১১:২৯ এএম, ৯ মে ২০২১, রোববার | | ২৭ রমজান ১৪৪২




মুজিব বন্দনা ও কারাজীবন

১৭ মার্চ ২০২১, ১১:১২ এএম |


মুজিব বন্দনা ও কারাজীবন
--------------শাহীদুল আলম


১৭ই মার্চ ১৯২০
পিতা "মুজিব" আজ তোমার জন্মদিন,
বীর বাঙালির আজই মহাখুশির দিন। 
বীর বাঙালির বিজয় দেশ আজ স্বাধীন,
ষোল-ই ডিসেঃ একাত্তর থাকবে চিরদিন। 

১৯৩৮ সাল
পিতা মুজিব আমাদের চিরস্মরণীয় ক্ষণ,
ঘনিষ্ঠ সহচর তোফায়েল আহমেদ বলে-
অধিকার আদায়ে প্রতিবাদ করতে যেয়ে
তরুণ মুজিব'ই প্রথম করলো কারাবরণ। 

১৯৪৮ সাল
আবারো পাঁচ দিনের শ্রীঘর হলো আপন,
কতো অভিযোগেও বিচলিত নহে স্বজন। 
মুজিব মানেই বিচলিত হওয়ার পাত্র নন,
জেনেছি ওরা চালিয়েছে কতো নির্যাতন। 

১৯৪৯ সাল
উনিশশো উনপঞ্চাশ সালে তিনশত দুই- দিন কারাগারেই তোমার বছর গেলো চলে,
বীর বাঙালির রক্তে বহমান-মুজিবের এক আহবান, বাঙালির নেতা মুজিবকেই বলে। 

১৯৫০-৫২ সাল
পঞ্চাশ-বায়ান্ন কারাগারে সাতশত সাতাশি,
দিন, হুকুম এসেছে দাও মুজিবকে ফাঁসি। 
ফাঁসির মঞ্চে যেতে রাজি মুজিব দিবানিশি,
কোটি বাঙালি "মুজিব"তোমায় ভালোবাসি। 
 
১৯৫৪-৫৯ সাল
মুজিব তোমার একহাজার তিনশত উনষাট
দিন কাটে নির্মমতায় পশ্চিমাদের কারাগার
লাল-সবুজের পতাকার লাগি, নেতা মুজিব
কাটিয়েছে বারোটি বছর দুর্বিষহ কারাগার। 

১৯৬২-৬৫ সাল
রাজপথে আন্দোলনে কারাবরণ বারে বার
আটশত তিরাশি দিন কাটে কতো যন্ত্রণার। 
সাদাসিধা জীবন কাটিয়ে "মুজিব পরিবার"
জাতি ধর্ম নির্বিশেষে মুজিব সাড়া বাংলার। 

১৯৬৬-৭১ সাল
একহাজার তিনশত নয় দিন "কারাজীবন"
মুজিব জানে তাঁর মূলশক্তি প্রিয় জনগণ,
বাঙালির জন্য ত্যাগ তোমার চার হাজার ছয়শত বিরাশিটি দিন করলে "কারাবরণ"
 
অবশেষে কতো নেতা-কর্মী, তোমার দারস্থ
সুসময়ে পাশে ছিলো, দুঃসময়ে হয় বিলীন
বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবন তোমার পিতা-
দেশ করলে স্বাধীন পশ্চিমারা হলো পরাস্ত। 


লেখক ও কথাসাহিত্যিক,
-সিনিয়র শিক্ষক,
নানুপুর মজহারুল উলুম গাউছিয়া ফাযিল (ডিগ্রি) মাদ্রাসা, ফটিকছড়ি, চট্টগ্রাম। 
Shahidhaider99@gmail.com