১০:৩৭ পিএম, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, শুক্রবার | | ১৮ সফর ১৪৪১




কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুটে কর্মস্থলমুখো যাত্রীদের ভীড়

১৮ আগস্ট ২০১৯, ০২:৫০ পিএম | নকিব


মাতুব্বর শফিক স্বপন, মাদারীপুর প্রতিনিধি : ঈদের ছুটি শেষে  রবিবার প্রথম কর্মদিবসেও কাঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুট হয়ে ঢাকাসহ কর্মস্থলমুখো যাত্রীদের ভীড় রয়েছে। 

আকাশ মেঘলা থাকায় লঞ্চ ও স্পীডবোটের সাথে ফেরিতেও যাত্রীদের ভীড় রয়েছে।  তবে কাঠালবাড়ি ঘাটে যানবাহনের তেমন চাাপ নেই। 

যানবাহনের অপেক্ষায় থাকতে দেখা গেছে ফেরিগুলোকে।  দক্ষিনাঞ্চল থেকে ছেড়ে আসা প্রতিটি যানবাহন ও কাঁঠালবাড়ি ঘাটে নেমে স্পীডবোটে ও  লঞ্চগুলোতে বাড়তি ভাড়া আদায়ের অভিযোগ করেন যাত্রীরা। 

শিমুলিয়ায় নেমেও বাড়তি ভাড়া গুনে ঢাকা পৌছতে হচ্ছে যাত্রীদের।   ঘাট এলাকায় বিআইডবিøউটিএ,পুলিশ, র‌্যাব, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ অতিরিক্ত আইন শৃংখলা বাহিনী নিয়োজিত থেকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করছেন। 

ঘাটের একাধিক সুত্রে জানা যায়, রবিবার বেলা বাড়ার সাথে সাথে শিমুলীয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুট হয়ে দক্ষিনাঞ্চলের যাত্রীদের ভীড় বাড়তে শুরু করেছে।  কাঁঠালবাড়ি ঘাট থেকে ছেড়ে যাওয়া প্রতিটি ফেরি, লঞ্চ, স্পীডবোটেই যাত্রী চাপ রয়েছে। 

আকাশ মেঘলা থাকায় ফেরিতেও চাপ উল্ল্যেখযোগ্য।   লঞ্চে অতিরিক্ত যাত্রী ও ভীড় সামাল দিতে বিআইডবিøউটিএ,পুলিশ, র‌্যাব, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ আইন শৃংখলা বাহিনী নিয়োজিত রয়েছে।    ফেরিতে যানবাহনের চাপ কম থাকলেও যাত্রীদের পর্যাপ্ত চাপ রয়েছে। 

স্পীডবোটেও চাপ ছিল সহনীয় পর্যায়ে।   যশোর, বরিশাল, খুলনাসহ দক্ষিনাঞ্চলের বিভিন্ন জেলা থেকে প্রতিটি যানবাহন বোঝাই হয়ে  যাত্রী কাঠালবাড়ি ঘাটে আসছে।  তবে ঘাট পর্যন্ত আসতে যাত্রীদের গুনতে হচ্ছে দেড় থেকে দ্বিগুন ভাড়া। 

এরুটের স্পীডবোট ও কিছু কিছু লঞ্চেও বাড়তি ভাড়া আদায়ের অভিযোগ উঠেছে।  নদী পাড়ি দিয়ে শিমুলিয়া ঘাট থেকে বাড়তি ভাড়া গুনে গন্তব্যে পৌছাতে হচ্ছে।