাচার্য নবীন শিক্ষার্থীদেরকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রদত্ত সুযোগ-সুবিধার পূর্ণ সদ্ব্যবহারের মাধ্যমে এ সুবর্ণ সুযোগ কাজে লাগানোর আহবান জানান। 

উপাচার্য শিক্ষার্থীদেরকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারণ করে একটি অসাম্প্রদায়িক-গণতান্ত্রিক, ক্ষুধা-দারিদ্রমুক্ত ও সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে বঙ্গবন্ধু তনয়া আধুনিক বাংলাদেশের রূপকার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন-অগ্রযাত্রায় সম্পৃক্ত হওয়ার আহবান জানান।  উপাচার্য বিদায়ীদের সফল কর্মময় জীবন প্রত্যাশা করেন।  

চবি ইতিহাস বিভাগের সভাপতি প্রফেসর বকুল চন্দ্র চাকমার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চবি ইতিহাস বিভাগের সুপারনিউম্যারারী প্রফেসর ড. ইমরান হোসেন।  এ ছাড়াও অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উক্ত বিভাগের সাবেক সভাপতি প্রফেসর ড. মোহাম্মদ মাহবুবুল হক, অনুষ্ঠান উদযাপন কমিটির আহবায়ক উক্ত বিভাগের প্রফেসর ড. নুরুল ইসলাম এবং সহযোগী অধ্যাপক ড. সালমা বিনতে শফিক। 

অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন উক্ত বিভাগের শিক্ষার্থী জাওয়াদ ও মারুফা।  নবীন ও বিদায়ী শিক্ষার্থীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন অনামিকা বৃষ্টি, সৌরভ, জাহেদুর রহমান, তাসলিমা খানম ও মারুফা।  অনুষ্ঠান শুরুতে বিভিন্ন ধর্মগ্রন্থ থেকে পাঠ করা হয়।  অনুষ্ঠানে উক্ত বিভাগের সম্মানিত শিক্ষকবৃন্দ এবং বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।  সবশেষে বিভাগের শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায় অনুষ্ঠিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।