৩:২৩ পিএম, ২১ আগস্ট ২০১৯, বুধবার | | ১৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০




বাস চালককে পিটিয়ে হত্যা, চট্টগ্রামে পরিবহন ধর্মঘটের ডাক

২৪ এপ্রিল ২০১৯, ০৪:০৮ পিএম | জাহিদ


এসএনএন২৪.কম : চট্টগ্রামে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে বাসচালককে পিটিয়ে হত্যার প্রতিবাদে বুধবার সন্ধ্যা থেকে নগরীতে দুই দফায় পৃথক পরিবহন ধর্মঘট শুরু হচ্ছে। 

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন চট্টগ্রাম আঞ্চলিক কমিটি এ ধর্মঘট আহ্বান করেছে।   

সন্ধ্যা ৬টা থেকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক ও সংশ্লিষ্ট ১৯ রুট এবং চট্টগ্রাম-ঢাকা মহাসড়কসহ সংশ্লিষ্ট ৮৭টি রুটে যাত্রীবাহী পরিবহন শ্রমিক ধর্মঘটের আওতায় থাকবে।  

এ ছাড়া আগামী ২৮ এপ্রিল সকাল ৬টা থেকে ২৪ ঘণ্টা বৃহত্তর চট্টগ্রামের ৫ জেলার সকল রুটে সকল ধরনের যাত্রীবাহী ও পণ্যবাহী গাড়ির শ্রমিক ধর্মঘট আহ্বান করেছেন সংগঠনটি। 

আরাকান সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মুছা জানান, মঙ্গলবার বিকেলে ফেডারেশনের বৈঠক থেকে এ ধর্মঘটের ডাক দেয়া হয়। 

ডিবি পুলিশ পরিচয়ধারী হত্যাকারীদের চিহ্নিতকরণ এবং তাদের দ্রুত গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে এ ধর্মঘট ডাকা হয়েছে বলে তিনি জানান। 

শ্রমিক নেতাদের অভিযোগ, গত সোমবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে কক্সবাজার থেকে গাজীপুরমুখী শ্যামলী পরিবহন-এনআর এর একটি যাত্রীবাহী বাস চট্টগ্রামের পটিয়া থানাধীন শান্তিরহাট এলাকা অতিক্রম করার পর একটি পেট্রোল পাম্পের কাছে সাদা মাইক্রোবাসে সাদা পোশাকে থাকা একদল লোক নিজেদের ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে গাড়িটির গতিরোধ করে এবং ইয়াবা আছে বলে অভিযোগ করে তল্লাশি চালায়। 

বাসটির সুপারভাইজারের বরাত দিয়ে শ্যামলী পরিবহনের চট্টগ্রাম অঞ্চলের ব্যবস্থাপক বাবুল আহমেদ বলেন, ‘হ্যান্ডকাফ, ওয়্যারলেস সেটসহ গাড়িতে ওঠা ডিবি পরিচয়ধারী লোকগুলো তল্লাশির এক পর্যায়ে গাড়ির চালক ৫০ বছর বয়সী জামাল উদ্দিনকে বাস থেকে নামিয়ে অদূরে নিয়ে গিয়ে মারধর করে এবং ইয়াবা কোথায় আছে তা জানতে চায়।  বাসে কোনও ইয়াবা নেই জানালে তাকে নানাভাবে নির্যাতন করা হয়।  কয়েক দফা নির্যাতনের পর তাকে আধমরা করে বাসে তুলে দিয়ে সাদা মাইক্রোবাসটি চলে যায়। 

পরবর্তীতে শ্যামলীর চট্টগ্রাম কাউন্টার থেকে বিকল্প একজন চালক পাঠিয়ে বাসটি গুরুতর আহত চালককে নিয়ে চমেক হাসপাতালে গেলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। 

এ ঘটনায় নিহত চালকের বাবা বাদী হয়ে মামলা করবেন বলে শ্যামলী পরিবহন- এনআর এর ব্যবস্থাপক বাবুল জানিয়েছেন। 

এ বিষয়ে নগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ-কমিশনার (বন্দর) এসএম মোস্তাইন হোসাইন বলেন, ‘সকালে বিষয়টি আমি কর্ণফুলী থানার ওসির কাছ থেকে জানতে পেরে বাসের সুপারভাইজারের সাথে কথা বলেছি।  তিনি আমাকে জানিয়েছেন  চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পটিয়া শান্তির হাটের অদূরে একটা ব্রিজের কাছে এ ঘটনা ঘটেছে।  তার চিহ্নিত জায়গা অনুযায়ী সেটা সিএমপি’র সীমানার থেকে তিন কিলোমিটার দূরে জেলার মধ্যে পড়েছে। ’ 

গোয়েন্দা কর্মকর্তা মোস্তাইন বলেন, ‘সিএমপি’র ডিবি টিম সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ও তথ্য ছাড়া কোনও অভিযানে যায় না।  কাল আমাদের কাছে ওই ধরনের কোনও তথ্য ছিল না।  আমি নিশ্চিত হয়েছি আমাদের কোনও টিম সেখানে অভিযানে যায়নি। ’


keya