১২:২১ পিএম, ২৭ জুন ২০১৯, বৃহস্পতিবার | | ২৩ শাওয়াল ১৪৪০




বোয়ালিয়া মুক্তিযোদ্ধা কলেজের সভাপতির বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

২৮ মে ২০১৯, ০৯:৩৩ পিএম | জাহিদ


জুলফিকার আলী, কলারোয়া (সাতক্ষীরা) : কলারোয়ার বোয়ালিয়া মুক্তিযোদ্ধা ডিগ্রী কলেজের সভাপতি কর্তৃক বিএম শাখায় নিয়োগকৃত শিক্ষকদের পদোন্নতির জন্য ১০ প্রভাষকের নিকট থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করেছে। 

এ বিষয় নিয়ে দূর্নীতি দমন কমিশন ঢাকা, ভিসি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, চেয়ারম্যান শিক্ষাবোর্ড যশোর, জেলা প্রশাসক সাতক্ষীরা, শিক্ষা অফিসার কলারোয়া, নির্বাহী অফিসার কলারোয়া, অফিসার ইনচার্জ কলারোয়া, চেয়ারম্যান কেড়াগাছি ইউনিয়ন পরিষদ, অধ্যক্ষ বোয়ালিয়া মুক্তিযোদ্ধা ডিগ্রী কলেজ সহ সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত ভাবে অভিযোগ দায়ের হয়েছে।  অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে-বোয়ালিয়া মুক্তিযোদ্ধা ডিগ্রী কলেজের সভাপতি ২০১৫ সালে বিএম শাখায় নিয়োগকৃত বাংলা প্রভাষক আলতাফ হোসেন,  ব্যবস্থাপনা প্রভাষক কামাল হোসেন, ইংরেজি প্রভাষক আবু ফরহাদ, কম্পিউটার ডেমো ওমর আলী, ল্যাব এ্যাসিস্ট্যান্ট মধু লাল ফকির, ডিগ্রী শাখায় নিয়োগকৃত অফিস সহকারী রহিমা খাতুন, উচ্চ মাধ্যমিক শাখায় শূন্য পদে নিয়োগকৃত প্রভাষক উৎপাদন ব্যবস্থাপনা ও বিপন্ন আতিকুজ্জামান, গার্হস্থ্য অর্থনীতি প্রভাষক কামরুন্নাহার, সমাজকল্যাণ প্রভাষক নির্মল কান্তি, অর্থনীতি প্রভাষক দিপক ও ভুগোল প্রভাষক নাছরিন সুলতানাকে পদোন্নতি দেয়ার নামে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। 

যে টাকা কলেজের উন্নয়ন কাজে ব্যবহার হয়নি।  এমনকি কলেজ ফান্ডেও জমা দেয়া হয়নি।  সমুদয় টাকা তিনি আত্মসাৎ করেছেন।  এ বিষয়ে প্রভাষক আলতাফ হোসেন জানান-বোয়ালিয়া মুক্তিযোদ্ধা ডিগ্রী কলেজের সভাপতি ভুট্টো লাল গাইন তার কাছ থেকে ৬লাখ টাকা নিয়েছেন।  টাকা নেওয়ার বিষয়টি নিয়ে তিনি কলেজের মধ্যে শিক্ষকদের কাছে প্রকাশ করেন।  পরে কলেজ সভাপতির কানে গেলে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে নিজের দোষ ঢাকার জন্য সম্পন্ন অবৈধ ভাবে আমাকে উপবৃত্তির টাকা আত্মসাতের অভিযোগ তুলে সাময়িক বরখাস্ত করেন বলে তিনি শুনেছেন।  কিন্তু ওই মিটিংয়ে কলেজ অধ্যক্ষ ছিলেন না।  সদস্য সচিবকে বাদ রেখে কিভাবে মিটিং করা হয়। 

এছাড়া তিনি বরখাস্তের কোন প্রকার চিঠি পাননি।  এছাড়া প্রভাষক আলতাফ হোসেন আরো বলেন- কলেজ সভাপতি শিক্ষক নিয়োগের নামে লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ তুলে ধরে তিনি ২৮ মে সকারের বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত ভাবে অভিযোগ করেছেন।