৭:২৬ এএম, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শুক্রবার | | ২০ মুহররম ১৪৪১




নান্দাইলে রাস্তার উপর বাজার ও যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং-এ তীব্র যানজট

২৮ মে ২০১৯, ০৫:০৫ পিএম | জাহিদ


মো.শাহজাহান ফকির,  নান্দাইল (ময়মনসিংহ) : মুসলমানদের ধর্মীয় বৃহৎ অনুষ্ঠান ঈদ-উল-ফিতর।  পবিত্র মাহে রমজান শেষে ঈদ-উল-ফিতর ঈদ উৎসব উদযাপন উপলক্ষ্যে চলে অগ্রীম ঈদের কেনাকাটা।  তারই ধারাবাহিকতায় ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলা সদর বাজারের প্রতিটি দোকানপাটে বাড়ছে ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড়। 

এরই পাশাপাশি বাড়তি ইনকামের সুযোগও জুটেছে ইজিবাইক ও মেট্টোরিক্সার চালকদের।  তবে নান্দাইল উপজেলা সদরে (শহরে) যানবাহন চলাচলের নির্দিষ্ট নিয়মকানুন না থাকায় এবং যানচলাচলের রাস্তা দখল করে রাস্তার উপর বাজার বসায় জনসাধারন ও ব্যবসায়ীদের দূর্ভোগ বৃদ্ধি পেয়েছে। 

সরজমিন দেখা যায়, নান্দাইল পুরাতন বাস স্ট্যান্ড ও উপজেলা পরিষদের সামনে নরসুন্দা ব্রীজের পাড় হতে নান্দাইল হাসপাতাল ভায়া আচারগাঁও বাস স্ট্যান্ড পর্যন্ত প্রায়ই যানজট দেখাযায়।  বিভিন্ন জায়গায় যত্রতত্র অবস্থায় গাড়ী পার্কিং এবং যাত্রী উঠানামা করে গাড়ী চালকগণ।  পাশাপাশি সড়কের দুপার্শ্ব ছোট ছোট ব্যবসায়ীরা দোকান সাজিয়ে বসেছে।  নান্দাইল উপজেলা সহ পাশর্^বর্তী উপজেলার জনগণ উক্ত নান্দাইল সদর বাজারে কেনা কাটা করতে আসে। 

এতে দূরপাল্লার বা স্থানীয় ইজিবাইক, মেট্টোরিক্সা, টমটম ও ভ্যানগাড়ি সহ বিভিন্ন যানবাহন বাজার পথের রাস্তাই ব্যবহার করতে হয়।  যার ফলে ক্ষনে ক্ষনে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়।  আর এই যানজট ভাঙ্গতে প্রায় এক-দেড় ঘন্টা থেকে দুই ঘন্টা পর্যন্ত সময় লেগে যায়।  এছাড়া জনগুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে নান্দাইল উপজেলা হাসপাতালে যেতে একমাত্র এই রাস্তাটিই ব্যবহার করতে হয়।  কোন মুমুর্ষ রোগী বা প্রসূতিকে হাসপাতালে নিয়ে যেতে বিরাট সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়।  স্থানীয় জনাধারন ও যাত্রীসাধারন জানায়, নির্দিষ্ট স্থানে গাড়ি পার্কিং হলে হয়তো এই সমস্যা হতো না। 

অপরদিকে বাজার মহলের বড় ব্যবসায়ীরা জানান, মালামাল আমদানি ও রপ্তানির ক্ষেত্রে মালবাহী গাড়ি বাজারে ঢোকতে পারছেনা।  সরকারি শেড ছেড়ে রাস্তা দখল করে নিত্য প্রয়োজনীয় তরিতরকারি বেচা-কেনায় এই যানজট আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। 

স্থানীয় ব্যবসায়ী সনজু দত্ত জানান, ঈদ উপলক্ষ ছাড়াও বাজারের প্রধান প্রধান রাস্তা সহ অলিগলির রাস্তাগুলোতেও বসে থাকে ছোট ব্যবসায়ীরা।  মোটা অংকে দোকান ভাড়া প্রদান করেও মালামাল আমদানি-রপ্তানি বন্ধ থাকে।  কারন দোকানের সামনে রাস্তা দখল করে তমহল বসায় মালবাহি গাড়ী চলাচলে অসুবিধা হচ্ছে।  যার ফলে নান্দাইলে অর্থনৈতিক আয় পিছিয়ে পড়ছে। 

স্থায়ী ব্যবসায়ী এমদাদুল হক জানান, ঈদ উপলক্ষ্যে যানবাহন অবশ্যই সদরে বাড়তি চাপ দিবেই তথাপি নির্দিষ্ট নিয়ম করে বাজারের তিন প্রান্তে (তিন মোড়ে) গাড়ীগুলো পার্কিং করা হলে যানজট মুক্ত হবে বলে তিনি মনে করেন।  নান্দাইল পৌর সভার মেয়র রফিক উদ্দিন ভূইয়া জানান, যত্রতত্র যেন গাড়ী পার্কিং করতে না পারে তার জন্য গাড়ীগুলো নির্দিষ্ট জায়গায় পার্কিং এর ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।