৫:২৩ এএম, ৮ ডিসেম্বর ২০২২, বৃহস্পতিবার | | ১৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪




চট্টগ্রাম-রাঙ্গামাটি মহাসড়কের হাটহাজারীর প্রবেশ মুখে অবৈধ পাকিং : যাত্রী ও পথচারীদের দুর্ভোগ

২১ নভেম্বর ২০২২, ০৯:২৭ পিএম |


প্রদীপ শীল, রাউজান :

চট্টগ্রাম রাঙ্গামাটি মহাসড়কের প্রবেশমুখে হাটহাজারী বাস ষ্টেশন এলাকায় সড়কের উপর যানজট প্রতিনিয়ত ঘটনা।  এ সড়কে চলাচলরত রাউজান-রাঙ্গামাটি, ফটিকছড়ি ও খাগড়াছড়িতে যাতায়তকারী মানুষের দুর্ভোগ লেগেই থাকে।  সরোজমিনে দেখা যায় অবৈধ পাকিং করা হাইচ, জীপ, লেগুনা, সিএনজি অটো রিক্সা, সড়কের উপর এলাপাতারি ভাবে দখল নিয়েছে।  হাইওয়ে পুলিশ পার্কিং করা গাড়ী থেকে চাঁদা আদায় করতে।  চট্টগ্রাম-রাঙ্গামাটি মহাসড়কের প্রবেশমুখে হাটহাজারী বাস ষ্টেশন থেকে শুরু করে কলাবাগান পর্যন্ত সড়কের দুই পাশে দখলে থাকে ছোট বড় কয়েক’শ গাড়ী।  যার কারণে মহাসড়ক দিয়ে চলাচল কারী যাত্রীবাহী বাস, পণ্য বাহী ট্রাক, যাত্রীবাহি সিএনজি অটোরিক্সা চলাচলে বিঘœ সৃষ্টি হয়ে আসছে।  সড়কের যানবাহন নিয়ন্ত্রন ও যানজট নিরসনের দায়িত্বে রাউজান হাইওয়ে থানার পুলিশ ও ট্রাফিক পুলিশ থাকলেও সড়কের উপর অবৈধ পাকিং উচ্ছেদ কাজ করে না তারা ।  এ অবস্থায় সড়ক দিয়ে চলাচলকারী যাত্রীদের মধ্যে চরম ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে।  গতকাল ২১ নভেম্বর সোমবার বিকাল ৪টার দিকে হাটহাজারী বাস ষ্টেশন এলাকায় দেখা যায়, ট্রাফিক সার্জন কাসেম সড়কের এক পাশে দাঁড়িয়ে রয়েছে।  তার নির্দেশে কনষ্টেবল ওয়াজিউল্লাহ সড়কের অপর পাশে এসে একটি সি এনজি অটোরিক্সা থেকে যাত্রী নামিয়ে দিয়ে গাড়ীটি আটক করে নিয়ে যেতে দেখা যায়।  এ ব্যাপারে চট্টগ্রাম রাঙ্গামাটি মোটর মালিক সমিতির সভাপতি  আলহাজ্ব সৈয়দ হোসেন কোম্পানীর কাছে ফোন করে জানতে চাইলে তিনি বলেন, হাটহাজারী বাস ষ্টেশনে সড়কের উপর থেকে অবৈধ পাকিং সরাতে মালিক ফেডারশনের নেতা মনজুরুল আলম সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে কয়েক দপে মৌখিক ভাবে জানানো হয়েছে।  এ ব্যাপারে রাউজান হাইওয়ে থানার ওসি কামরুল আজমের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, হাটহাজারী বাস ষ্টেশন এলাকা থেকে সড়কের উপর অবৈধ পার্কিং সরানোর প্রক্রিয়া চলছে।  এ ব্যাপারে ট্রাফিক পরিদর্শক মোঃ বখতিয়ার উদ্দিনকে ফোন করে জানতে চাইলে তিনি  বলেন, হাটহাজারী বাস ষ্টেশন এলাকায় প্রতিদিন অভিযান চালিয়ে ব্যাটারী চালিত রিক্সা, সড়কের উপর পাকিং করে রাখা সি,এন,জি অটোরিক্সা আটক করছি।  অবৈধবাবে পাকিং করে রাখা যানবাহনের বিরুদ্ধেও মামলা দেওয়া হচ্ছে।  


keya