৬:২৮ পিএম, ২৭ জুন ২০১৯, বৃহস্পতিবার | | ২৩ শাওয়াল ১৪৪০




ইংল্যান্ড-দ. আফ্রিকার ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপের পর্দা উঠছে

৩০ মে ২০১৯, ১২:৩৫ পিএম | জাহিদ


এসএনএন২৪.কম : অপেক্ষার প্রহর ঠেলে মহেন্দ্রক্ষণটি অবশেষে এসেই গেল।  বিশ্বজুড়ে ক্রিকেটপ্রেমীদের উন্মাদনার সুতোয় গেঁথে বৃহস্পতিবার পর্দা উঠছে দ্বাদশ বিশ্বকাপের।  বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্রিকেট যজ্ঞের যাত্রাটা শুরু হচ্ছে স্বাগতিক ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকার ম্যাচ দিয়ে।  ওভালে উদ্বোধনী ম্যাচটা শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বেলা সাড়ে ৩টায়। 

১৯৭৫ সালে এই ইংল্যান্ডের মাটিতেই শুরু হয়েছিল বিশ্বকাপের যাত্রা।  সময় আর আঞ্চলিকতার আবর্তনে এবারের দ্বাদশ বিশ্বকাপের আসরও বসছে সেই ইংল্যান্ডেই।  মানে বিশ্বকাপ ফিরেছে ঘরে।  আসলে কেবল টুর্নামেন্টটাই আঁতুর ঘরে ফিরেছে।  স্বপ্নের বিশ্বকাপ ট্রফিটা ঘরে ফিরেছে, এটা বলার উপায় নেই। 

কারণ, আগের ১১ আসরে একবারও বিশ্বকাপ ট্রফিটা ছুঁয়ে দেখতে পারেনি ইংলিশরা।  ক্রিকেট এবং বিশ্বকাপের জন্মদাতা হলেও ইংলিশদের ঘরে বিশ্বকাপ ট্রফি নেই।  এবারও ট্রফিটা ইংলিশরা রেখে দিতে পারবে কি না বলবে সময়।  তবে প্রাক-টুর্নামেন্ট আলোচনায় টপ ফেভারিটের তকমাটা ইংলিশদের গায়েই। 

স্বাগতিক বলেই শুধু।  সাম্প্রতিক সময়ে ওয়ানডেতে ইংলিশদের পারফরম্যান্সও দুর্দান্ত।  অভিজ্ঞ ও তারূণ্যের মিশেলে গঠিত এউইন মরগানের দলটি ওয়ানডেতে অবিশ্বাস্য ক্রিকেটই খেলছে।  ক্রিকেটবোদ্ধাদের অভিমত, নিজেদের পারফরম্যান্সটা ধরে রাখতে পারলেই ইংলিশদের আজন্ম আক্ষেপ এবার পূরণ হবে।  মরগানের দলও নিশ্চিতভাবে সেই চেষ্টাই করবে। 

কিন্তু ইংলিশদের সেই চেষ্টা আজ প্রথম ম্যাচেই ব্যর্থ করে দিতে তৈরি দক্ষিণ আফ্রিকা।  `চোকার’ শব্দটি দক্ষিণ আফ্রিকানদের গায়ে আঠার মতো লেগে গেছে।  তবে ফ্যাফ ডু প্লেসির দলটি সেই ‘চোকার’ অপবাদ মুছে ফেলার পণ করেই শুরু করছে বিশ্বকাপ। 

উদ্বোধনী ম্যাচকে সামনে রেখে প্রোটিয়া অধিনায়ক ডু প্লেসি স্পষ্ট কণ্ঠেই বলেছেন, অতীতের ‘চোকার’ অপবাদটা অতীত বানানোই তাদের লক্ষ্য।  এবারের আসরে অন্তত ওই শব্দটার সঙ্গে আলিঙ্গন করতে রাজি নন তারা।  মানে এবার ভালো কিছু করারই প্রত্যয়।  কিন্তু সেই ভালো কিছুর আশায় প্রোটিয়াদের শুরুটা করতে হচ্ছে শঙ্কা নিয়ে। 

চোটের কারণে উদ্বোধনী ম্যাচটাতে খেলতে পারছেন না অভিজ্ঞ পেসার ডেল স্টেইন।  বোলিং আক্রমণের প্রধান অস্ত্র ক্যাগিসো রাবাদাকে নিয়ে একটু সংশয় আছে।  যদি রাবাদার খেলার সম্ভাবনাই বেশি।  ক্রিকেটের জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ক্রিকইনফোর সম্ভাব্য একাদশেও রাখা হয়েছে রাবাদাকে। 

চোট শঙ্কা ছিল স্বাগতিক ইংলিশ শিবিরেও।  স্বয়ং অধিনায়ক মরগানের খেলা নিয়েই সংশয় ছিল।  তবে সর্বশেষ খবর, সংশয় দূর করে ঠিকই উদ্বোধনী ম্যাচে খেলছেন মরগান।  সুতরাং জয় দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরুর আশায় সম্ভাব্য সেরা দল নিয়েই মাঠে নামছে ইংল্যান্ড। 

প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা হয়তো সম্ভাব্য সেরা একাদশ পাচ্ছে না।  তবে একাদশ যেমনই হোক, শুরুটা জয় দিয়ে করতেই প্রত্যয়ী প্রোটিয়ারা। 

ইংল্যান্ডের একাদশ : জেসন রয়, জনি বেয়ারস্টো, জো রুট, এউইন মরগান (অধিনায়ক), জস বাটলার (উইকেটকিপার), বেন স্টোকস, মঈন আলি, ক্রিস মরিস, আদিল রশিদ, জাফ্রা আর্চার, লিয়াম প্লানকেট/মার্ক উড। 

দক্ষিণ আফ্রিকার সম্ভাব্য একাদশ : হাশিম আমলা, কুইন্টন ডি কক (উইকেটকিপার), ফ্যাফ ডু প্লেসি (অধিনায়ক), রাসি ফন ডার দুসেন, ডেভিড মিলার, জ্য পল ডুমিনি, অ্যান্ডিলে পেহলুকায়ো, ক্রিস মরিস, ক্যাগিসো রাবাদা, লুঙ্গি এনগিদি ও ইমরান তাহির। 


keya