৯:০৮ পিএম, ১৯ জুলাই ২০১৯, শুক্রবার | | ১৬ জ্বিলকদ ১৪৪০




কাংঙ্খিত সুবিধা পাচ্ছেনা কৃষক

মোড়েলগঞ্জে অযন্ত্রে পড়ে রয়েছে আইপিএম ক্লাবের কৃষি যন্ত্রাংশ

১৮ জুন ২০১৯, ০২:৪৭ পিএম | নকিব


এম.পলাশ শরীফ, বাগেরহাট,প্রতিনিধি : বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জে কৃষি অধিদপ্তরের উদ্যোগে ইউনিয়ন পর্যায়ে দেড় শতাধিক আইপিএম ক্লাবের তথা সমন্মিত বালাই ব্যবস্থাপনা কৃষকরা কৃষি যন্ত্রাংশের অভাবে কাঙ্খিত সুবিধা পাচ্ছেননা কৃষক। 

সিডর পরবর্তী সরকার কর্তৃক বরাদ্ধকৃত আইপিএম ক্লাবের কৃষি যন্ত্রাংশ পাওয়ার টিলার মেশিন, পাওয়ার থ্রেসার মেশিন(ধান মাড়াই মেশিন), ফুট পাম্প, হ্যান্ড স্প্রে সহ বিভিন্ন ধরনের কৃষি যন্ত্রাংশ দীর্ঘদিন ধরে মরিচা পড়ে অকেজো অবস্থায় পড়ে রয়েছে এসব মেশিনারী।  সংশ্লিষ্ট কৃষি দপ্তরের তদারকির অভাবে সরকারের দেওয়া লাখ লাখ টাকার এ কৃষি যন্ত্রাংশের মালামাল কোনো কাজেই আসছেনা।  অধিকাংশ ক্লাবের নষ্ট হওয়া এ মালামাল হয়নি কোনো মেরামত যে কারনে সাধারণ কৃষক কৃষি কাজের সহায়তার জন্য ব্যবহৃত মেশিনারি জমিতে ব্যবহার করতে পারছেনা। 

সরেজমিনে জানাযায়, উপজেলার বনগ্রাম ইউনিয়নের নিবন্ধিত কৃষক রয়েছে প্রায় ২ হাজার।  আইপিএম ক্লাব রয়েছে বিষখালী, বলভদ্রপুর, বহরবৌলা, পুটিয়া, শ্রীপুর, দাসখালী, বনগ্রাম, হরিপুর, জয়পুর, মোহনপুর ও কড়াবৌলা।  কথা হয় বিষখালী আইপিএম ক্লাবের সভাপতি অনাদী দাস, সাধারণ সম্পাদক বিশ্বজিৎ দাস, সদস্য বিষœুপদ দাস, সুবল দাস, কালিপদ দাস, রাম লাল দাস ও জয়ন্ত দাস সহ  ওই ক্লাবের একাধিক সদস্যরা বলেন,২০০৭ সালে ঘূর্নিঝর সিডর পরবর্তীতে বিষখালী গ্রামে ২৫ সদস্য বিশিষ্ট আইপিএম ক্লাব তৈরি হয়।  এ ক্লাবের সরকার কর্তৃক কৃষি অধিদপ্তরের  মাধ্যমে সাধারণ কৃষকদের কৃষি সহায়তার জন্য দেওয়া হয়েছে পাওয়ার টিলার মেশিন, পাওয়ার থ্রেসার, ফুট পাম্প ও হ্যান্ড স্প্রে মেশিন।  মেশিনগুলো ৩/৪ বছর তারা ব্যবহার করেছে কৃষি জমিতে। 

পরবর্তীতে পাওয়ার টিলার মেশিন ও পাওয়ার থ্রেসার মেশিন দুটি নষ্ট হয়ে যায়।  ফুট পাম্প মেশিনটি একই অবস্থা।  হ্যান্ড স্প্রে মেশিনটি একাধিকবার সারা হয়েছে।  ক্লাবের নির্ধারিত কোন ঘর না থাকায় সদস্য রমেশ দাসের বাড়িতে অকেজো অবস্থায় পড়ে রয়েছে এসব কৃষি যন্ত্রাংশ।  এ সব কৃষকরা পুর্নরায় নতুনভাবে সরকারের প্রতি নতুন মেশিনারিজের বরাদ্ধের জন্য জোর দাবি জানান। 

এ ব্যাপারে মোড়েলগঞ্জ উপজেলা কৃষি অফিসার মো. মাসুদ হোসেন পলাশ বলেন, তিনি বদলি হয়ে সদ্যমাত্র এ উপজেলায় কৃষি অফিসার হিসিবে যোগদান করেছেন।  সংশ্লিষ্ট দপ্তরের অনেক বিষয়ে তিনি খোঁজ খবর নিতে পারেনি এখনও। 

তবে এ বিষয়টি সর্ম্পকে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন সহকারি কৃষি কর্মকর্তাদের মাঠ পর্যায়ের খোজ নিয়ে অবহিত করার জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন তিনি।   


keya