৮:১২ এএম, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, সোমবার | | ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১




চাঁপাইনবাবগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তসিকুল-নজরুল-নাসরিনের জয়

১৫ অক্টোবর ২০১৯, ০১:৪৩ পিএম | নকিব


আশরাফুল ইসলাম, চাপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি : চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোট গণনা শেষে চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে। 

১৫৭ কেন্দ্রে ৯৭ হাজার ৯১৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন বিএনপির ধানের শীষের প্রার্থী মো. তোসিকুল ইসলাম তসি। 

দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছেন সতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতীকের জিয়াউর রহমান তোতা।  তিনি ৩৯ হাজার ৫৬৬ ভোট পেয়েছেন।  তিন নম্বরে নৌকার প্রার্থী অ্যাড. নজরুল ইসলাম ভোট পেয়েছেন ৩২ হাজার ১১৪টি। 

ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছেন, বিএনপির উড়োজাহাজ প্রতীকের প্রার্থী মো. নজরুল ইসলাম।  তিনি ৯৩ হাজার ৮৩১ ভোট পেয়েছেন।  মোহাম্মদ সোহরাব আলীর তালা প্রতীক পেয়েছে ১০ হাজার ৯১৪, বই ১৫ হাজার ৮৩৩, লেনিন প্রামানিকের চশশা ১৬ হাজার ৫৪২, ডা. মুন্সি নজরুল ইসলাম সুজনের টিয়া ৭ হাজার ৮৩৭ ও মো. তোসিকুল আলমের টিউবয়েল প্রতীক পেয়েছে ১৯ হাজার ৫৮টি। 

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে কলস প্রতীকের প্রার্থী মোসা. নাসরিন আখতার ৬৩ হাজার ৩৮৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।  শরিফা খাতুন ডেইজি পেয়েছেন ৩৯ হাজার ৬৪৩, মোসা. শরিফা খাতুন বেবী ২৮ হাজার ৪১১, মাতুয়ারা বেগম ৯ হাজার ৯৪৭, রজনী খাতুন ৭ হাজার ১৫৪, মোসা. তাসলিমা খাতুন ৯ হাজার ৮৭৪ ও  মোছা. নাজনীন নাহার ৬ হাজার ৪৬৩ ভোট পেয়েছেন। 

সোমবার দিবাগত রাত পৌণে ২ টার দিকে। জেলা নির্বাচন অফিসার মো. মোতাওয়াক্কিল রহমান ও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আলমগীর হোসেনসহ কর্মকর্তারা চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণা করেন।  

সোমবার সকাল ৯টা থেকে শুরু হয়ে নিবরচ্ছিন্নভাবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত চলে ভোটগ্রহণ।  শান্তিপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে মোট ১৫৭টি ভোট কেন্দ্রে ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন।  সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মোট ভোটার ছিল ৩ লাখ ৮১ হাজার ৯১৪ জন।  এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৯০ হাজার ৬৯৩ এবং নারী ভোটার ১ লাখ ৯১ হাজার ২২১ জন। 

১৪টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভা নিয়ে গঠিত চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে এবার ১৫৭ জন প্রিসাইডিং অফিসার ও ৯৯৫ জন সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার ভোট কেন্দ্রগুলোতে দায়িত্ব পালন করেন।  এবারের নির্বাচনে ৫১টি কেন্দ্রকে গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে বিবেচনা করে জেলা নির্বাচন অফিস।  সেসব কেন্দ্রে অতিরিক্ত নিরাপত্তার ব্যবস্থাও করা হয়।