৫:২৯ এএম, ৩১ মার্চ ২০২০, মঙ্গলবার | | ৬ শা'বান ১৪৪১




প্রশ্ন ফখরুলের, মোদীর বাংলাদেশ সফর কতটুকু শোভনীয়

০৩ মার্চ ২০২০, ০৯:৪৮ এএম | নকিব


এসএনএন২৪.কম:  ভারতের দিল্লিতে যখন সহিংসতা চলছে, সেই সময় দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বাংলাদেশ সফরে আসা কতটা শোভনীয়, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। 

সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি আয়োজিত পতাকা উত্তোলন দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান বক্তার বক্তব্যে এ প্রশ্ন তোলেন। 

মির্জা ফখরুল বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বাংলাদেশ সফরে আসছেন ভালো কথা।  কিন্তু ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের সমস্যার সমাধান হচ্ছে না।  মোদী যখন বাংলাদেশে আসছেন, যখন দিল্লিতে সহিংসতা চলছে।  পত্র-পত্রিকায় অভিযোগ আসছে খোদ মোদীর বিরুদ্ধে।  সেই সময় মোদীর বাংলাদেশ সফর করাটা কতটুকু শোভনীয় সেই প্রশ্ন আমাদের ভেবে দেখা দরকার। 

বিএনপি মহাসচিব বলেন, বর্তমানে পৃথিবীর সব দেশেই একটা অস্থিরতা কাজ করছে।  বিশ্বে একনায়কতন্ত্রের প্রভাব এখন বেশি দেখা যাচ্ছে।  যারা জনগণের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়, বিভিন্ন দেশের সরকারে তারাই প্রভাব বিস্তার করছে।  

বর্তমান সরকারের সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল বলেন, বর্তমানে যারা ক্ষমতায় আছেন তারা জনগণের সঙ্গে, স্বাধীনতার সঙ্গে কতটুকু সম্পৃক্ত সেই প্রশ্ন আজ জনগণের মধ্যে দেখা দিয়েছে।  ১৯৭১ সালে যে চেতনায় মানুষ মুক্তিযুদ্ধ করেছিল, স্বাধীনতা যুদ্ধে মানুষের যে আশা-আকাঙ্ক্ষা ছিল, যে স্বপ্নে মানুষ জীবন বাজি রেখে যুদ্ধ করেছিল তার একটিও পূরণ হয়নি। 

তিনি আরো বলেন, সরকার জনগণের ম্যান্ডেট না নিয়েই জোর করে ক্ষমতায় থেকে একে একে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে সম্পন্ন ধূলিস্ম্যাৎ করে দিচ্ছে।  একদলীয় শাসন ব্যবস্থা চাপিয়ে দিতে চাচ্ছে।  সমস্ত গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংস করে দিচ্ছে।  এই সরকার আমাদের সমস্ত অর্জন ধ্বংস করে দিয়েছে। 

খালেদা জিয়ার জামিন প্রসঙ্গ উল্লেখ করে তিনি বলেন, তিনবারের প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে বেআইনিভাবে, অন্যায়ভাবে মিথ্যা মামলা দিয়ে কারাগারে আটক রেখে, অসুস্থ অবস্থায় তার চিকিৎসার সুযোগ দেওয়া হচ্ছে না।  খালেদা জিয়ার জামিন পাওয়া তার গণতান্ত্রিক অধিকার।  সরকার তাকে গণতান্ত্রিক অধিকার থেকেও বঞ্চিত করছে। 

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আজকের দিনে আমি জাতির সূর্য সন্তানদের সম্মান প্রদর্শন করি।  ২ মার্চ বাঙালি জাতির জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ দিবস।  এই দিবসে আমরা শপথগ্রহণ করি নির্বাচন বাতিল করে একটি নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের জন্য আমরা আন্দোলন সংগ্রাম শুরু করি। 

পতাকা উত্তোলন দিবসের আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন জেএসডির কার্যকরী সভাপতি সা কা ম আনিসুর রহমান খান কামালের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন, বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী, মাহমুদুর রহমান মান্না, ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, জোনায়েদ সাকি, ড. রেজা কিবরিয়া, ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুরু, তানিয়া রব এবং জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব।  পতাকা উত্তোলন দিবসের স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে আসম আবদুর রব বলেন, বর্তমান সরকার মনগড়া বিকৃত ইতিহাস অপপ্রচার করে যাচ্ছে।  নিউক্লিয়াসের অবদান অস্বীকার করা মুক্তিযুদ্ধকে অসম্মান করার শামিল।