১:৩৬ পিএম, ১৯ আগস্ট ২০২২, শুক্রবার | | ২১ মুহররম ১৪৪৪




ম্যাককয়ের ৬ উইকেট, ভারতকে হারিয়ে সমতায় উইন্ডিজ

০২ আগস্ট ২০২২, ১১:৩১ এএম |


এসএনএন২৪.কমঃ পাঁচ ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে বল হাতে আলো ছড়ালেন ওবেড ম্যাককয়।  ক্যারিবিয়দের হয়ে রেকর্ড ৬ উইকেট নিয়ে অল্প রানে আটকে দিলেন ভারতকে। 

সহজ লক্ষ্যে অবশ্য ভালো ব্যাটিং করতে পারেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজও।  শেষদিকে ডেভন টমাসের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে জয় নিয়ে সিরিজে সমতা ফেরায় তারা। 

সোমবার রাতে ত্রিনিদাদ থেকে যথা সময়ে লাগেজ না আসায় সেন্ট কিটসে খেলা মাঠে গড়ায় দুই ঘণ্টা দেরিতে।  টস হেরে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারের দুই বল বাকি থাকতেই সবগুলো উইকেট হারিয়ে ১৩৮ রান সংগ্রহ করে ভারত।  লক্ষ্য তাড়ায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৫ উইকেট হারিয়ে চার বল আগেই গন্তব্যে পৌঁছে যায়।  ৫ উইকেটে জয়লাভ করে তারা। 

ওয়ার্নার পর্কে শুরুতে ব্যাটিংয়ে নেমে প্রথম বলেই উইকেট হারান ভারতীয় অধিনায়ক রোহিত শর্মা।  বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি সুর্যকুমার যাদবও।  শ্রেয়াস আইয়ার ও রিশভ পন্থও বড় করতে পারেননি ইনিংস।  ৬১ রানেই ৪ উইকেট হারিয়ে ফেলে সফরকারীরা।  এমতাবস্থায় দলকে ম্যাচে ফেরান হার্দিক পান্ডিয়া ও রবীন্দ্র জাদেজা।  ৪৩ বলে ৪৩ রানের জুটি গড়েন তারা। 

৩১ রান সংগ্রহ করে জেসন হোল্ডারের বলে উইকেট হারান পান্ডিয়া।  জাদেজাও আর বেশিক্ষণ থিতু হতে পারেননি।  ম্যাককয়ের আগুণে বোলিংয়ে ২৭ রানে বিদায় নেন তিনি।  এরপর ভারতের হয়ে আর কেউ দাঁড়াতে পারেননি।  ১৩৮ রানেই গুটিয়ে যায় তারা।  ক্যারিবিয়দের হয়ে সর্বোচ্চ ৬ উইকেট শিকার করে রেকর্ড গড়েন ম্যাককয়।  জাতীয় দলের জার্সিতে প্রথম বোলার হিসেবে টি-টোয়েন্টিতে কোনো ম‍্যাচে ছয় উইকেট নিলেন তিনি। 

জয়ের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালো করেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ ওপেনার ব্র্যান্ডন কিং।  অপরপ্রান্তে নামা কাইল মেয়ার্স ৮ রানেই সাজঘরে ফেরেন।  নিকোলাস পুরান ও শিমরন হেটমায়ারও উল্লেখযোগ্য রান করতে পারেননি।  এদিকে ৩৯ বলে ফিফটি হাঁকিয়ে এগোতে থাকেন কিং।  তবে ৬৮ রান করে আভেশ খানের বলে থামাতে হয় তাকে।  ৮ বাউন্ডারি ও ২ ছক্কায় সাজানো ছিল ক্যারিবিয় এই ব্যাটারের ইনিংস। 

কিং বিদায় নিলে বিপদে পড়ে ক্যারিবিয়রা।  শেষ ৩ ওভারে ২৭ রানের কঠিন সমীকরণে আটকে গিয়েছিল তারা।  সেটি অবশ্য সহজ করে দেন টমাস।  ছক্কা মেরে দলের জয় নিশ্চিত করেন তিনি।  ১৯ বলে ৩১ রান করে অপরাজিত থাকেন এই ব্যাটার। 


keya