৬:৫৬ এএম, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার | | ২৩ সফর ১৪৪১




হাতীবান্ধায় ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে শিক্ষক আটক

১৮ জুন ২০১৯, ১০:২২ এএম | নকিব


আজিজুল ইসলাম বারী,লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ লালমনিরহাটে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে মাসুদ রানা (৩৩) নামে এক সহকারী শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

সোমবার (১৭ জুন) রাতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা হয়েছে।  রোববার রাতে তাকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে আটক করা হয়। 

মাসুদ রানা হাতীবান্ধার নওদাবাস ইউনিয়নের কিসামত ধওলাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক।  তিনি টংভাঙা ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের পশ্চিম বেজগ্রাম এলাকার মৃত. তরিব উদ্দিন ছেলে। 

ওসি ওমর ফারুক বলেন, ‘রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে সহকারী শিক্ষক মাসুদ রানা পাশের নওদাবাস ইউনিয়নের কিসামত ধওলাই এলাকায় নির্যাতনের শিকার নারীর বাড়িতে যান।  তখন বাড়িতে ওই নারী ছাড়া অন্য কেউ না থাকার সুযোগে মাসুদ রানা তাকে ধর্ষণের চেষ্টা চালান। 

এসময় তার চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে মাসুদকে আপত্তিকর অবস্থায় আটক করে হাতীবান্ধা থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করে।  পরে স্থানীয় লোকজন নির্যাতনের শিকার নারীর পরিবারের সঙ্গে কয়েক দফা আলোচনা করে বিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে।  কিন্তু মাসুদের প্রথম স্ত্রীর অনুমতি না থাকায় তারা ব্যার্থ হন।  পরে ভিকটিম বাদী হয়ে সোমবার মাসুদের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন।  এই মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। 

কিসামত ধওলাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাজেদা ইয়াসমিন বলেন,‘১৬ জুন স্কুল ছুটির পর এই ঘটনা ঘটেছে।  ১৭ জুন সহকারী শিক্ষক মাসুদ রানা থানায় আটক থাকার কারণে স্কুলে অনুপস্থিত ছিলেন।  শুনেছি রাতে তার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।  বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হবে। ’

লালমনিরহাট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম বলেন,‘মামলার বিষয়টি শুনেছি।  তার বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ’

হাতীবান্ধা থানার ওসি ওমর ফারুক এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আটক মাসুদ রানাকে মঙ্গলবার সকালে লালমনিরহাট আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।