২:০২ এএম, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার | | ১৮ মুহররম ১৪৪১




লক্ষীপুরের চন্দ্রগঞ্জে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা উপলক্ষে স্মরণসভা

২২ আগস্ট ২০১৯, ১১:১০ এএম | নকিব


সোহেল মাহমুদ মিলন, লক্ষীপুর প্রতিনিধি  : ২০০৪ সালে বিএনপি-জামাত জোট সরকার ক্ষমতায় থাকাকালীন বঙ্গবন্ধুকন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার চেষ্টার সময় আওয়ামী লীগের নেতা আইভী রহমানসহ ২৪ জন নেতা-কর্মী নিহতদের স্মরণে লক্ষীপুরের চন্দ্রগঞ্জে আওয়ামী লীগ আলোচনা সভা ও নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া মাহফিল করেছে। 

বুধবার বিকালে চন্দ্রগঞ্জ বাজার গণমিলনায়তনে নিহতদের স্মরণে আলোচনা ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

গণমিলনায়তনে স্মরণসভায় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মো. নুরুল আমিনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের শ্রমবিষয়ক সম্পাদক নুরুল ইসলাম বাবুল, সহ-প্রচার সম্পাদক মুনছুর আহম্মেদ, চন্দ্রগঞ্জ থানা ১৪ দলীয় জোটের আহŸায়ক এম ছাবির আহম্মেদ, চন্দ্রগঞ্জ থানা কৃষকলীগের সভাপতি জাকির হোসেন জাহাঙ্গীর, যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক মো.সেলিম,  চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি কামাল হোসেন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন লিঠন, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম শিপন খলিফা, খলিলুর রহমান, চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়ন যুবলীগের আহŸায়ক মো. সাহাবুদ্দিন, যুগ্ম আহŸায়ক আব্দুর রাজ্জাক রিঙ্কু, চন্দ্রগঞ্জ থানা ছাত্রলীগের আহŸায়ক কাজী মামুনুর রশিদ বাবলু, যুগ্ম আহŸায়ক রিয়াজ হোসেন জয়, ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি তাজুল ইসলাম ভূঁইয়া প্রমুখ। 

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, চন্দ্রগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, কৃষকলীগ, শ্রমিক লীগ, ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ।  

উক্ত স্মরণ সভায় বক্তারা বলেন, বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে ২০০৪ সালের এই দিনে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের ‘সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও দুর্নীতিবিরোধী’ সমাবেশে অকল্পনীয় এক নারকীয় গ্রেনেড হামলার ঘটনা বাংলাদেশে এক কলঙ্কময় অধ্যায়ের জন্ম দেয়। 

তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে পরিচালিত পৈশাচিক এ হামলায় সে দিন প্রয়াত রাষ্ট্রপতি মো. জিল্লুর রহমানের সহধর্মিণী ও মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী বেগম আইভী রহমানসহ ২৪ জন নিহত হয়েছিলেন।  শুধু গ্রেনেড হামলাই নয়, সেদিন তাদের প্রধান টার্গেটে থাকা বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে তার গাড়ি লক্ষ্য করেও চালানো হয় ছয় রাউন্ড গুলি। 

আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে গেলেও তিনি আহত হন, তার শ্রবণশক্তি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। 

স্মরণ সভা শেষে নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মিলাদ ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। 


keya