৪:১৪ এএম, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, বুধবার | | ১৩ রবিউস সানি ১৪৪১




মোড়েলগঞ্জে বিদ্যালয়ের জমি দোকান ঘর নির্মাণ করে ভাড়া দিয়ে খাচ্ছেন এলাকার প্রভাবশালীরা

১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০১:৪৮ পিএম | নকিব


এম.পলাশ শরীফ ,বাগেরহাট প্রতিনিধি : বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জে ১৬নং চক পুটিখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জমিতে অবৈধ স্থাপনা সড়কের ওপর  দোকান ঘর উচ্ছেদের দাবিতে বুধবার সকালে মঙ্গলেরহাট বাজারে বিক্ষোভ করেছেন এলাকাবাসি। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দপ্তরে একটি লিখিত অভিযোগও করেছেন স্থানীয়রা।   

প্রাপ্ত অভিযোগ ও সরেজমিনে বুধবার জানাগেছে, পুটিখালী ইউনিয়নের ১৬নং চক পুটিখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি ১৯৫১ সালে ৫২ শতক জমি’র ওপর স্থাপিত হয়। 

পরবর্তীতে সোনাখালী-বলইবুনিয়া খালে ভাঙ্গনের কবলের কারনে মূল জমি থেকে অন্যত্র সরিয়ে বিদ্যালয়টি মঙ্গলেরহাট বাজার সংলগ্ন ৩৪ শত জমি’র ওপর ৬ কক্ষ বিশিষ্ট পাকা ভবনে বিদ্যালয়টি নির্মিত হয়।  ওই বিদ্যালয় নির্মাণের পরবর্তী থেকে ৩৪ শতক জমি অর্ধিকাংশ জমি বেদখল করে দোকান পাঠ গড়ে তুলেছে স্থানীয় প্রভাবশালীরা।  

বিদ্যালয়ের সামনেই একটি অংশে সরোয়ার হোসেন হাওলাদারের গার্মেন্ট দোকান, ছত্তার হাওলাদারের ভাড়াটিয়া রাজু ফরাজীর চায়ের দোকান, ডা. আব্দুল মান্নান শেখের ওষুধের ফার্মেসীসহ ১০/১৫টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান অবৈধভাবে গড়ে উঠেছে।  এমনকি বাজারের জনসাধারণের চলাচলের একমাত্র সড়কটির ওপরও বেদখল করে ঘর নির্মাণ করে ভাড়া দিয়ে খাচ্ছেন অনেকেই।  

স্থানীয়ভাবে মালামাল নিয়ে ভ্যান চলাচলসহ বিভিন্ন যানবাহন চলাচলে দুর্ঘটনার শিকার হতে হচ্ছে প্রতিনিয়ত।  বিভিন্ন গ্রামের মানুষ অসুস্থ হয়ে পড়লে তাদের তাৎক্ষনিক চিৎকিসার জন্য এম্বুলেন্সযোগে নিয়ে চিকিৎসা দিতে পারছেনা।  দীর্ঘদিনের এ জনভোগান্তিতে গ্রামবাসি।  

এদিকে স্থানীয়রা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দপ্তরে অবৈধ স্থাপনা মালিক আব্দুস ছত্তার হাওলাদারের বিরুদ্ধে ২০/২২ জনের স্বাক্ষরিত একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।  

কথা হয় স্থানীয় বাসিন্দা আওয়ামীলীগ নেতা সোহরাফ শেখ(৫৬), আশ্রাব আলী হাওলাদার(৬৫), ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান(৩৫), মুক্তযোদ্ধা সন্তান এনামুল হাওলাদার(৪২), ছালাম হাওলাদার(৬৫), অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ মাসুদ হাওলাদার(৫০), আসাদুর রহমান আসাদ (৩৮), ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলাম খান(৪৭), অবসারপ্রাপ্ত বিডিআর চানমিয়া (৫৫) ও অবসরপ্রাপ্ত গ্রাম পুলিশ আব্দুল মজিদ খান( ৬৭) সহ একাধিক বাসিন্দারা, বিভিন্ন শ্রেনীপেশার মানুষ ক্ষোভের সাথে বলেন দীর্ঘদিনের এ মঙ্গলেরহাট বাজারটি একদিকে খালের ভাঙ্গনে অপরদিকে অবৈধ স্থাপনা দখলদারিদের কবলে মহোৎসব চলছে।  দিন দিন ছোট হয়ে যাচ্ছে বাজার।  মূল সড়কটিও চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়েছে।  এ সব অবৈধ স্থাপনাকারিদের হাত থেকে স্কুলের জমি ও সড়কের জমি দ্রæত অপসারন করে বাজারের অবস্থান ফিরেয়ে আনার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের দৃষ্টি আকর্যন করছেন তারা।  

এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. জাহিদুর রহমান শেখ বলেন, বিদ্যালয়ের ৩৪ শতক জমি সঠিক পরিমাপে নেই।  বেদখল করে নিয়েছে অনেকেই।  ইতোপূর্বে জমির পরিমাপ করা হয়েছিলো কিনা আমার জানা নেই।  তবে তিনি আশার পরে কখনও পরিমাপ কার হয়নি।  

এ সর্ম্পকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. কামরুজ্জামান বলেন, মঙ্গলেরহাট বাজারের অবৈধস্থাপনা সর্ম্পকে একটি অভিযোগ পেয়েছি।  ইতোমধ্যে বিষয়টি তদন্তের জন্য সহকারি কমিশনার(ভূমি) কে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।   

এ বিষয়ে ব্যবসায়ী সরোয়ার হোসেন হাওলাদারসহ দোকান নির্মাণকারিরা বলেন, তারা পজিশন ক্রয় ও অনেকেই পৈত্রিক সূত্রে এসব জমির মালিক।   


keya