১:৪৭ এএম, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, রোববার | | ২৮ জমাদিউস সানি ১৪৪১




ফুলপুরের দু’যমজ বোনের সাথে তারাকান্দার দু’যমজ ভাইয়ের বিয়ে, এলাকায় আনন্দ

০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০৫:১৮ পিএম | নকিব


মিজানুর রহমান, ময়মনসিংহ প্রতিনিধিঃ ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলার বালিয়া ইউনিয়নের শালিয়াকান্দা গ্রামের হাবিবুর রহমান ওহাবের যমজ মেয়ে তৃণা আর তৃষার সাথে তারাকান্দা উপজেলার কাকনী ইউনিয়নের কাকনী গ্রামের রেজাউল করিম হাদী সরকারের যমজ ছেলে লিমন সরকার ও রিপন সরকারের বিয়ে হয়েছে। 

জমজ দুই ভাই বিয়ে করলেন জমজ দুই বোনকে।  অভিনব এই বিয়েটি সংঘটিত হয়েছে শুক্রবার ফুলপুর উপজেলার বালিয়া ইউনিয়নের শালীয়াকান্দা গ্রামের হাবিবুর রহমান ওরফে ওয়াহাবের বাড়িতে। 

বিয়ে বাস্তবায়ন হওয়ায় দু’পরিবারের মাঝে আনন্দ বিরাজ করছে। এ ব্যাপারে রেজাউল করিম হীরার সাথে কথা বললে তিনি জানান, ছোটকাল থেকেই আমার ও আমার স্ত্রীর ইচ্ছে ছেলেদের একসাথে একদিনে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে গাঁয়ে হলুদ বিয়ে আর বৌভাত অনুষ্ঠান করবো। 

তবে একসাথে যে জমজ মেয়ে পাবো তেমনটা ভাবিনি কখনো।  ভাগ্য সুপ্রসন্ন হলে যা হয়, পেয়ে গেলাম জমজ ২ বোনকে। মেয়ের বাবা হাবিবুর রহমান ওরফে ওহাব বিয়ের এমন প্রস্তাবে রাজি হয়ে প্রত্যেকের জন্য ৪ লক্ষ টাকা দেনমোহর নির্ধারণ পূর্বক জমজ দুই ভাইয়ের সাথে জমজ দুই কন্যার বিয়েতে রাজি হলেন। 

অনেকটা যেন কাকতালীয় ব্যাপার হাবিবুর রহমান ওরফে ওহাবও বরের বাবা রেজাউল করিম হীরার সাথে সুর মিলিয়ে বলেন, একই কথা যমজ কন্যা দুটি কে আমি অত্যন্ত আদরের মানুষ করেছি ছোটবেলা থেকেই তারা একে অন্যের সাথে খুব মিল রেখে চলেছে আমারও ভাবনা ছিল যদি একই দিনে বিয়ে দিতে পারি তাহলে খুবই ভালো হয়।  আল্লাহ আমার প্রার্থনা শুনেছেন আপনাদের দোয়া ও আশীর্বাদ আমার দুই কন্যার বিয়ে একই দিনে সম্পন্ন হয়ে গেল।  আশা করি আল্লাহ তাআলা তাদের অনাগত দিনগুলোতে একসাথে চলার তৌফিক দান করবেন।  এমন বিয়ের খবরে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। 

শনিবার কাকনি গ্রামে রেজাউল করিম হীরার বাড়িতে বৌভাত অনুষ্ঠিত হয়।  কাকনি ইউনিয়নে সর্বস্তরের জনগণ রেজাউল করিম হীরার বাড়িতে বৌভাতের আমন্ত্রণে উপস্থিত থেকে বর কনেকে দেখার জন্য ভিড় জমান। 

উপস্থিত কয়েকজন আশ্চর্য হয়ে বলেন এমন বিয়ে আর কখনো দেখিনি, এটা অনেকটাই আশ্চর্যজনক।  আশাকরি বর-কনে ভবিষ্যৎ জীবনে একসাথে বসবাস করবে।  সুখে-দুখে একে অপরের পাশে থাকবে। 

এ বিয়ের পাত্রপাত্রীর সাথে কথা বলে জানাগেল, তারা অনেক খুশি,জন্ম হতে একসাথে ছিলেন এখনো একসাথে রবে ভাবতেই নাকি মন ভরে যায়,তারা সবার কাছে দোয়া চাইলেন।  মেয়ে ও ছেলেদের মায়েরা তো আনন্দে আত্মহারা।  তারা এ দম্পতিকে আগলে রাখবে বলে জানান।