৯:৫৭ এএম, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, সোমবার | | ২৯ সফর ১৪৪৪




চট্টগ্রাম আদালতে বিয়ে

স্ত্রী পেয়েছে স্বীকৃতি, সন্তান ফিরে পেল পিতৃপরিচয়

১৮ আগস্ট ২০২২, ১২:১০ এএম |


নিজস্ব প্রতিবেদক: 

ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার মো. সাগর ও রাজিয়া (ছদ্মনাম) ৪ লাখ ৫০ হাজার টাকার কাবিনে আদালতে বিয়ে হয়েছে।  

বুধবার (১৭ আগস্ট) বিকেলে চট্টগ্রাম জেলা ও দায়রা জজ আদালতে আজিজ আহমেদ ভূঞার আদালতে এই বিয়ে হয়। 

বিয়ের পরে মামলার বাদী রাজিয়া (ছদ্মনাম) জিম্মায় মো. সাগরের জামিন মঞ্জুর করেছেন আদালত।  বর মো. সাগর, বরিশাল জেলার বাসিন্দা হলেও নগরের বায়েজিদ বোস্তামী থানার কৃষ্ণছায়া আবাসিক এলাকার বসবাস করে।  তার বাবার নাম ইদ্রিস হাওলাদার। 

এর আগে গত সোমবার (৮ আগস্ট) বিকেলে বিয়ে হওয়ার কথা ছিল।  কিন্তু প্রকৃতিক দুর্যোগের কারণে মো. সাগরের পরিবারের সদস্যরা আদালতে উপস্থিত হতে পারেনি।  যার কারণ বিয়ে তারিখ পিছিয়ে দেওয়া হয়। 

আদালত সূত্রে জানা যায়, চাকরি সূত্রে পরিচয় হয়ে দুইজনের মধ্যে সুসম্পর্ক গড়ে ওঠে।  সেই সম্পর্কের সূত্র ধরে রাজিয়ার সঙ্গে সাগরের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।  সাগর রাজিয়াকে বিয়ে করার প্রস্তাব সরলভাবে বিশ্বাস করে।  সাগরের কথামতো রাজিয়া সাগরের সঙ্গে ঢাকা, বরিশাল ও চট্টগ্রামের বিভিন্ন ভাড়া বাসায় স্বামী-স্ত্রী হিসেবে বসবাস করে।  ইতিমধ্যে তাঁর একটি কন্যা সন্তান জন্মগ্রহণ করেন।  তার বয়স ১ বছর ৪ মাস।  সাগর বর্তমান ঠিকানায় বাসা ভাড়া নিয়ে স্বামী স্ত্রী হিসাবে বসবাস করে।  দীর্ঘদিন থেকে কাবিননামা রেজিস্ট্রি না করায় সাগরকে জোর করলেও সাগরের বাবা ও ভাইয়ের সহযোগিতায় সব বিষয় সম্প্রতি অস্বীকার করে।  চট্টগ্রাম নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ মামলার আবেদন করলে আদালত হাটহাজারী থানাকে মামলার নেওয়ার নির্দেশ দেন।  এ মামলায় আসামি করা হয় মো. সাগর, সাগরের ভাই রেজাউল করিম শাকিল ও বাবা মোহাম্মদ ইদ্রিস হাওলাদারকে।   

মামলার বাদী শারমিন এর আইনজীবী আনোয়ার শাহাদাত বলেন, আসামি মো. সাগরের সঙ্গে বাদীর ৪ লাখ ৫০ হাজার টাকার কাবিনে আদালতে বিয়ে হয়েছে।  আদালত বিয়ের পরে বউয়ের জিম্মায় আগামী ধার্য তারিখ পর্যন্ত জামিন মঞ্জুর করেন। 

আসামী পক্ষের আইনজীবী আরো বলেন, মৌলভী মাধ্যমে ইসলামী শরিয়াহ সম্মতভাবে বিয়ে সম্পন্ন হয়ে থাকলেও বিয়ে রেজিস্ট্রারী না হলে সেটা রাষ্ট্রীভাবে মেয়ের অধিকার পাচ্ছে না এজন্য মাননীয় আদালতের মাধ্যমে বিবাহ রেজিস্ট্রার এবং সুখী দাম্পত্য জীবন গঠনের মাধ্যমে ছেলে তার পিতাকে ফিরে পেয়েছে স্ত্রী তার স্বামীকে ফিরে ফেল এটাই আমাদের প্রাপ্তি। 




keya