৬:০৭ পিএম, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, রোববার | | ২ সফর ১৪৪২




রাউজান পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডে ৫৪২ পরিবারে ভি.জি.এফ চাউল বিতরণ

৩০ জুলাই ২০২০, ০৪:০৭ পিএম | নকিব


প্রদীপ শীল, রাউজানঃ
রাউজান পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রদত্ত ও এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি পক্ষে ভি.জি.এফ চাউল বিতরণ করা হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার এই চাউল বিতরণ করা হয় হযরত গফুর আলী বোস্তামী মাজার মাঠে।  উপজেলা যুবলীগের সভাপতি প্যানেল মেয়র জমির উদ্দিন পারভেজের সভাপতিত্বে ও পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আসিফের সঞ্চালনায় চাউল বিতরণ অনুষ্ঠানে টেলি কনফারেন্সের মাধ্যমে বক্তব্য রাখেন রাউজানের সাংসদ এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী। 

বিশেষ অতিথি ছিলেন রাউজান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জোনায়েদ কবির সোহাগ।  এসময় উপস্থিত পৌর আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি জসিম উদ্দিন, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি হারুন আর রশিদ চৌধুরী টিপু, যুবলীগ নেতা সবুজ দে ভানু, মোহাম্মদ ইকবালসহ আরো অনেকেই।  প্রায় পাঁচ শত ৪২ জনকে ১০ কেজি করে ভি.জি.এফ চাউল বিতরণ করা হয়। 

টেলি কনফারেন্সের মাধ্যমে সাংসদ এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী বলেন, করোনাভাইরাস আমাদের জীবন থেকে অনেককিছু নিয়ে গেছে।  রাউজানে আমরা চেষ্টা করেছি মানুষের পাশে থেকে কর্মহীন পরিবারে খাদ্য সহায়তা দিতে।  ইতিমধ্যে এক লাখ পরিবারকে আমরা খাদ্য সহায়তা দিয়েছি।  সরকারী ভাবে আমরা আরো ৭০ হাজার পরিবারে খাদ্য দিয়েছি।  এছাড়া সুরক্ষা সামগ্রী সহ বিভিন্ন ভাবে মানুষের পাশে ছিলাম। 

আমরা ৫০ শয্যার আইসোলেশন সেন্টার করেছি।  এখানে করোনা রোগীর চিকিৎসা সেবাসহ যাবতীয় খরচ আমরা দিচ্ছি।  উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জোনায়েদ কবির সোহাগ বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী করোনা প্রাদুর্ভাব শুরু থেকে মানুষের জন্য বিভিন্ন ভাবে খাদ্য সহায়তা বরাদ্দ অব্যাহত রেখেছেন।  আসন্ন কোরবানি ঈদকে সামনে রেখে ভি.জি.এফ কার্ডের মাধ্যমে ১০ কেজি করে চাউল বিতরণ করছেন।  এছাড়া রাউজানের সাংসদ ও সাংসদ পুত্র ফারাজ করিম চৌধুরীর ব্যবস্থাপনায় ৭০ হাজার পরিবারে খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়েছে রাউজানে। 

প্যানেল মেয়র জমির উদ্দিন পারভেজ বলেন, করোনা প্রাদুর্ভাবে কর্মহীন হতদরিদ্র মানুষকে সহায়তা করতে আমরা সামগ্রিক ভাবে ফারাজ করিম চৌধুরীর নেতৃত্বে একটি ত্রাণ কমিটি গঠন করেছিলাম। 

রাউজানের সাংসদ নির্দেশে সাড়ে চার মাস ধরে মানুষের ঘরে ঘরে খাদ্য সামগ্রী পৌঁচ্ছে দিয়েছি। ফজলে করিম চৌধুরীর নির্দেশ ছিল, রাউজানে কেউ না খেয়ে থাকবে না।  সকল মানুষের জন্য থাকবে খাদ্য সামগ্রীর ব্যবস্থা।   আমরা সেলক্ষ্যে কাজ করছি মাঠ পর্যায়ে।