১:৫৫ এএম, ৬ ডিসেম্বর ২০১৯, শুক্রবার | | ৮ রবিউস সানি ১৪৪১




গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী

সব ধর্মের জন্য বর্তমান সরকার সম-অধিকার প্রতিষ্ঠায় বদ্ধপরিকর

১৪ নভেম্বর ২০১৯, ০৫:১০ পিএম | নকিব


মুহাঃ দেলোয়ার হোসাইন, পিরোজপুর : গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী অ্যাডভোকেট শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, ইসলামের দাওয়াত এমন ভাবে দিতে হবে, যেন সেই দাওয়াতে যুব সমাজ জঙ্গী-সন্ত্রাসী না হয়।  সব ধর্মের জন্য বর্তমান সরকার সম-অধিকার প্রতিষ্ঠায় বদ্ধপরিকর। 

সবার শেষ গন্তব্য একই উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, সবার ওপরে মানুষ সত্য- তাহার উপরে নাই। 

আমরা সবাই বাংলাদেশের নাগরিক।  তাই এ দেশের অন্য ধর্মালম্বীদের জান - মালের

হেফাজত করা প্রতিটি মুসলমানের কর্তব্য।  গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এমপি বৃহস্পতিবার সকালে পিরোজপুরে জেলা ইসলামীক ফাউন্ডেশান এবং জাতীয় ইমাম সমিতি আয়োজিত জঙ্গীবাদ,উগ্রবাদ, মাদক ও সন্ত্রাসবাদ সহ বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে ইমাম ও আলেম সমাজের করনীয় শির্ষক এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। 

মন্ত্রী বলেন, যারা বলেছিলেন আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় এলে দেশে ইসলাম থাকবেনা, তারা জানেনা জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সেই ৭ মার্চের ভাষণের প্রতিটি কথায়ই ইনশাআল্লাহ বলেছিলেন।  তিনিই স্বাধীন বাংলাদেশে প্রথম ইসলামি ফাউন্ডেশান প্রতিষ্ঠা করেন। 

পীর- আউলিয়ার জন্মস্থান এ দেশ দেখতে বিশে^র বিভিন্ন দেশের মুসলমানরা বাংলাদেশে আসতে চায়। 

তাই বঙ্গবন্ধুই বিশে^র মুসলমানদের মিলনমেলার জন্য টঙ্গীর গাজীপুরে বিস্তির্ণ এলাকা তাবলিগ জমায়েতের জন্য বরাদ্ধ করেছিলেন।  তিনি বলেন, আজ তারই উত্তরসূরী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের কওমী মাদ্রাসাকে স্বীকৃতি দিয়ে শিক্ষা ব্যবস্থায় মাদ্রাসা শিক্ষাকে একইভুত করেছেন। 

আজ মাদ্রাসা থেকে পাশ করা একজন ছাত্র বিশ^বিদ্যালয় ভর্তিসহ প্রশাসনের ক্যাডার সার্ভিসে অংশ গ্রহন করার যোগ্যতা রাখছে। 

‘একজন ইমামের জন্য ভিক্ষুকের সাহয্য আর নয়’ বলে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন শেখ হাসিনার সরকার প্রতিটি জেলা উপজেলায় একটি করে মডেল মসজিদ নির্মান করছেন।  যেখানে ইমাম-মুয়াজ্জিন, কেয়ার টেকার সরকারি বেতন ভাতায় চালিত হবেন।  ভন্ড ও দূর্ণীতিবাজ আলেমদের থেকে দুরে থাকর আহবান জানিয়ে মন্ত্রী পিরোজপুরকে সন্ত্রাস, মাদক ও দূর্ণীতিমুক্ত একটি দৃষ্টান্ত জেলা তৈরী করতে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। 

জেলা ইসলামি ফাউন্ডেশানের উপ পরিচালক এ কে এম সাদ উদ্দিন এর সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, পুলিশের বরিশাল বিভাগীয় ডি আই জি মো. শফিকুল ইসলাম, জেলা প্রশাসক আবু আলী মো. সাজ্জাদ হোসেন, পুলিশ সুপার মো. হায়াতুল ইসলাম খান, পৌরসভা মেয়র হাবিবুর রহমান মালেক, জেলা ইমাম সমিতির সভাপতি মো. ফারুক আব্দুল্লাহ, হাফেজ রফিকুল ইসলাম প্রমুখ। 

উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামীলীগ যুগ্ম সম্পাদক আক্তারুজ্জামান ফুলু, সাংগঠনিক সম্পাদক জিয়াউল আহসান গাজী সহ জেলার বিভিন্ন উপজেলার সহশ্রাধিক ইমাম ও

আলেম। 

এর আগে সকালে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম জেলা জজশীপের আয়োজনে আদালত প্রাঙ্গনে ২০০৫ সালের ১৪ নভেম্বর সিরিজ বোমা হামলায় ঝালকাঠীর দুই বিচারক হত্যার স্বরণ সভায় অংশ নেন। 


keya