৮:৩৫ পিএম, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮, সোমবার | | ৮ রবিউস সানি ১৪৪০




রাবিতে নির্মিত হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধ গবেষণা কেন্দ্র

৩০ নভেম্বর -০০০১, ১২:০০ এএম | মোহাম্মদ হেলাল


খুর্শিদ রাজীব, রাবি : মহান মুক্তিযুদ্ধ ও বাঙালি জাতির মুক্তি সংগ্রামের গৌরবময় ইতিহাস সংরক্ষণ এবং বৃহত্তর গবেষণার লক্ষ্যে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) নির্মিত হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধ গবেষণা কেন্দ্র।  বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের একটি কক্ষে এই গবেষণা কেন্দ্রটি নির্মাণ করার পরিকল্পনা করা হয়েছে। 

বিশ্ববিদ্যালয় গ্রন্থাগার সূত্রে জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি প্রকল্প, আইসিটি সেন্টার এবং এস্টেট শাখার অর্থায়নে গবেষণা কেন্দ্রটি নির্মিত হচ্ছে।  এতে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৫০ লাখ ৬৭ হাজার টাকা।  কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার ভবনের পত্রিকা কক্ষের অর্ধেক অংশে এই কেন্দ্রটি নির্মিত হচ্ছে।  এখানে থাকবে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক বই, পত্রিকা, লিফলেট, দলিলপত্রাদি, মুক্তিযোদ্ধাদের চিঠি, আলোকচিত্র, তথ্যচিত্র, চলচ্চিত্র সহ মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে গবেষণা সহায়ক প্রায় সব ধরণের প্রয়োজনীয় সামগ্রী। 

গবেষণা কেন্দ্রটি নির্মাণের লক্ষ্যে গত ১৮ ডিসেম্বরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি প্রকল্প এবং এস্টেট শাখার একটি যৌথ মিটিং অনুষ্ঠিত হয়।  পরে ২৭ ডিসেম্বরে উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহানকে সভাপতি এবং কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার প্রশাসক অধ্যাপক সফিকুন্নবী সামাদীকে সদস্য সচিব করে একটি ১১ সদস্যের কার্যনির্বাহী কমিটি গঠন করা হয়।  এ কমিটির সার্বিক তত্বাবধায়নে গবেষণা কেন্দ্রটি নির্মাণের কাজ চলছে। 

কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক সায়েন উদ্দিন আহমেদ, আইসিটি সেন্টারে সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপক খাদেমুল ইসলাম মোল্যা, রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ড. তারিকুল হাসান, হিসাব পরিচালক আশরাফÑউলÑহুদা, কৃষি প্রকল্পের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা প্রকৌশলী মো. এমরান আলী প্রমূখ। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৌশল বিভাগ সূত্রে জানা যায়, কেন্দ্রটির দুটি অংশের একটি হবে রিডিং সেকশন এবং অন্যটি অডিও ভিজ্যুয়াল সেকশন।  রিডিং সেকশনে থাকবে পঠনযোগ্য সামগ্রী।  অডিও ভিজ্যুয়াল সেকশনে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক চলচ্চিত্র, তথ্যচিত্র প্রদর্শনের জন্য থাকবে হাই রেজ্যলেশনের টিভি ও হোম থিয়েটার।  কেন্দ্রটির অবকাঠামো নির্মানে তত্বাবধায়নের দায়িত্বে আছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলিত পদার্থবিদ্যা ও প্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. সৈয়দ মোস্তাফিজুর রহমান, প্রকৌশল দপ্তরের সহকারী প্রকৌশলী খো. শাহরিয়ার রহমান এবং রুয়েটের স্থাপত্য বিভাগের দুজন শিক্ষার্থী । 

মুক্তিযুদ্ধ গবেষণা কেন্দ্রটি নির্মাণ প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের প্রশাসক অধ্যাপক ড. সফিকুন্নবী সামাদী বলেন, ২০১৩ সাল থেকে গবেষণা কেন্দ্রটি নির্মাণের পরিকল্পনা চলছিল।  কিন্তু প্রয়োজনীয় অর্থাভাবে এত দিন তা করা সম্ভব হয় নি।  অবশেষে মাননীয় উপাচার্যের প্রতক্ষ্য সহায়তায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন উপার্জন খাত থেকে অর্থ বরাদ্দ করে এটি নির্মাণ করা হচ্ছে। 

তিনি বলেন, আমাদের সকলের স্বপ্ন ছিল একটি পূর্ণাঙ্গ মুক্তিযুদ্ধ কর্ণার নির্মাণ করা।  সেই স্বপ্নের তাগিদে এবং আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে ব্যাপক পরিসরে গবেষণার লক্ষ্যে এটি নির্মাণ করা হচ্ছে।  মুক্তিযুদ্ধের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা, ব্যক্তি, তারিখ মাথায় রেখে গবেষণা কেন্দ্রটির নকশা প্রস্তুত করা হচ্ছে।  আগামী ২১ ফেব্রয়ারির আগেই এটি উদ্বোধন করা হবে।  আশা করি, এই কেন্দ্রটি থেকে গবেষক ও শিক্ষার্থীরা উপকৃত হবেন। 


পিডি



keya