১:২৮ এএম, ১ ডিসেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার | | ১৫ রবিউস সানি ১৪৪২




গ্রেপ্তার রাবি সাংবাদিকের মুক্তি ইবি প্রেসক্লাবের

১৫ নভেম্বর ২০২০, ০৬:৪২ পিএম |


মুনজুরুল ইসলাম নাহিদ, ইবি প্রতিনিধি: আইসিটি আইনে গ্রেপ্তার হওয়া রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক যুগান্তরের রাবি প্রতিনিধি মানিক রাইহান বাপ্পীর নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানিয়েছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) প্রেসক্লাব।  একইসাথে এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে সংগঠনটি। 

রবিবার ইবি প্রেসক্লাবের সভাপতি ফেরদাউসুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত তিমির এক যৌথ বিবৃতিতে এ দাবি জানান।  বিবৃতিতে এ ঘটনাকে হয়রানি দাবি করে একে সাংবাদিকদের পাশাপাশি পুরো জাতিকে দমিয়ে রাখার নামান্তর বলে উল্লেখ করা হয়। 

বিবৃতিতে বলা হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ে পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে একজন সাংবাদিককে কারাভোগ স্বাধীন সাংবাদিকতা জন্যে হুমকি স্বরূপ।  একটা রাষ্ট্রকে সঠিকভাবে পরিচালনায় সহায়তার ক্ষেত্রে সাংবাদিকদের অনন্য ভুমিকা রয়েছে।  কিন্তু এ সহায়তা করতে গিয়ে তথা অন্যায়ের বিরুদ্ধে লিখতে গিয়ে এভাবে হয়রানি সাংবাদিকদের পাশাপাশি পুরো জাতিকে দমিয়ে রাখার নামান্তর। 

বিবৃতিতে তার নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করে বলা হয়, অন্যায়ের বিরূদ্ধে লিখতে গিয়ে এভাবে সাংবাদিকদের টুটি চেপে ধরার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাব।  এছাড়া যুগান্তরের সম্পাদক ও জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি সাইফুল আলমসহ সাতজনের বিরূদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাব। 

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের অক্টোবরে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সোহরাওয়ার্দী হলের আসন বরাদ্দে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অনৈতিকভাবে অর্থ আদায়ের অভিযোগ ওঠে হলের আবাসিক শিক্ষক ও কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষক কাজী জাহিদের বিরূদ্ধে। 

সেই ঘটনায় ‘আবাসন বরাদ্দের নাামে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে রাবি শিক্ষকের চাঁদা আদায়’ শিরোনামে বিভিন্ন সংবাদ প্রকাশিত হয়।  প্রকাশিত সংবাদে ক্ষুব্ধ হয়ে ওই শিক্ষক আইসিটি আইনে (৫৭ ধারা) বাপ্পীসহ সাতজনের বিরূদ্ধে মামলা করেন।  মামলার প্রেক্ষিতে গত ১৩ নভেম্বর নিজ বাসা থেকে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠায়।