১:৫১ পিএম, ২৭ মে ২০১৯, সোমবার | | ২২ রমজান ১৪৪০




জাবিতে ৯ মাস ঘুরাঘুরির পর সিটের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি

২৯ এপ্রিল ২০১৯, ০৮:২৩ পিএম | জাহিদ


শিহাব উদ্দিন, জাবি : জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) নওয়াব ফয়জুন্নেসা হল থেকে শেখ হাসিনা হলে সাময়িক স্থানান্তরিত হওয়া ২৯ জন শিক্ষার্থী তাদের স্থায়ী সিটের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে।  দাবী আদায় না হওয়া পর্যন্ত কর্মসূচী চালানোর ঘোষণা দেয় আন্দোলনকারীরা।   

সোমবার (২৯ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্টার ভবনের সামনে এই অবস্থান কর্মসূচি শুরু হয়। 

এ বছর নওয়াব ফয়জুন্নেসা হলে সিট বরাদ্ধ পায় ১৪০ জন শিক্ষার্থী।  রুম সংস্কারের কথা বলে ৫৪ জন শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন হলে সাময়িক স্থানান্তরিত করা হয়।  এর মধ্যে শেখ হাসিনা হলে ২৯ জন, জাহানারা ইমাম হলে ২০ জন, সুফিয়া কামাল হলে ৫ জন।  এরই মধ্যে জানানারা ইমাম ও সুফিয়া কামাল হলের সাময়িক স্থানান্তরিত হওয়া শিক্ষার্থীরা ঐসব হল প্রসাশনের নির্দেশে নওয়াব ফয়জুন্নেসা হলে ফেরত চলে আসে।  কিন্তু শেখ হাসিনা হলের ২৯জন শিক্ষার্থী তাদের সিটের দাবিতে আন্দোলন শুরু করে।  তাদের দাবি ৯ মাস ঘুরাঘুরির পরও আশ্বাস ছাড়া প্রসাশন থেকে তারা কিছু পায়নি। 

হলের প্রভোস্ট সম্পর্কে তারা বলেন,'স্যার আমাদের বলেছেন এটা আমাদের ভাগ্য, এটাই মেনে নিতে হবে।  হলের বরাদ্ধ পরিবর্তন করা যাবে না। ' শেখ হাসিনা হলের প্রসাশন তাদের একদিনের মধ্যেই হল ছাড়ার জন্য বলে কিন্তু তারা সিট পাওয়ার কোন সিদ্ধান্ত ছাড়া হলে ছাড়ার অস্বীকৃতি জানায়।  আন্দোলনকারীদের 'আবাসিক বিশ্ববিদ্যালয়ে আমার সীট কই?', ' দাবি আমাদের একটাই যেকোন হলে নিজের রুম চাই', 'যে হলে সীট নাই, সেই হলে বরাদ্ধ কেন?', '১৫ মাস পরেও গনরুম চাই না, চাই না ডাবলিং',' আশ্বাসের বিশ্বাস নাই, আমাদের রুম চাই' এসব স্লোগানের প্লাকার্ড প্রদর্শন করতে দেখা যায়। 

আন্দোলনকারীদের মধ্য থেকে ম্যানেজমেন্ট ডিপার্টমেন্টের ৪৭তম ব্যাচের শিক্ষার্থী ফারজানা বলেন,' আমরা আর আশ্বাস চাই না, চাই সুষ্ঠু সমাধান।  আমরা পড়াশুনা ও বসবাসের জন্য একটা পরিবেশ চাই।  আবাসিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়ে এক হল থেকে অন্য হলে ধাক্কাধাক্কি চাই না।  আমাদের কেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ভাবা হচ্ছে না?? '

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের শেখ হাসিনা হলেই স্থায়ীভাবে আবাসন ব্যবস্থা করবেন বলে আশ্বাস্ত করেন।