৩:০৬ এএম, ২৬ আগস্ট ২০১৯, সোমবার | | ২৪ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০




জুরাছড়িতে কর্মশালায় পার্বত্য এলাকায় কর্মসূখী ও গুনগত শিক্ষা নিশ্চিত করা বড় চ্যালেন্স

২৭ মে ২০১৯, ০৫:৪১ পিএম | জাহিদ


সুমন্ত চাকমা, জুরাছড়ি : পার্বত্য এলাকায় কর্মসূখী ও গুনগত শিক্ষা নিশ্চিত করা বড় চ্যালেন্স।  অদক্ষ শিক্ষক নিয়োগদান, বিদ্যালয়ের আবকাঠামো, দুর্গমতা, এলাকায় জনসাধারণের  অসচেতনতা হিসেবে এই চ্যালেন্সে মোকাবেলায় প্রধান প্রধান বাঁধা হিসেবে মনে করছেন স্থানীয় গুনীজনেরা।  

সোমবার (২৭ মে) রাঙামাটি জুরাছড়ি উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আয়োজিত ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের গভর্নেন্স ইনোভেশন ইউনিটের সহযোগীতায়  স্থানীয় পর্যায়ে টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট (এসডিজি) বাস্তবায়ন বিষয়ক দিনব্যাপী কর্মশালায় স্থানীয় গুনীজনেরা এ মন্তব্য করেন। 

জুরাছড়ি উপজেলার রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের বিশ্রামাগারে অনুষ্ঠিত স্থানীয় পর্যায়ে টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট (এসডিজি) বাস্তবায়ন বিষয়ক দিনব্যাপী কর্মশালায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃমাহফুজুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি উপজেলা চেয়ারম্যান সুরেশ কুমার চাকমা, বিশেষ অতিথি ভাইস চেয়ারম্যান রিটন চাকমা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আল্পনা চাকমা, থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃমাহাবুবুল হাই, জুরাছড়ি, বনযোগীছড়া, মৈদং ও দুমদুম্যা ইউপি চেয়ারম্যান ও সচিবগণ, হেডম্যান, নারী উদ্যোক্তা, সাংবাদিক ও সরকারী কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। 

এ সময় স্থানীয় গুনীজনেরা বলেন, পাহাড়ে গুনগত শিক্ষা নিশ্চিত করতে হলে শিক্ষক নিয়োগ বানিজ্য বন্ধ করে মেধা ভিত্তিতে দক্ষ শিক্ষক নিয়োগ প্রদান ও পার্বত্য এলাকায় বিশেষ নকশায় অবকাঠামো নিশ্চিত করতে হবে।  এছাড়া অতিস্বল্প সময়ে প্রেষনে বদলী বদলী বন্ধে সুপারীশে উঠে আসে কর্মশালায়। 

এদিকে আরো বলা হয়, পার্বত্য এলাকায় ক্রমান্যয়ে নিরাপদ পানির সমস্যা দেখা দিচ্ছে।  সরকার প্রতিবছর গভীর নলকুপ স্থাপন করলেও অনেক সময় দেখা যায় পর্যাপ্ত পানি পাওয়া যাচ্ছে।  পানির প্রবাহ কমে যাওয়া এর প্রধান কারণ হিসেবে মনে করছেন তারা।  গভীর নলকুপ স্থাপনের পাশাপাশি পানির প্রবাহ ধরে রাখতে সবুজ বনায়ন ও উন্নত বাঁশ রোপনের উপর জোর দেন তারা। 

বক্তারা আরো বলেন, ভবিষ্যতের দিকে তাকিয়ে বর্তমানের উন্নয়নেই হলো টেকসই উন্নয়নের অভীষ্ট লক্ষ্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একার চেষ্টায় এই লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করা সম্ভব নয়।  এই উন্নয়ন করতে হবে সবাইকে নিয়ে।  বিশেষ করে পিঁছিয়ে পড়া এবং প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে নিয়ে। 

সকাল ১০ টায় অনুষ্ঠিত কর্মশালায় উপজেলা রিসোস সেন্টারের ইন্সেট্রেক্টর মোঃমরশেদুল আলমের ধারা সঞ্চালনায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন উপস্থাপন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাহফুজুর রহমান। 


keya