১২:০০ এএম, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, শুক্রবার | | ১৮ সফর ১৪৪১




স্বাধীনতার ঘোষক জিয়া প্রমাণ দিতে পারলে পদত্যাগ করব: আব্দুল মান্নান এমপি

১৯ জুন ২০১৯, ০৯:৫৮ এএম | নকিব


এসএনএন২৪.কম : বিএনপির সংসদ সদস্যের কঠোর সমালোচনা করে সরকারি দলের সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নান বলেছেন, এবারের সংসদে আর একটি বিরোধী দল যুক্ত হয়েছে। 

বিএনপির ৬ জন সংসদ সদস্য আছেন।  উনারা সবাই বক্তৃতা শুরুটাই করেছেন স্বাধীনতার ঘোষক একজন ব্যক্তির নাম নিয়ে। 

তিনি হচ্ছে জিয়াউর রহমান।  কিন্তু জিয়াউর রহমান জীবদ্দশায় কোন দিন এই বাংলাদেশে তিনি স্বাধীনতা ঘোষণা করেছেন এ কথা বলেননি, এ দাবি করা হয়নি।  এরকম কোন প্রমাণ যদি ওই সদস্যরা এই সংসদে হাজির করতে পারেন তাহলে আমি এই  সংসদ থেকে পদত্যাগ করব।  বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে এবং ঘোষণায় স্বাধীন হয়েছে। 

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে মঙ্গলবার বাজেট অধিবেশনের বৈঠকে ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন। 

উল্লেখ্য, এর আগে দুইদিন সংসদে বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ ও ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা জিয়াকে স্বাধীনতার ঘোষক বলে তাদের বক্তৃতা শুরু করেন। 

বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে আব্দুল মান্নার বলেন, উনারা খালেদা জিয়ার মুক্তি চান।  মুক্তি চাইতেই পারেন।  কি কারণে জেলে গেছেন? সেকথা দেশের সবাই জানেন।  এই নেতৃত্ব দিয়ে বিএনপি হবে না।  এই নেতৃত্ব দিয়ে বিএনপি টিকে থাকবে না।  এগুলো বদলান।  যদি মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের কোন মানুষকে সম্পৃক্ত করতে পারেন, যাদের প্রতি মানুষের বিশ্বাস আছে, আস্থা আছে সেরকম কাউকে দিয়ে যদি দল পুনঃগঠন করার চেষ্টা করেন আগামীতে তাহলে দল টিকে থাকার পথ খুঁজে পাবে। 

তিনি আরও বলেন, জিয়া যুদ্ধ করলেন।  ৩০ লাখ মানুষ জীবন দিল।  দুই লাখ মা-বোন সম্ভ্রম হারালেন।   স্বামী যুদ্ধ করছে মাঠে, আর তার স্ত্রী কোথায়? যাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছি উনি সেই ক্যান্টমেন্টে ৯ মাস কিভাবে থাকলেন? তার ব্যাখা দিলেন না, কিভাবে ছিলেন? জিয়া তাকে আনতে লোক পাঠালেন, উনি বললেন ভাল আছেন।  এই দেশে যুদ্ধে যে সকল মা বোন সম্ভ্রম হারিয়েছেন তাদের বীরাঙ্গনা বলা হয়, দুর্ভাগ্যবশত খালেদা জিয়াকে কি নামে ডাকবে সেটা দেশের মানুষ আজ পর্যন্ত জানল না।  বুঝতে পারছে না।  ভাল থাকলে কিভাবে থাকলেন, সেটা জানা দরকার।  কষ্টে থাকলে সেটাও বলেন।  আমরা দুঃখের ভাগিদার হতে পারি। 

এদিন সরকারি দলের আরেক সদস্য হাবিবে মিল্লাত বলেন, বিএনপি-জামায়াত নিয়ে কিছু বলতে চাইনি।  তবে বিএনপির কয়েকজন এমপি সংসদে যেভাবে কথা বলছেন, তা অসংসদীয় বলে বারবার এক্সপাঞ্জ করতে হচ্ছে।  যা সংসদীয় ইতিহাসে বিরল।  তিনি বিএনপি এমপিদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করার আহ্বান জানান।