৪:৪৪ এএম, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, সোমবার | | ২৩ মুহররম ১৪৪১




আজও কমলাপুর ও বিমানবন্দর স্টেশনে উপচে পড়া ভিড়

২৫ মে ২০১৯, ১০:৪৩ এএম | জাহিদ


এসএনএন২৪.কম : ঈদুল ফিতর উপলক্ষে নাড়ির টানে যারা বাড়ি ফিরতে চান, তারা ঝড়-বৃষ্টি ও নানা ভোগান্তি উপেক্ষা করেই রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশনে অগ্রিম টিকিট সংগ্রহের চেষ্টা করছেন। 

শনিবার সকাল ৯টা থেকে নয়টি কাউন্টারের মাধ্যমে তৃতীয় দিনের মতো টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে।  টিকিট প্রত্যাশীদের দীর্ঘ লাইন সৃষ্টি হয়েছে।  লোকসমাগম বেশি হওয়ার কারণ আজ দেওয়া হচ্ছে ৩ জুনের টিকিট। 

তবে টিকিট বিক্রির জন্য নয়টি কাউন্টার থাকলেও নারীদের জন্য একটি কাউন্টার থাকায় তাদের ভোগান্তি অনেক বেড়েছে। 

একজন যাত্রী চারটি টিকিট সংগ্রহ করতে পারছেন।  কালোবাজারি এড়াতে জাতীয় পরিচয়পত্র দেখিয়ে টিকিট সংগ্রহ করতে হচ্ছে। 

কমলাপুর থেকে বিক্রি হচ্ছে সমগ্র পশ্চিমাঞ্চলগামী ট্রেনের টিকিট, বিমানবন্দর স্টেশন থেকে চট্টগ্রাম ও নোয়াখালীগামী আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট, তেজগাঁও থেকে ময়মনসিংহ ও জামালপুরগামী ট্রেনের টিকিট, বনানী থেকে নেত্রকোনাগামী মোহনগঞ্জ ও হাওড় এক্সপ্রেসের টিকিট ও ফুলবাড়িয়া (পুরাতন রেলওয়ে স্টেশন) থেকে সিলেট ও কিশোরগঞ্জগামী সব আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট বিক্রি হচ্ছে। 

ঢাকা থেকে সবগুলো আন্তঃনগর ট্রেন মিলিয়ে দিনে প্রায় ৩০ হাজার ট্রেনের টিকিট রয়েছে।  এর মধ্যে ৫ ভাগ রেলওয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারী ও ৫ ভাগ ভিআইপি ছাড়া বাকি সব টিকিটের ৫০ শতাংশ অনলাইন ও এসএমএস ও অ্যাপে পাওয়ার কথা থাকলেও অ্যাপে টিকিট পাওয়া যাচ্ছে না বলে অভিযোগ ব্যবহারকারীদের। 

অনেকে বলেন, রেলসেবা অ্যাপে টিকিট সংগ্রহের চেষ্টা করে না পেয়ে আজ ভোরে বাধ্য হয়ে লাইনে দাঁড়িয়েছেন।  লাইনে দাঁড়িয়েও অ্যাপে চেষ্টা চলছে টিকিট কাটার। 

এদিকে, প্রত্যাশিত টিকিট পেতে দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে কষ্ট করলেও শেষ পর্যন্ত টিকিট পাবেন কি না এমন আশঙ্কাও কাজ করছে অনেকের মাঝে। 

উল্লেখ্য, গত ২২ মে থেকে অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়।  আগামীকাল ২৬ মে ৪ জুনের টিকেট বিক্রি করা হবে। 

অন্যদিকে, ২৯ মে ৭ জুন, ৩০ মে ৮ জুন, ৩১ মে ৯ জুন, ১ জুন ১০ জুন এবং ২ জুন ১১ জুন ফিরতি টিকেট রাজশাহী, খুলনা, রংপুর, দিনাজপুর ও লালমনিরহাট রেলওয়ে স্টেশন থেকে বিশেষ ব্যবস্থায় বিক্রি করা হবে। 


keya