৬:৪১ এএম, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার | | ২৩ সফর ১৪৪১




অনেক নামি-দামি পত্রিকার ছাপা বন্ধ, শুধু অনলাইন চলছে

২৬ এপ্রিল ২০১৯, ০৭:৫৯ পিএম | জাহিদ


এসএনএন২৪.কম : ছাপা পত্রিকার সামনে প্রযুক্তি যে বাস্তবতা দাঁড় করিয়েছে সেটা সংশ্লিষ্টদের মানতেই হচ্ছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কেবল বাংলাদেশে নয়, প্রযুক্তি সারাবিশ্বের মানুষের জন্য নানা সুযোগ সৃষ্টি করেছে, আধুনিকতার জায়গায় নিয়ে গেছে।  সেজন্য এক ধরনের ধারাবাহিকতায় চলতে থাকলে হবে না।  আধুনিকতা ও প্রযুক্তির সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে হবে। 

তিনি বলেন, সারাবিশ্বে অনেক নামিদামি পত্রিকা বন্ধ হয়ে গেছে।  অনেক পত্রিকা কেবল অনলাইন চলে এসেছে।  ছাপা বন্ধ হয়ে গেছে তাদের, সোজা কথা অনলাইনে চলে এসেছে।  এখন কাগজের ব্যবহার হয় না।  এটা প্রযুক্তির প্রভাব।  প্রযুক্তি এবং আধুনিকাতর প্রভাবে এভাবে বিবর্তন আসতে থাকবে।  তাই বিবর্তনের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে হবে। 

শুক্রবার (২৬ এপ্রিল) বিকেল প্রধানমন্ত্রী তার সরকারি বাসভবন গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন।  তার সাম্প্রতিক ব্রুনেই সফর নিয়ে এ সংবাদ সম্মেলন ডাকা হয়। 

সম্প্রচার শিল্প নিয়ে অপর এক প্রশ্নের জবাবে সরকারপ্রধান বলেন, এখনো অনেকে চ্যানেল চাইছে।  তথ্যমন্ত্রীর (ড. হাছান মাহমুদ) সঙ্গে কথা হচ্ছিলো।  বললাম যতো চাইছে, দিয়ে দিতে।  কিছু না হোক, কিছু লোকেরতো চাকরি হবে, কর্মসংস্থান হবে। 

তিনি বলেন, আমরা সবকিছু ডিজিটালাইজড করে দিয়েছি, স্যাটেলাইটও হয়েছে।  স্যাটেলাইটের মাধ্যমেও টিভি চালানো যায়।  তিন মাসের জন্য বিনা পয়সায় (টিভি চ্যানেল) চালানোর প্রস্তাব দেওয়া হচ্ছে।  কিন্তু চ্যানেলগুলো সেভাবে নিচ্ছে না।  অথচ বিদেশি জায়গায় অনেক টাকা দিচ্ছে।  কিভাবে আমাদের স্যাটেলাইটের মাধ্যমে অল্প খরচে টেলিভিশন চালাতে পারে সেজন্য কথা চলছে। 

‘আর ভালো অনুষ্ঠান যারা করবে, মানুষ তাদের দেখবে।  আমাদের দেশে ১৬ কোটি মানুষ, সুতরাং গ্রাহক কখনো কমবে না’- বলেন প্রধানমন্ত্রী। 

তিনি বলেন, ওয়েজ বোর্ডের ব্যাপারে সরকারের যা করণীয়, তা সরকার করেছে, বাকিটা মালিকপক্ষের, সেখান থেকে সাংবাদিকরা যা আদায় করে নিতে পারেন, সেটা তাদের ব্যাপার।