১:০৫ পিএম, ২২ আগস্ট ২০১৯, বৃহস্পতিবার | | ২০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০




রাজবাড়ীতে প্রচন্ড গরমে ডায়রিয়ার প্রাদুর্ভাব চিকিৎসা দিতে হিমসিম খাচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ

১১ মে ২০১৯, ০৪:৫৮ পিএম | জাহিদ


এম.মনিরুজ্জামান, রাজবাড়ী : রাজবাড়ীতে হঠাৎ প্রচন্ড গরমে ও বৃষ্টির অভাবে লুহাওয়া বওয়ার কারনে বেড়েছে ডায়রিয়ার প্রকোপ। 

শনিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত রাজবাড়ী হাসপাতালে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগী ভর্তি হয়েছে ৩০ জন।  শুক্রবার রাতে পর্যন্ত সব মিলিয়ে হাসপাতালে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগী ভর্তি ছিলো ১০০ জন। 

রাজবাড়ী সরকারী হাসপাতালের তথ্যমতে জানা যায়, হাসপাতালটি ১শ শয্যা থেকে ২৫০ শয্যায় উন্নতীকরন হলেও ডায়রিয়া ওয়ার্ডে শয্যা রয়েছে মাত্র ১০ টি।  যার বিপরীতে বর্তমানে রোগী ভর্তি আছে ১০০ জন।  রাজবাড়ী সদর হাসপাতালের তথ্যমতে আরো জানা যায়, ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে গত এক সপ্তাহে পাঁচ শতাধীক রোগী চিকিৎসা সেবা নিয়েছে। 

শনিবার  সকালে সরেজমিনে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালের ডায়রিয়া ওয়ার্ডে গিয়ে দেখাযায়, সেখানে পা ফেলার যায়া নেই।  কেউ মেঝেতে আবার কেউ হাসপাতালের বারান্দায় শুয়ে আছে।  আর রোগীর স্বজনরা প্রচন্ড গরমে হাসপাতালের সামনে থাকা একটি গাছের নীচে বসে আছে। 

এ সময় ডায়রিয়ায় আক্রান্ত মেঝেতে থাকা রাজবাড়ী সদর উপজেলার রামকান্তপুর এলাকার এক রোগী বলেন, আমি দুইদিন যাবৎ এখানে শুয়ে আছি।  বাইরে থেকে স্যালাইন কিনে এনে দিয়েছি।  প্রচন্ড ডায়রিয়া হয়েছে।  বার বার টয়লেটে যেতে হচ্ছে।  এখানে পুরো ডায়রিয়া ওয়ার্ডের জন্য একটি মাত্র টয়লেট।  সব সময় সিরিয়াল লেগে থাকে।  ভীষন কষ্ট হচ্ছে। 

আলেয়া খাতুন নামে অপর এক রোগী বলেন, রাজবাড়ীর ডায়রিয়া ওয়ার্ডে এসে মানুষ আরো বেশি অসুস্থ্য হচ্ছে।  এই ওয়ার্ডে তেমন জানালা নেই যে কারনে ভিতরে প্রচন্ড গরম।  একটি রুমে একটি ফ্যান ফলে হাত পাখা ছারা কোন উপায় নেই। 

কামরুল হাসান নামের এক রোগীর স্বজন অভিযোগ করে বলেন, সকালে ডাক্টার আসে সারা দিনে কেউ আর খোজ নেয় না।  হাসপাতাল থেকে কোন স্যালাইন ও ওষুধপত্র দেওয়া হয় না।   

ডায়রিয়া ওয়ার্ডে কর্তব্যরত নার্স রেবেকা খাতুন জানান, এত রোগী এক সাথে তারা এর আগে দেখেননি।  প্রচন্ড গরমে বাসি খাবার ও বাজারের ফরমালিনযুক্ত খাবার খাওয়ার কারনেই ডায়রিয়ার প্রকোপ বেরেছে। 

আমাদের সিট কম থাকায় হাসাপাতালের সার্জিকেলের একটি ওয়ার্ডে রোগীদের রাখা হয়েছে।   আমরা সাধ্যমতো চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছি।   

রাজবাড়ী সদর হাসপাতালের তত্তাবধায়ক ডাঃ দিপক কুমার প্রামানিক জানান, প্রচন্ড গরমে বাসি খাবার এবং রোজায় সাদাদিন অভুক্তের পর বাজারের ভেজাল ও ফরমালিনযুক্ত খাবার খাওয়ার কারনেই ডায়রিয়ার প্রকোপ বেড়েছে।