১:০৪ পিএম, ২২ আগস্ট ২০১৯, বৃহস্পতিবার | | ২০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০




বাগেরহাটে ক্ষতিপূরণ নিয়ে অপপ্রচারের বিরুদ্ধে মানববন্ধন

১৩ মে ২০১৯, ০৩:০৬ পিএম | জাহিদ


এম.পলাশ শরীফ, বাগেরহাট : নির্মানাধীন খুলনা-মোংলা রেল লাইনের অধিগ্রহনকৃত জমির ক্ষতিপূরণ নিয়ে অপপ্রচারের বিরুদ্ধে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে ক্ষতিগ্রস্থ কয়েকটি পরিবার। 

(১৩ মে) সোমবার দুপুরে ফকিরহাট উপজেলার জাড়িয়া মাইটকুমড়া এলাকায় অধিগ্রহনকৃত জমির সামনে দাড়িয়ে এ মানববন্ধন করেন ক্ষতিগ্রস্থরা। 

মানববন্ধনে বক্তব্য দেন, ক্ষতিগ্রস্থ আজিজুল হক, আরাফাত হোসেন, নাছরিন বেগম, নাছিম হোসেন, বাদশা, খলিলুর রহমান, এলাকাবাসী ফজলুল করিমসহ আরও অনেকে। 

বক্তারা বলেন, স্থানীয় একটি কুচক্রী মহল গনমাধ্যমের কাছে মিথ্যা তথ্য পরিবেশন করে অধিগ্রহনকৃত জমির মালিকদের হয়রানি করছে।  ওই মহলটি শুধু জমির মালিকদের নয় এলাকার সুনাম ক্ষুন্ন করার জন্য অপপ্রচারে লিপ্ত রয়েছে।  প্রকৃত অর্থে যারা জমির মালিক তারাই ক্ষতিপূরণ পেয়েছে।  স্বার্থান্বেষী মহলটির অন্যায় দাবি না মেটানোর ফলে তারা এ অপপ্রচার চালাচ্ছে।  আমরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই।  কুচক্রী মহলের বিরুদ্ধে সঠিক তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি। 

আজিজুল হক বলেন, পৈত্রিকসূত্রে পাওয়া জমি খুলনা-মোংলা রেল লাইনের জন্য অধিগ্রহন হওয়ায় আমি জমি ও জমিতে থাকা অবকাঠামো, গাছ-গাছালির জন্য ২০ লক্ষাধিক টাকা ক্ষতিপূরণ পেয়েছি।   কিন্তু  কতিপয় স্বার্থানেসী মহল অপপ্রচার চালাচ্ছে যে আমি ভুয়া নামে টাকা তুলেছি, সঠিক তদন্তপূর্বক আমি এর সমাধান চাই। আরাফাত হোসেন, নাছিম হোসেনসহ আরও কয়েকজন বলেন, আমরা নিজস্ব মালিকানাধীন জমির ক্ষতিপূরণ বাবদ টাকা তুলেছি।  

নাছরিন বেগম বলেন, আমি ঘর বাবদ টাকা তুলেছি।  সেই ঘরের অর্ধাংশ ভেঙ্গে দিয়েছে রেল কর্তৃপক্ষ।  বাকি অর্ধেক অংশ আমি রেল কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে ক্রয় করে রেখেছি।  কিন্তু কুচক্রী মহল অপপ্রচার চালাচ্ছে আমি ঘর ও জমি ছাড়াই ক্ষতিপূরণের টাকা তুলেছি।  এ রকম মিথ্যা অপপ্রচারের বিরুদ্ধে নিন্দা জানাই।