১:৪১ পিএম, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, রোববার | | ১৭ রবিউস সানি ১৪৪১




গোবিন্দগঞ্জে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে গণমাধ্যম ব্যক্তিদের সাথে মত বিনিময়

১৭ জুলাই ২০১৯, ০২:৪১ পিএম | নকিব


মো: মশিউর রহমান বাবু, গাইবান্ধা প্রতিনিধি : গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০১৯ পালন উপলক্ষে গণমাধ্যম ব্যক্তিদের সাথে বর্তমান সরকারের সময়ে উপজেলার মৎস্য সেক্টরে অর্জিত গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি বিষয়ে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তার কার্যালয়ে এক মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

বুধবার সকাল সাড়ে ১০ টায় গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা সিনিয়র মৎস্য  কর্মকর্তা উম্মে হাবিবা মুমু এ মত বিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন।  এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা মৎস্য খামার ব্যবস্থাপক আলতাফ হোসেন, উপজেলা মৎস্য সম্প্রসারণ কর্মকর্তা রাশেদুল ইসলাম, উপজেলা মৎস্য ক্ষেত্র সহকারী আব্দুল লতিফ প্রমূখ।  

উপজেলা সিনিয়র মৎস্য  কর্মকর্তা উম্মে হাবিবা মুমু উক্ত মত বিনিময় সভায় বলেন, উপজেলায় মাছের উৎপাদন প্রায় ১০৮৩ মে.টন এবং চাহিদা প্রায় ১০৯৫০ মে.টন।  মাছের চাহিদা ঘাটতি পুরনে চাষীদের আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে মাছ চাষের পরামর্শ ও প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। 

মৎস্য অফিসের তদারকির মাধ্যমে হেক্টর প্রতি গড়ে ৫-৬ মে.টন কার্প, ১২-১৫ মে.টন তেলাপিয়া, পাঙ্গাস ২০-২৫ মে.টন, শিং মাগুর ৭-৮ মে.টন মাছ চাষীরা উৎপাদন করেছেন।  মাছের খাদ্যের গুণগত মান বৃদ্ধির জন্য ১২ জন মৎস্য খাদ্য বিক্রেতাকে মৎস্য খাদ্য লাইসেন্স প্রদান করা হয়।  তিনি আরো জানান, রংপুর বিভাগের মৎস্য উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় (এনএটিপি-২) প্রকল্পে ইউনিয়নে মৎস্য সম্প্রসারণ কর্মি (লীফ) ও প্যাকেজ ভিত্তিক প্রদর্শণীর মাধ্যমে চাষীদের রাজস্ব ও উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় বিগত বছরে বিভিন্ন জলাশয়ে প্রায় ১.৫০ মে.টন পোনা অবমুক্ত করা হয়েছে। 

এ ছাড়াও বিভিন্ন প্রকল্পের আওতায় ০৫ টি জলাশয় র্পর্ণঃখনন করা হয়।  করতোয়া নদীতে ২ টি সিবিজি গ্রুপের মাধ্যমে ২০ টি খাঁচা স্থাপন এবং ৩৫৫১ জন জেলেকে পরিচয় পত্র প্রদান করা হয়েছে।  ইউনিয়ন পর্যায়ে ওয়াটার এনালজিং কীট বিতরণ করে মৎস্য বিষয়ক তথ্য জানতে সে জন্য ইউনিয়ন তথ্য সেবা কেন্দ্র যাওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়।  মৎস্য সংরক্ষণ আইন অনুযায়ী ১০ ইঞ্চি (২৫ সে.মি) এর নিচে জাটকা ২০১৮ নভেম্ববর হতে ২০১৯ এর জুন পর্যন্ত বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণের ফলে প্রাকৃতিক উৎস্য ও চাষের মাছ মিলিয়ে বিশ্বে এখন বাংলাদেশের অবস্থান চতুর্থ। 

এ মত বিনিময় সভায় বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রিক মিডিয়ার কর্মরত সাংবাদিক গণ উপস্থিত ছিলেন।