১:৩১ এএম, ১৩ নভেম্বর ২০১৯, বুধবার | | ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১




‘প্রযুক্তি নির্ভর দক্ষ জনশক্তি উৎপাদনই বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল লক্ষ্য’

২৩ এপ্রিল ২০১৯, ০৩:২২ পিএম | জাহিদ


এসএনএন২৪.কম : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, বর্তমান প্রযুক্তি নির্ভর বিশ্ব ব্যবস্থায় টিকে থাকতে হলে দেশের অভ্যন্তরীন সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করে মানবতার কল্যাণে অতি প্রয়োজনীয় নব নব আবিস্কার এবং তা বিশ্ব দরবারে সঠিকভাবে উপস্থাপনের কোন বিকল্প নেই। 

আর এর জন্য প্রয়োজন দেশে বিজ্ঞানমনস্ক দক্ষ জনশক্তি।  ২৩ এপ্রিল চবি সমাজ বিজ্ঞান অনুষদ অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সাইন্টিফিক সোসাইটি’র উদ্যোগে প্রথম চট্টগ্রাম সায়েন্স কার্ণিভাল-২০১৯ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন।  অনুষ্ঠানে বিশেষ অতথির বক্তব্য রাখেন চবি উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার, ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. আইনুন নিশাদ, চবি জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আল-ফোরকান এবং উক্ত বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. লায়লা খালেদা। 

উপাচার্য তাঁর ভাষণে সমসাময়িক বিশ্ব প্রেক্ষাপটে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে এ ধরণের অনুষ্ঠান আয়োজন করায় আয়োজকবৃন্দকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও ধন্যবাদ জানান।  তিনি বলেন, একটি দেশের উন্নয়ন-অগ্রগতির মূল চালিকাশক্তি হল সৎ-দক্ষ-যোগ্য ও বিজ্ঞানমনস্ক তরুণ সমাজ। 

উপাচার্য বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য তনয়া আধুনিক বাংলাদেশের রূপকার মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্ব এবং সুদুর প্রসারী চিন্তাভাবনায় দেশের শিক্ষা ব্যবস্থায় শিক্ষার সাথে ক্রীড়া ও সংস্কৃতিকে সম্পৃক্ত করে ‘আধুনিক বিজ্ঞানমনস্ক গুণগত শিক্ষা’র যে দর্শন দেশবাসীকে উপহার দিয়েছেন তার সুফল আজ দেশবাসী পেতে শুরু করেছে।  দেশের প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আজ তৈরী হচ্ছে বিজ্ঞানমনস্ক, প্রযুক্তি নির্ভর, দক্ষ জনশক্তি। 

স্কুল পর্যায়ে ক্ষুদে বিজ্ঞানী থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর শিক্ষার্থীরা তৈরী করছে মানব কল্যাণে ব্যবহার উপযোগী বিভিন্ন ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র প্রজেক্ট যা বৃহত্তর পরিসরে বাস্তবায়ন সম্ভব হলে অচিরেই বাংলাদেশ উন্নত বিশ্বের উন্নয়নের মূল স্রোতে সম্পৃক্ত হবে।  তিনি আরও বলেন, দেশে দক্ষ-যোগ্য জনশক্তি বিনির্মাণে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় বর্তমান প্রশাসনের উদ্যোগে বিভিন্নমুখী উদ্যোগ বাস্তবায়িত হচ্ছে। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা খাতে বরাদ্দ বৃদ্ধিসহ নতুন নতুন বিভাগ ও ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে।  মাননীয় উপাচার্য দেশের তরুণ মেধাবী শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ায় অধিকতর মনোযোগী হয়ে নিজেদের সৎ-যোগ্য ও আধুনিক প্রযু্িক্ত নির্ভর দক্ষ জনশক্তিতে রূপান্তরিত হয়ে জাতির জনকের স্বপ্নের সোনারবাংলা বিনির্মাণে আত্মনিয়োগ করার আহ্বান জানান। 

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সায়েন্টিটিফিক সোসাইটির কো-অর্ডিনেটর জনাব মো. মোজাহিদ আহমেদ ইজাজ এর সভাপতিত্বে এবং সদস্য ইসমাম ইবনুল আরাবী ও সাবরিনা সাহজাবীন আলম-এর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে চবি’র বিভিন্ন বিভাগের সম্মানিত শিক্ষকবৃন্দ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আগত শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ ও তাদের অভিভাবকবৃন্দ এবং বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।  এতে দেশের ২৭ টি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী এবং চট্টগ্রামের বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষার্থীর তাদের নিজস্ব উদ্ভাবিত প্রজেক্ট প্রদর্শন করে। 


keya